২০১৯ ইংল্যান্ড ওয়ানডে বিশ্বকাপ

বিশ্বকাপে সতেজ মোস্তাফিজকে চান ওয়ালশ

  স্পোর্টস রিপোর্টার ২৩ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ক্রিকেট বিশ্বকাপের মঞ্চে ওঠার আগে বাংলাদেশের পেস বোলিংয়ের তিন কাণ্ডারি পুরোপুরি ফিট নন। ছোটখাটো ইনজুরি বয়ে বেড়াচ্ছেন আরও কয়েকজন। মোস্তাফিজুর রহমানের গোড়ালিতে চোট, রুবেল হোসেন সাইডস্ট্রেইন থেকে ফিট হওয়ার পথে। মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন কনুইয়ের ইনজুরিতে রয়েছেন। শতভাগ ফিট নন মাশরাফি মুর্তজাও। দলের এই ইনজুরি দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে উঠেছে পেস বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশের জন্য। সোমবার বিশ্বকাপের জন্য বাংলাদেশ দলের অনুশীলন ক্যাম্প শুরু হয়েছে। মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রথমদিনের ক্যাম্প শেষে ওয়ালশ বলেন, ‘ইনজুরিই এখন বেশি ভয়ের কারণ। ফিজ (মোস্তাফিজ) এখনও ইনজুরিতে। সে বোলিং করার মতো অবস্থায় নেই। রুবেল সবে ইনজুরি থেকে সেরে উঠেছে। সাইফউদ্দিনেরও টেনিস এলবো সমস্যা রয়েছে। মাশরাফি ম্যাচ খেললেও এখনও শতভাগ ফিট নয়। ইনজুরিই এখন দুশ্চিন্তার বিষয়।’ পুরোপুরি ফিট নন মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদও।

বিশ্বকাপের আগে পুরোপুরি ফিট মোস্তাফিজকে পেতে চান ওয়ালশ। তাই আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজে তাকে সব ম্যাচ না খেলানোর পক্ষে পেস বোলিং কোচ। তিনি বলেন, ‘বিশ্বকাপে তাকে (মোস্তাফিজ) বড় দায়িত্ব পালন করতে হবে। তবে আমরা একজন বোলারের ওপর নির্ভরশীল নই। সাকিব, ম্যাশ (মাশরাফি) ও রুবেল ধারাবাহিক। ফিজ (মোস্তাফিজ) ইনজুরির কারণে ভালো অবস্থায় নেই। সে বারবার ইনজুরিতে পড়ছে। সম্পূর্ণ ফিট মোস্তাফিজ একাই ম্যাচ জেতাতে পারে। আমাদের ওকে ফিট অবস্থায় পেতে হবে।’ তিনি বলেন, ‘আমাদের হাতে কিছু সময় আছে। আমার একটাই চিন্তা, মোস্তাফিজের ব্যাপারে তাড়াহুড়ো করা উচিত হবে না। আয়ারল্যান্ডে ওকে বেশি ব্যবহার করা উচিত হবে না। আয়ারল্যান্ডে বেশি ব্যবহার করলে আবার বিশ্বকাপে সতেজ অবস্থায় পাওয়া যাবে না মোস্তাফিজকে।’

খেলোয়াড়ি জীবনে অনেকবার ইংল্যান্ডে খেলেছেন ওয়ালশ। সেখানকার কন্ডিশন ও উইকেট সম্পর্কে তার সম্যক ধারণা আছে। বোলারদের সাফল্য পেতে কী করতে হবে? ওয়ালশ বলেন, ‘ইংল্যান্ডের উইকেটগুলো ফ্লাট হয়। বড় স্কোর হবে। বলে ভ্যারিয়েশন প্রয়োজন। ব্যাটসম্যান বুঝে বোলিং করতে হবে।’ তিনি বলেন, ‘উইকেটের চরিত্র ঠিকঠাক মতন পড়তে হবে। কিছু কিছু ম্যাচে বল সুইং করবে। তবে বেশিরভাগ উইকেট হবে ব্যাটিং সহায়ক। বৈচিত্র্য নিয়ে কাজ করতে হবে আমাদের। ইয়র্কার, স্লোয়ার, বাউন্স সময়মতো প্রয়োগ করতে হবে। প্রতি দলই একজন আরেকজনকে খুব ভালোমতো বিশ্লেষণ করে মাঠে নামে। সবাই আমাদের শক্তি ও দুর্বলতা জানে। আমরাও জানি তাদের শক্তি ও দুর্বলতা। তাই চাতুর্যের সঙ্গে পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে হবে।’ বিশ্বকাপে প্রতিটি দলকে নয়টি ম্যাচ খেলতে হবে। বাংলাদেশ দলের সূচনা কেমন হয়, তার ওপর অনেক কিছু নির্ভর করছে। দীর্ঘসময় ধরে বিশ্বকাপ চলবে। তাই টুর্নামেন্টে শুভসূচনা করা গুরুত্বপূর্ণ।’ ওয়ালশ বলেন, ‘আমাদের শুরুর দিকে দুটি ম্যাচ জিততে হবে। প্রতিটি দল নিজেদের দিনে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে পারে।’

১৫ জনের চূড়ান্ত দলের প্রথমদিনে অনুশীলন ক্যাম্পে হাজির ছিলেন মাত্র পাঁচজন। সৌম্য সরকার প্রধান কোচের সঙ্গে আলোচনা করে অনুশীলন করলেও সেটা মূল দলের অংশ ছিল না। প্রথমদিনের অনুশীলন নিয়ে ওয়ালশ বলেন, ‘ক্যাম্প সবেমাত্র শুরু হয়েছে। পুরো দল অনুশীলন শুরু করার পর অবস্থা বোঝা যাবে। কিছু ক্রিকেটার অনেকদিন ক্রিকেটের বাইরে ছিল। এখন তাদের ক্রিকেটের সঙ্গে যুক্ত করাই গুরুত্বপূর্ণ।’ ইনজুরির কথা বিবেচনা করে খেলোয়াড়দের ঘুরিয়ে ফিরিয়ে খেলানোর পক্ষে ওয়ালশ। সহ-অধিনায়ক সাকিব এখনই অনুশীলন ক্যাম্পে যোগ দেবেন না। তার সম্পর্কে ওয়ালশ বলেন, ‘আইপিএলে ম্যাচ খেলতে পারলে তার জন্য ভালো প্রস্তুতি হবে। কিন্তু সে বেশি ম্যাচ খেলার সুযোগ পায়নি। আশা করছি সে কয়েকটা ম্যাচ খেলতে পারবে। তার জন্য এখন ম্যাচ খেলা খুবই প্রয়োজন। সেখানে থেকে সে খেলতে পারলে আমাদের কোনো সমস্যা নেই।’

১ মে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলার জন্য আয়ারল্যান্ড যাবে বাংলাদেশ দল। সেখান থেকে বিশ্বকাপ মিশনে ইংল্যান্ডে যাবে টাইগাররা।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×