এসএ গেমস অনিশ্চিত

  ওমর ফারুক রুবেল ০৩ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

এসএ,

ফের জটিলতায় পড়েছে সাউথ এশিয়ান (এসএ) গেমস। গেল বছর দক্ষিণ এশিয়ার অলিম্পিকখ্যাত এই গেমস আয়োজনের কথা ছিল নেপালে। তাদের দীর্ঘসূত্রিতার কারণে এসএ গেমস নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। তিনবার পিছিয়ে এ বছরের সেপ্টেম্বরে গেমস আয়োজনের জন্য সময় নিয়েছে নেপাল।

যদি মনে হয় যে, এ বছর পারবে না নেপাল, তাহলে বাংলাদেশ গেমসের আয়োজন করবে বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন (বিওএ)। এ প্রসঙ্গে বিওএ’র মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) ফখরুদ্দীন হায়দার বলেন, ‘আমরা এখনও এসএ গেমস আয়োজনের সুসংবাদের অপেক্ষায় রয়েছি। যদি শেষ পর্যন্ত নেপালের পক্ষে তা সম্ভব না হয়, তাহলে বাংলাদেশ গেমস আয়োজনের কথা ভাবছি আমরা।’

২০১৬ সালে ভারতের গৌহাটি ও শিলংয়ে অনুষ্ঠিত হয় ১২তম এসএ গেমস। এরপর গেমস আয়োজনের দায়িত্ব নেয় নেপাল। কিন্তু ২০১৫ সালে ভয়াবহ ভূমিকম্পের ধকল এখনও কাটিয়ে উঠতে পারেনি দেশটি। খেলাধুলার অধিকাংশ স্থাপনাই ধ্বংস হয়ে গেছে। সংস্করণের জন্য প্রচুর অর্থ ব্যয় হচ্ছে। সময়ও লাগছে অনেক বেশি। তাই গেল বছর গেমস আয়োজনের কথা থাকলেও তা সম্ভব হয়নি কাঠমান্ডুর পক্ষে।

দ্বিতীয় দফায় এ বছরের মার্চে হওয়ার কথা ছিল গেমস। এখন সেপ্টেম্বরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে গেমস। এ নিয়েও শঙ্কা রয়েছে। ‘নেপালি সেনসার’এ জানানো হয়েছে, এ বছরের সেপ্টেম্বরে এসএ গেমস হতে পারে বলে জানিয়েছেন ক্রীড়ামন্ত্রী জগৎ সুনওয়ার। নেপালের জাতীয় স্পোর্টস কাউন্সিলের সদস্য কেশব কুমার বিস্তার বলেন, ‘হয়তো সময় লাগছে। কিন্তু এসএ গেমসের স্বাগতিক হওয়া থেকে কেউ আমাদের সরিয়ে দিতে পারবে না। আমরা সেভাবেই কাজ করছি।’

নেপাল অলিম্পিক কমিটির সভাপতি শ্রেষ্ঠা আত্মবিশ্বাসী এ বছরেই এসএ গেমস আয়োজনের ব্যাপারে। জানা গেছে, উদ্বোধনী ও সমাপনী অনুষ্ঠানের জন্য নির্ধারিত কাঠমান্ডুর দশরথ স্টেডিয়ামের সংস্কার কাজ শেষ হয়নি। অর্ধেকেরও বেশি কাজ বাকি পোখারা স্টেডিয়ামের। সংস্কার কাজের জন্য ক্রীড়া পরিষদের চাওয়া ২.১৩ বিলিয়ন নেপালি রুপির মধ্যে অর্থমন্ত্রণালয় মঞ্জুর করেছে মাত্র ১.১৩ বিলিয়ন। তাই ধীরগতিতে চলছে কাজ।

এমন দীর্ঘসূত্রিতা ভাবিয়ে তুলেছে বিওএ’কে। ফখরুদ্দীন হায়দার বলেন, ‘আমরা চিঠি এবং মেইল বার্তার মাধ্যমে তাদের কাছ থেকে কাজের অগ্রগতি সম্পর্কে জানতে চেয়েছি। কিন্তু উত্তরই দিচ্ছে না তারা। তাহলে কিভাবে বুঝব যে সেপ্টেম্বরে গেমস আয়োজন করতে পারবে নেপাল।’

তিনি যোগ করেন, ‘আমরা অপেক্ষা করছি তাদের উত্তরের। যদি এসএ গেমস আয়োজনে শতভাগ নিশ্চয়তা না পাই, তাহলে বাংলাদেশ গেমস আয়োজনের চিন্তা-ভাবনা করছি আমরা। এ বছর এসএ গেমস না হলে দেশের ক্রীড়াবিদরা বাংলাদেশ গেমসের নবম সংস্করণে অংশ নেবেন। যদিও তা চূড়ান্ত রূপ নেয়নি।’

২০১৩ সালের এপ্রিলে ঢাকায় বসেছিল বাংলাদেশ গেমসের অষ্টম আসর। যেখানে ২১টি ভেন্যুতে ৩১টি ডিসিপ্লিনের ১০ হাজার ক্রীড়াবিদ ও সংগঠক অংশ নিয়েছিলেন।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×