বিভীষিকাময় একদিন

  ক্রিকইনফো ১৬ মার্চ ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে শুক্রবার জুমার নামাজের সময় ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলায় অন্তত ৪৯ জন নিহত হয়েছেন। ভাগ্য সহায় না হলে সেই লাশের মিছিলে

থাকতে পারতেন তামিম, মুশফিকরাও।

জুমার নামাজ আদায়ে মসজিদে পৌঁছতে একটু দেরি হওয়ায় অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচেছেন বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। বিভীষিকাময় একদিনের ঘটনাপ্রবাহ সময় ধরে তুলে ধরেছেন নিউজিল্যান্ড সফরে থাকা ইএসপিএন ক্রিকইনফোর বাংলাদেশি প্রতিবেদক মোহাম্মদ ইসাম।

বেলা ১টা : অনুশীলনের জন্য হ্যাগলি ওভালে পা রাখে বাংলাদেশ দল। বৃষ্টির কারণে অনুশীলনের আগে মাঠের পাশের মসজিদে জুমার নামাজ আদায়ের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ইনডোর অনুশীলনের জন্য লিংকন ইউনিভার্সিটিতে যাওয়ার পরিকল্পনা থাকলেও দূরত্বের কারণে তা বাতিল করা হয়।

বেলা ১টা ২৭ মিনিট : বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ সংবাদ সম্মেলন শেষ করলেন হ্যাগলি ওভালে। দলের বাকি খেলোয়াড়রা মসজিদে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকায় দ্রুত সংবাদ সম্মেলন শেষ করার তাড়া ছিল মাহমুদউল্লাহর। তারপরও অতিরিক্ত নয় মিনিট কথা বলতে হয় তাকে।

বেলা ১টা ৩৫ মিনিট : মসজিদে যেতে বাসে উঠলেন ক্রিকেটাররা। ম্যানেজার খালেদ মাসুদসহ মোট ১৭ জন ছিলেন বাসে।

বেলা ১টা ৫২ মিনিট : হ্যাগলি ওভাল থেকে যখন বের হচ্ছি, হঠাৎ তামিম ইকবালের কাছ থেকে ফোন আসে। আমার কাছে সাহায্য চান তামিম, ‘এখানে প্রচণ্ড গোলাগুলি হচ্ছে। দয়া করে আমাদের বাঁচান।’ প্রথমে ভেবেছিলাম তিনি মজা করছেন। কিন্তু আবারও তামিম ফোন করেন। এবার তার কথায় আতঙ্কের ছাপ ছিল। তিনি পুলিশকে জানাতে বলেন যে, মসজিদের ভেতরে গোলাগুলি হচ্ছে। ওই মসজিদেই তারা ঢুকতে যাচ্ছিলেন।

বেলা ১টা ৫৩ মিনিট : প্রথমেই মনে হল কিছু না ভেবে মসজিদের দিকে ছুটে যাওয়া উচিত। কারণ সবার আগে আমি একজন মানুষ। আমি যখন মূল রাস্তার দিকে ছুটছি, একজন মহিলা গাড়ি থেকে বেরিয়ে সাহায্যের প্রস্তাব দেন। তামিমের কাছ থেকে যা জেনেছি, সব তাকে বললাম আমি। তিনি আমাকে গাড়িতে উঠতে বলেন।

বেলা ২টা : রক্তাক্ত শরীরে কাঁদতে কাঁদতে আমার কাছে দৌড়ে আসে একজন মানুষ। আশপাশের সবাই তখন আহতদের সাহায্য করতে ব্যস্ত। আমি টিম বাসের কাছে চলে আসি। দেখলাম ক্রিকেটাররা বাস থেকে দ্রুত বেরিয়ে আসছে। রাস্তা পেরিয়ে তাদের কাছে যেতেই ইবাদত হোসেন আমাকে হাত দিয়ে জড়িয়ে ধরে তাদের সঙ্গে দৌড়াতে বলে। তখনও আমি জানি না আসলে কী ঘটেছে।

বেলা ২টা ২ মিনিট : খেলোয়াড়রা হ্যাগলি পার্কের পাশে। একজন পথ চিনিয়ে দিল। ১৫ মিনিট হাঁটলেই মাঠ। ক্রিকেটাররা পার্কে ঢুকেই দৌড়াতে শুরু করে। তখন একজন তাদের না দৌড়ে জোরে হাঁটার পরামর্শ দেন।

বেলা ২টা ৮ মিনিট : হ্যাগলি ওভালে

পৌঁছেই সবাই ড্রেসিংরুমে ঢুকে যায়। তখনও সবাই কাঁপছিল।

বেলা ২টা ৪৫ মিনিট : কড়া নিরাপত্তায় খেলোয়াড়দের টিম হোটেলে নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বিকেল ৫টা : বিসিবি ও আইসিসির সঙ্গে আলোচনার পর টেস্ট বাতিলের ঘোষণা দেয় নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড।

সন্ধ্যা ৬টা ৩০ মিনিট : স্টেডিয়াম ছাড়ার অনুমতি পান সাংবাদিকরা। আমরা টিম হোটেলের পথ ধরি।

সন্ধ্যা ৭টা ২৫ মিনিট : টিম হোটেলে ম্যানেজার খালেদ মাসুদের সংবাদ সম্মেলন।

আরও পড়ুন
--
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×