মাশরাফির জয় এবং খেলোয়াড়দের ভোট-আনন্দ

  স্পোর্টস রিপোর্টার ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মাশরাফি,

বাংলাদেশ ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি মুর্তজা নড়াইল-২ আসন থেকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। স্ত্রী সুমনা হক সুমিকে সঙ্গে নিয়ে রোববার সকালে নড়াইল টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে ভোট দেন মাশরাফি। তিনি নৌকা প্রতীক নিয়ে জয়ী হয়েছেন।

এদিকে জাতীয় ক্রিকেট দলের অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান আগেরদিন ওমরাহ শেষে দেশে ফিরে ভোট দিয়েছেন। জাতীয় মহিলা দলের ক্রিকেটার শামীমা আক্তার সুপ্তা নিজ এলাকা গাইবান্ধা যেতে না পারায় ভোট দিতে পারেননি। জাতীয় দলের শাটলার এলিনা সুলতানা খুলনায় ভোট দিয়েছেন। তার স্বামী সাবেক জাতীয় চ্যাম্পিয়ন শাটলার এনায়েত হোসেন চীনে থাকায় ভোট দিতে পারেননি।

তারকা হকি খেলোয়াড় রাসেল মাহমুদ জিমির বাসা পুরান ঢাকায়। তিনি ঢাকা-৭ আসনের ভোটার। তার ভোট কেন্দ আরমানিটোলা সরকারি উচ্চবিদ্যালয়। ভোট দিয়ে এই হকি তারকা বলেন, ‘আমি জাতীয় দলের নাইম, সাবেক খেলোয়াড় কামাল ভাইসহ আরও অনেক হকি খেলোয়াড় একসঙ্গে ভোট দিয়েছি।’

আরমানিটোলা স্কুল হকির সূতিকাগার। জাতীয় নির্বাচন উপলক্ষে হকির সাবেক ও বর্তমান খেলোয়াড়রা অনেকেই এ কেন্দ্রে ভোট দিতে আসেন। সুন্দর সময় কাটিয়েছেন তারা, ‘আমরা বর্তমান খেলোয়াড়দের মধ্যে মাঝেমধ্যে দেখা সাক্ষাৎ হলেও সাবেকদের সঙ্গে বেশকিছু দিন পর ভোটের মাধ্যমে দেখা হল।’

একই আসনে এবার জীবনের প্রথম ভোট দিয়েছেন জাতীয় টেবিল টেনিস খেলোয়াড় আশিকুর রহমান পলাশ। জীবনে প্রথম ভোট দিয়ে বেশ উচ্ছ্বাসিত এই তরুণ, ‘প্রথম যে কোনো কিছুর অভিজ্ঞতাই দারুণ। বেশ রোমাঞ্চিত ছিলাম ভোট নিয়ে। ভোট দিয়ে ভালো লাগছে।’

জাতীয় ফুটবল দলের তারকা ফুটবলার মামুনুল ইসলাম। তিনি চট্টগ্রামের ভোটার। স্বাধীনতা কাপের সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নেয় তার দল ঢাকা আবাহনী। তার ইচ্ছে ছিল ভোট দিতে যাওয়ার। পারিবারিক কারণে যেতে পারেননি, ‘ছয়দিন আগে বাবা হয়েছি। তাই চট্টগ্রামে যাওয়া হয়নি। চট্টগ্রামে ভোট দিতে গেলে বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা এবং আত্মীয়দের সঙ্গে দেখা হতো। বাবার দায়িত্ব পালন করাটাই এখন বড়।’

সাঁতারু মাহফুজা খাতুন শিলা সর্বশেষ এসএ গেমসে দুটি স্বর্ণ জেতেন। তিনি এবার প্রথম ভোটার হয়েছেন। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর এই সাঁতারু ভোটার হয়েছেন নিজ জেলা যশোরে। যশোর-৪ আসনে ভোট দিয়ে বেশ খুশি শিলা, ‘এটা ভিন্ন অভিজ্ঞতা। এখন মনে হচ্ছে আমি নাগরিক।’

এসএ গেমসের আরেক স্বর্ণজয়ী ক্রীড়াবিদ মাবিয়া আক্তার সীমান্ত ঢাকা-৯ আসনের বাসিন্দা। নির্বাচনের কার্যক্রম কাছ থেকে দেখলেও ভোট দিতে পারেননি, ‘ আমি এখনও ভোটার হইনি। সামনেবার ভোট দেব। সেই অপেক্ষায় আছি। ভোট দেয়ার মজাই আলাদা।’

জাতীয় শাটলার শাপলা আক্তার পাবনা-৫ আসনে ভোট দিয়েছেন। নিজ জেলা পাবনার ভোটার ছিলেন কৃতী সাঁতারু মাহফিজুর রহমান সাগর। ঢাকায় জরুরি কাজ থাকায় ভোট দিতে যেতে পারেননি এই সাঁতারু। তরুণদের মতো সাবেক ক্রীড়াবিদরাও ভোট নিয়ে উচ্ছ্বাসিত। সাবেক তারকা ফুটবলার হাসানুজ্জামান খান বাবলু রাজশাহীর সন্তান। ব্রাদার্স ইউনিয়নে খেলে ও বিবাহসূত্রে গোপীবাগে বসবাস সাবেক এই কৃতী ফুটবলারের। গোপীবাগে ভোট দিয়েছেন হাসানুজ্জামান খান বাবলু।

ঘটনাপ্রবাহ : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×