পিএসজি-ম্যানইউ দ্বৈরথে উল্টোচিত্র

প্রকাশ : ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  স্পোর্টস ডেস্ক

গত ডিসেম্বরে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলোর ড্রতে পিএসজির সামনে পড়ায় ম্যানইউর বিদায় নিশ্চিত ধরে নিয়েছিল সবাই। হোসে মরিনহোর অধীনে ম্যানইউ তখন ধুঁকছিল। বিপরীতে নেইমার, এমবাপ্পে, কাভানি ত্রয়ীর ঝলকে উড়ছিল পিএসজি।

কিন্তু দুই মাস পর ম্যানইউর ডেরা ওল্ড ট্রাফোর্ডে শেষ ষোলোর প্রথম লেগে আজ যখন দেখা হতে যাচ্ছে দু’দলের, ছবিটা ঠিক উল্টো। নতুন কোচ উলে গুনার সুলশারের অধীনে অপ্রতিরোধ্য হয়ে ওঠা ম্যানইউর মুখোমুখি হওয়ার আগে অজানা আতঙ্কে কাঁপছে চোটজর্জর পিএসজি! নতুন বাস্তবতায় সুলশারের প্রথম ইউরো পরীক্ষায় ম্যানইউই আজ ফেভারিট। চোটের ছোবলে নেইমার ও এডিনসন কাভানিকে হারিয়ে আচমকা ব্যাকফুটে চলে গেছে পিএসজি।

পায়ের পাতার চোটে নেইমারকে মাঠের বাইরে থাকতে হবে প্রায় আড়াই মাস। ব্রাজিলীয় ফরোয়ার্ডকে ছাড়া ইউরো স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখতে বিকল্প রণকৌশল সাজিয়ে রেখেছিলেন পিএসজি কোচ টমাস টুখেল। কিন্তু শনিবার বোর্দোর বিপক্ষে ফরাসি লিগের ম্যাচে কাভানিও চোটে পড়ায় সব এলোমেলো হয়ে গেছে। নিতম্বে পাওয়া চোট প্রথম লেগে দর্শক বানিয়ে দিয়েছে উরুগুয়ান ফরোয়ার্ডকে। ৬ মার্চ ফিরতি ম্যাচেও কাভানির খেলা অনিশ্চিত।

মাঝমাঠের বড় ভরসা মার্কো ভেরাত্তিও শতভাগ ফিট নন। খর্ব শক্তির এই দল নিয়ে ম্যানইউর মাঠে ম্যানইউকে হারাতে অবিশ্বাস্য কিছু করে দেখাতে হবে পিএসজিকে। সেজন্য টুখেলের তুরুপের তাস এখন বিশ্বকাপজয়ী ফরাসি সেনসেশন কিলিয়ান এমবাপ্পে। নিজের দিনে গতির ঝড়ে এমবাপ্পে একাই ব্যবধান গড়ে দিতে পারেন। এ মৌসুমে তিনিই দলের টপ স্কোরার।

নেইমার ও কাভানির শূন্যতা পূরণে বড় ভূমিকা রাখতে হবে অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়াকেও। ম্যানইউ থেকেই ২০১৫ সালে পিএসজিতে যোগ দিয়েছিলেন এই আর্জেন্টাইন প্লেমেকার। ম্যানইউর জার্সিতে নিজেকে মেলে ধরতে না পারায় আজ সাবেক দলের বিপক্ষে কিছু প্রমাণ করার আছে ডি মারিয়ার। সেটা না পারলে গত দুই মৌসুমের মতো এবারও হয়তো শেষ ষোলোতেই থেমে যাবে পিএসজির ইউরো অভিযান।

নকআউট পর্বের ১৬টি দলের মধ্যে ফর্মের বিচারে এখন ম্যানইউই সবচেয়ে এগিয়ে। সুলশারের অধীনে ১১ ম্যাচের ১০টিতেই জিতেছে রেডডেভিলরা। অন্যটি ড্র করেছে। মূল দুই ফরোয়ার্ড রোমেলু লুকাকু ও অ্যালেক্সিস সানচেজ ছন্দে না থাকার পরও ম্যানইউর এমন বিধ্বংসী ফর্মের পেছনে রয়েছে সুলশারের আক্রমণাত্মক দর্শন ও পল পগবার স্বরূপে ফেরা। শেষ ১০ ম্যাচে নিজে আট গোল করার পাশাপাশি

পাঁচটি বানিয়ে দিয়েছেন পগবা। ফরাসি মিডফিল্ডারের মতো মার্কাস রাশফোর্ড ও অ্যান্থনি মার্শালও ফর্মের তুঙ্গে আছেন। দু’মাসেই প্রিমিয়ার লিগ ও এফএ কাপে যে জাদু দেখিয়েছেন, চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সেটি টেনে নিতে পারলে সুলশারের চাকরি নিশ্চিতভাবেই পাকা হয়ে যাবে। এদিকে শেষ ষোলোর আরেক ম্যাচে পোর্তোকে আজ আতিথ্য দেবে রোমা।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে আজ

ম্যানইউ ও পিএসজি

রোমা ও পোর্তো

(স্বাগতিক দল আগে। দুটি

ম্যাচই শুরু হবে বাংলাদেশ

সময় রাত ২টায়)