ত্রুটিপূর্ণ বোলিং পরীক্ষার মুখোমুখি তিন বোলার

প্রকাশ : ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  স্পোর্টস রিপোর্টার

বিপিএলে রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে অভিষেকে হ্যাটট্রিক করেন ঢাকা ডায়নামাইটসের অফ-স্পিনার আলিস আল ইসলাম। ওইদিনই আলিসের বোলিং নিয়ে অভিযোগ তুলেছিল প্রতিপক্ষ রংপুর। ইনজুরির দরুন বিপিএলে খুব বেশি ম্যাচ খেলতে পারেননি আলিস। ইনজুরি থেকে সেরে উঠলেও এখনই খেলতে পারবেন না। তার বোলিং অ্যাকশন নিয়ে অভিযোগ রয়েছে।

আলিসের মতো দুই ডানহাতি অফ-স্পিনার রংপুরের নাহিদুল ইসলাম ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের সঞ্জিত সাহার বোলিং অ্যাকশনও প্রশ্নবিদ্ধ। তাদের রিপোর্ট করতে বলা হয়েছে। বোলিং অ্যাকশনের পরীক্ষা দিতে হবে তাদের। তিনজনের বোলিংয়ের সময় কনুই নির্ধারিত ১৫ ডিগ্রির বেশি বেঁকে যায় বলে ধারণা করেছিলেন বিপিএলের আম্পায়াররা।

অ্যাকশন রিভিউ কমিটির কাছে পরীক্ষা দিয়ে বোলিং অ্যাকশনে উত্তীর্ণ হতে হবে তাদের। তার আগে এই তিন বোলার ঘরোয়া ক্রিকেটে কোনো ম্যাচে বোলিং করতে পারবেন না। আলিস রংপুরের বিপক্ষে ঢাকা ডায়নামাইটসের ম্যাচে হ্যাটট্রিক করেছিলেন। বিপিএলে সেটাই ছিল তার অভিষেক ম্যাচ। শেষ বলের লড়াইয়ে দুই রানের রুদ্ধশ্বাস জয় তুলে নেয় ঢাকা।

বোলিং অ্যাকশন রিভিউ কমিটির প্রধান জালাল ইউনুস বলেন, ‘তাদের রিপোর্ট করতে বলা হয়েছে। আলিস ইনজুরিতে রয়েছে। তিনজন আপতত কোনো ম্যাচ খেলতে পারবে না। আলিসের উন্নতি হয়েছে। সঞ্জিতের বিরুদ্ধে এ নিয়ে তিনবার অভিযোগ উঠল। বোলিং অ্যাকশন কমিটির কম্পিউটার অ্যানালাইসিস্ট নাসির আহমেদ নাসু জানিয়েছেন, এক সপ্তাহের মধ্যেই তিনজনকে পরীক্ষা দিতে বলা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে বোলিং নিয়ে অভিযোগ উঠেছে। পরীক্ষা দিয়ে উত্তীর্ণ হয়েই খেলায় ফিরতে হবে তাদের।’

আলিস বিপিএলে চার ম্যাচে নেন ছয় উইকেট। সঞ্জিত তিন ম্যাচে দুই উইকেট। কুমিল্লার হয়ে কোয়ালিয়ার ও ফাইনালে তিনি মাত্র ১৪ ও ১০ রান দেন। নাহিদুল ইসলাম এবার বিপিএলে রংপুরের হয়ে প্রায় সব ম্যাচেই খেলেছেন।