মোহামেডানে আশরাফুল মাশরাফি আবাহনীতে

  স্পোর্টস রিপোর্টার ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বাংলাদেশের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ ঘরোয়া ক্রিকেট টুর্নামেন্ট ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগ শুরু হবে ৮ মার্চ। তার আগে টি ২০ টুর্নামেন্ট ২৫ ফেব্রুয়ারি শুরু হচ্ছে। এ মৌসুমেও ভালো দল গড়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন আবাহনী। আগেই তারা মাশরাফি মুর্তজা, নাজমুল হোসেন শান্ত ও মোসাদ্দেক হোসেনকে রেখে দিয়েছিল। সোমবার ঢাকার একটি পাঁচতারা হোটেলে অনুষ্ঠিত প্লেয়ার্স ড্রাফট থেকে আবাহনী জাতীয় দলে থাকা রুবেল হোসেন, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোহাম্মদ মিঠুন ও মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনকে দলে ভিড়িয়েছে। মোহামেডানও তুলনামূলক ভালো দল গড়েছে। মোহাম্মদ আশরাফুল, লিটন দাস, শফিউল ইসলাম, আবদুল মজিদদের নিয়ে লড়বে তারা। সৌম্য সরকার ও মোস্তাফিজুর রহমানকে নিয়েছে শাইনপুকুর। শেখ জামালে খেলবেন মাহমুদউল্লাহ। তবে স্থানীয় ক্রিকেটারদের কিনতে শেখ জামালই সবচেয়ে বেশি দুই কোটি ২১ লাখ টাকা খরচ করেছে। এরপরই রয়েছে মোহামেডান (দুই কোটি ১২ লাখ) ও প্রাইম ব্যাংক (দুই কোটি ১৮ লাখ)। আবাহনীর খরচ হয়েছে দুই কোটি ৯ লাখ টাকা। সবচেয়ে কম মাত্র ৩৮ লাখ ৫০ হাজার টাকা খরচ করেছে বিকেএসপি।

ঢাকা লিগ এবার বেশ কয়েকটি পরিবর্তন নিয়ে শুরু করতে যাচ্ছে ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিস (সিসিডিএম)। নতুন নিয়মে একই বছর প্রথম বিভাগ ও প্রিমিয়ার লিগে খেলতে পারবেন একই খেলোয়াড়। প্রিমিয়ার লিগে খেলার পর আবারও প্রথম বিভাগে খেলার সুযোগ পাবেন ক্রিকেটাররা। এর আগে একই বছর একজন খেলোয়াড়ের দুটি লিগ খেলার নিয়ম ছিল না। প্রিমিয়ার লিগ একবার খেললে প্রথম বিভাগেও আর খেলতে পারতেন না ওই ক্রিকেটার। খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিক পরিশোধ নিয়ে ক্লাবগুলো ঝামেলা করলে তাদের ডিমেরিট পয়েন্ট দেয়া হবে। এছাড়া ওই ক্লাবটিকে বহিষ্কারও করতে পারে সিসিডিএম।

চাম্পিয়ন হওয়ার জন্য গত মৌসুমে প্লেয়ার্স ড্রাফটের পর আবাহনী শাইনপুকুর থেকে মাশরাফি মুর্তজা ও এনামুলকে নিয়েছিল। এবারও আবাহনী অভ্যন্তরীণ বদলির নিয়ম অনুসারে শাইনপুকুরে থাকা সৌম্য সরকারকে নিজেদের দলে ভেড়াবে। তবে মোস্তাফিজকে তারা নেবে কি না তা নিশ্চিত নয়। ক্লাবগুলো একে অপরের মধ্যে খেলোয়াড় বদল করতে পারবে লিগ শুরু হওয়ার আগেরদিন পর্যন্ত। গুঞ্জন ছিল জাতীয় দলে থাকা অধিকাংশ ক্রিকেটারই ঢাকা লিগে খেলবেন না। শেষ পর্যন্ত তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম ও সাকিব আল হাসান ছাড়া প্রায় সবাই কয়েকটি ম্যাচ খেলবেন। কয়টা ম্যাচ খেলতে পারবেন জাতীয় দলের কোচ স্টিভ রোডস সেই নির্দেশনা দিয়েছেন। সাকিব ইনজুরি কাটিয়ে ফিরলে ঢাকা লিগে খেলবেন কি না তা এখনও নিশ্চিত নয়।

প্লেয়ার্স ড্রাফটের পর সিসিডিএমের চেয়ারম্যান কাজী ইনাম আহমেদ বলেন, ‘আমরা আগেই একটি টি ২০ টুর্নামেন্ট করতে চেয়েছিলাম। এবার ঢাকা লিগ শুরু হওয়ার আগেই এই টুর্নামেন্ট করতে চাই। তিনটি করে দলে চারটি গ্রুপে ভাগ হয়ে খেলা হবে। ২৫-২৭ ফেব্রুয়ারি গ্রুপপর্ব, ১ মার্চ সেমিফাইনাল ও ৩ মার্চ ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে। সেমিফাইনাল ও ফাইনাল মিরপুরে। ফাইনাল ম্যাচটি টেলিভিশনে প্রচার করা হবে। এই ফরম্যাটে কোনো বিদেশি খেলতে পারবে না।’

সবশেষ কয়েক বছরে ঢাকা লিগে সবচেয়ে বড় আলোচনা পক্ষপাতিত্বমূলক আম্পায়ারিং এবং পাতানো খেলা নিয়ে। যাদের নিয়ে অভিযোগ ওঠে তাদেরই আম্পায়ারিংয়ের জন্য বেশি সুযোগ দেয়া হয়। ইনাম বলেন, ‘এসব বিষয়ের ওপর আমরা গুরুত্ব দিচ্ছি এবার। গত আসরে ঢাকা লিগে আম্পায়ারিং নিয়ে তেমন কোনো অভিযোগ আসেনি। বিসিবি সভাপতি এ ব্যাপারে জিরো টলারেন্স থাকার কথা জানিয়েছেন। যদি কোনো ক্লাব আম্পায়ারদের ব্যাপারে অভিযোগ তোলে, তাহলে অবশ্যই আমরা সেটা খতিয়ে দেখে বিচার করব। এগুলো দেখার জন্য গত আসর থেকেই আমাদের মাঠগুলোতে ক্যামেরা রাখা হয়েছে।’ প্রতি বছর আম্পায়ারদের বিপক্ষে কঠোর হওয়ার কথা জানায় সিসিডিএম। এবারও সেভাবেই বলে লিগ শুরু করতে যাচ্চে। কিন্তু সবার মধ্যেই সেই ম্যাচ পাতানো ও পক্ষপাতিত্বমূলক আম্পায়ারিংয়ের ভয় রয়ে গেছে।

আরও পড়ুন
--
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×