তাহলে সেঞ্চুরিও করতে পারেন মাহমুদউল্লাহ

নেতৃত্ব পেলে ভালো খেলেন, চাপে থাকলে ভালো খেলেন- মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে যায়

  জ্যোতির্ময় মণ্ডল ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মাহমুদউল্লাহ,

সাকিব আল হাসানের অনুপস্থিতিতে হয়েছেন অধিনায়ক। অথচ দলে তার জায়গাটা ছিল নড়বড়ে। টেস্টে যে মাহমুদউল্লাহও সেঞ্চুরি করতে পারেন, অনেকে ভুলে গিয়েছিলেন। তার সর্বোচ্চ রানের ইনিংস এ বছর চট্টগ্রামে শ্রীলংকার বিপক্ষে ৮৩! দশ বছরের মধ্যে সেটাই যে ছিল সেরা। টানা দশ ইনিংসে কোনো হাফ সেঞ্চুরি নেই। এরমধ্যে তিনবার শূন্য। পাঁচবার ফিরেছেন দুই অঙ্কে পৌঁছানোর আগেই।

এমন ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সের পরও তার নেতৃত্ব পাওয়া। নেতৃত্ব পেলে ভালো খেলেন, চাপে থাকলে ভালো খেলেন- মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে যায়। প্রতিপক্ষকে ফলো-অন না করিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নামা বাংলাদেশ ২৫ রানেই চার উইকেট হারায়। সেখান থেকেই ওয়ানডে মেজাজে হার না-মানা সেঞ্চুরি (১০১*)। তাহলে মাহমুদউল্লাহ সেঞ্চুরি করতে পারেন?

এটি তার দ্বিতীয় সেঞ্চুরি। ও আচ্ছা! তাহলে প্রথম সেঞ্চুরি? সেই ২০১০ সালের ফেব্র“য়ারিতে হ্যামিল্টনে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে! এই সময়ে ক্রিকেটের অনেক রেকর্ড ওলট-পালট হয়েছে। মাহমুদউল্লাহ নিজেও গড়েছেন অনেক কীর্তি। তবে সাদা পোশাকে আট বছর পর পেলেন দ্বিতীয় সেঞ্চুরি। পরিসংখ্যান না ঘাটলে মনে না থাকারই কথা।

দলে নড়বড়ে হয়ে যাওয়া জায়গাটা এই সেঞ্চুরিতেই করলেন শক্তপোক্ত। দুই সেঞ্চুরির মধ্যে এত বেশি সময় লাগেনি বাংলাদেশের আর কোনো ব্যাটসম্যানের। এরমধ্যে খেলেছেন ৩৫ টেস্ট। এর আগে মোহাম্মদ আশরাফুলের দ্বিতীয় সেঞ্চুরি পেতে সময় লেগেছিল ২২ টেস্ট।

দুই সেঞ্চুরির মধ্যে সবচেয়ে বেশি সময় লেগেছে অস্ট্রেলিয়ার সাবেক ওপেনার বার্ডসলির। তার অপেক্ষা ছিল ১৩ বছর ৩৪৬ দিন। আর ম্যাচের হিসাবে দুই টেস্ট সেঞ্চুরির মাঝে দীর্ঘতম অপেক্ষার বিশ্ব রেকর্ড অ্যাডাম প্যারোরের। ৭৮ টেস্টের ক্যারিয়ারে দুটি সেঞ্চুরি করেছিলেন নিউজিল্যান্ডের এই সাবেক উইকেটকিপার। দুই সেঞ্চুরির মাঝে খেলেছিলেন ৫৭ টেস্ট। আরেক উইকেটকিপার দক্ষিণ আফ্রিকার মার্ক বাউচারের দুই সেঞ্চুরির মাঝে ব্যবধান ছিল ৫০ টেস্টের।

ঢাকা টেস্টে মাহমুদউল্লাহর জন্য সেঞ্চুরি করাটা ছিল চ্যালেঞ্জের। ২৫ রানে চার উইকেট হারানোর পর তার লক্ষ্য ছিল দ্রুত রান তোলা। রানখরায় ছিলেন। প্রথম ইনিংসে ১১০ বল খেলে করেছিলেন মাত্র ৩৬ রান।

চা-বিরতির আগে শেষ বলে যখন দুই রান নিয়ে স্পর্শ করলেন সেঞ্চুরি, দল পৌঁছে গেছে নিরাপদ ঠিকানায়। ১২২ বলে চারটি চার ও দুটি ছক্কায় অপরাজিত ১০১ রান করে ইনিংস ঘোষণা করেন অধিনায়ক। সাকিব ফিরলে মাহমুদউল্লাহকে নেতৃত্ব ছেড়ে দিতে হবে। তবে এই সেঞ্চুরি দলে তার জায়গা পাকা করে দিয়েছে!

ঘটনাপ্রবাহ : বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে সিরিজ, ঢাকা-২০১৮

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×