চারদিনের টেস্ট দেখছেন শাস্ত্রী

  যুগান্তর ডেস্ক    ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ভবিষ্যতে চারদিনের টেস্ট হবে। এমনটি মনে করেন রবি শাস্ত্রী। ভারতীয় দলের প্রধান কোচের বিশ্লেষণ, টেস্টকে টি ২০-র সঙ্গে লড়াই করতে হচ্ছে। এজন্য চিন্তাভাবনার প্রয়োজন। দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট সম্প্রচারকারী চ্যানেল সুপারস্পোর্টে সাবেক প্রোটিয়া অধিনায়ক এবং শীর্ষ কর্তা আলি বাখেরকে দেয়া একটি বিশেষ সাক্ষাৎকারে শাস্ত্রী টেস্ট ও টি ২০-র লড়াই নিয়ে বলেছেন, শক্তিশালী দলগুলোর মধ্যে আরও বেশি করে খেলা করা উচিত। ‘আমি বলছি না যে, দুর্বল দলগুলোকে একদম বের করে দিতে হবে। নিশ্চয়ই ওরাও থাকবে। কিন্তু শক্তিশালী দলগুলোর মধ্যে বেশি খেলা উচিত। ভারতে বেশি করে আসুক অস্ট্রেলিয়া। ভারত বেশি করে যাক দক্ষিণ আফ্রিকায়। তাহলে টেস্ট ক্রিকেট বেঁচে থাকবে।’ তার সংযোজন, ‘অদূর ভবিষ্যতে আমি দেখতে পাচ্ছি, টেস্ট ম্যাচ চারদিনের হয়ে যেতে পারে।’

বাঁ-হাতি স্পিনার এবং ১০ নম্বর ব্যাটসম্যান হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট জীবন শুরু করেছিলেন শাস্ত্রী। ধাপে ধাপে তিনি ১০ নম্বর থেকে নয়, নয় থেকে আট, আট থেকে সাত- এভাবে ওপেনার হিসেবে সফল হয়েছেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজে গিয়ে ক্যারিবিয়ান পেস ব্যাটারিকে সামলে সেঞ্চুরি করেছেন বার্বাডোজে। বাখেরের প্রশ্নের উত্তরে শাস্ত্রী তার বার্বাডোজের সেঞ্চুরিকে সেরা আখ্যা দিচ্ছেন। ‘মার্শাল, বিশপ, অ্যামব্রোস, ওয়ালশ। এ রকম পেস ব্যাটারিকে সামলে সেঞ্চুরি করাটা সেরা প্রাপ্তি বলেই মনে করি,’ বলেছেন শাস্ত্রী। ক্রিকেট ইতিহাসে অনন্য এক কীর্তি রয়েছে শাস্ত্রীর, যা অনেকেই হয়তো ভুলে গেছেন। প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে ছয় ছক্কার রেকর্ড ছিল শাস্ত্রীরই। তার আগে একমাত্র গ্যারি সোবার্স এ রেকর্ড করেছিলেন। শাস্ত্রীর কৃতিত্ব হল, যুবরাজ সিং যখন টি ২০ বিশ্বকাপে ছয় ছক্কা মারছেন, তখন ধারাভাষ্যকার ছিলেন তিনি।

১৯৯২-৯৩ মৌসুমে দক্ষিণ আফ্রিকায় ঐতিহাসিক সফরে নেলসন ম্যান্ডেলার সঙ্গে সাক্ষাৎ সারা জীবন মনে রাখবেন শাস্ত্রী। সেসময় দক্ষিণ আফ্রিকার বোর্ড প্রধান ছিলেন বাখের। শাস্ত্রী বলেন, ‘আমাদের ক্যাপ্টেন ছিল আজহার। আমি সহ-অধিনায়ক। ম্যান্ডেলার সঙ্গে হাত মেলানোর পর আমার চোখের দিকে তাকালেন উনি। তারপর আমার নাম ধরে বললেন, রবি তোমার চোখ দু’টোর মধ্যে ভয় দেখানোর ভঙ্গি আছে। কিন্তু আমি তোমাকে বলতে পারি, দক্ষিণ আফ্রিকা বন্ধুত্বপূর্ণ একটা দেশ। এখানে থাকতে তোমার ভালো লাগবে।’ শাস্ত্রীর সংযোজন, ‘উনি ঠিকই বলেছিলেন। আমার পাসপোর্ট দেখলেই বোঝা যাবে, সবচেয়ে বেশি ভিসা দক্ষিণ আফ্রিকার রয়েছে। সবচেয়ে বেশি আমি এখানে এসেছি।’ দুনিয়ার সেরা অলরাউন্ডারদের সঙ্গে খেলেছেন তিনি। ইয়ান বোথাম, কপিল দেব, ইমরান খান, রিচার্ড হ্যাডলি। কাকে সেরা মনে করেন? বাখের জিজ্ঞেস করলেন, ‘অলরাউন্ড দক্ষতা দেখতে গেলে বোথাম। মাঝের তিন-চার বছরে যেমন ব্যাট করে জিতিয়েছে, তেমনই বল হাতে। আর কপিল ছিল সবচেয়ে প্রতিভাবান।’ তার দেখা সেরা বোলার? এক কথায় বলে দিলেন শাস্ত্রী-ম্যালকম মার্শাল। তার পরে যদি কারও নাম করতে হয়, ওয়াসিম আকরাম। ‘ওয়াসিমের মতো এমন পূর্ণাঙ্গ একজন পেস বোলার আমি আর কখনও দেখিনি। সে বলকে দিয়ে কথা বলাতে পারত।’ ওয়েবসাইট।

 
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

E-mail: [email protected], [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter