বিপিএলে টিকে থাকতে চায় পুলিশ ক্লাব

  স্পোর্টস রিপোর্টার ১৯ মে ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

‘আমরাই একমাত্র দল, যারা প্রিমিয়ার লিগে উঠেছি নিজস্ব স্বকীয়তায়। কেউ বলতে পারবে না একটি পয়েন্ট কাউকে ছেড়েছি। কিংবা কারও কাছ থেকে সমঝোতার মাধ্যমে পয়েন্ট নিয়েছি’, বললেন পুলিশ ফুটবল ক্লাবের সহকারী ম্যানেজার কাজী নুসরাত এদীব লুনা। পুলিশের অতিরিক্ত সুপার যোগ করেন, ‘গত পাঁচ বছরে বারবার চেষ্টা করেছি। কখনও তৃতীয় আবার কখনও চতুর্থ হয়েছি। আকাঙ্ক্ষার সঙ্গে শক্তিও ছিল আমাদের। পরিশ্রমেরও কোনো কমতি ছিল না। তাই এই ফল পেয়েছি।’

২০০২ সালে সর্বশেষ প্রিমিয়ার লিগে খেলেছিল পুলিশ। এরপর অবনমন হয়। তবে ২০১৩ সালে সিনিয়র বিভাগ থেকে চ্যাম্পিয়ন হয়ে পেশাদার লিগের দ্বিতীয় স্তর চ্যাম্পিয়নশিপ লিগে জায়গা করে নেয় পুলিশ। ২০১৫ সাল থেকে চ্যাম্পিয়নশিপ লিগে খেলা শুরু করলেও দেশের ঘরোয়া ফুটবলের সর্বোচ্চ আসর প্রিমিয়ার লিগে যোগ্যতা অর্জন করতে পারছিল না তারা। অবশেষে অপেক্ষার অবসান হল। পেশাদার ফুটবল লিগে পা রেখেছে বাংলাদেশ পুলিশ। চ্যাম্পিয়নশিপ লিগে এখন পর্যন্ত ১৮ ম্যাচে ৩৩ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে থেকেই প্রিমিয়ারে খেলা নিশ্চিত করেছে দলটি। ২৭ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে উত্তর বারিধারা ক্লাব। তবে এক ম্যাচ বেশি খেলে সমান ২৭ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ফরাশগঞ্জ স্পোর্টিং ক্লাব। যাদের পেশাদার লিগ থেকে চ্যাম্পিয়নশিপে অবনমন হয়েছে। পেশাদার লিগে ওঠার সম্ভাবনা উঁকি দিচ্ছে অগ্রণী ব্যাংকেরও। ১৮ ম্যাচ খেলে ২৬ পয়েন্টে থাকা এ দলটির আরও দু’ম্যাচ বাকি। প্রিমিয়ারে খেলতে হলে দু’ম্যাচেই জিততে হবে দলকে। সে সঙ্গে পরের অন্তত একটি ম্যাচে হারতে হবে উত্তর বারিধারাকে। তাই রানার্সআপ হয়ে প্রিমিয়ারে যাওয়ার লড়াইয়ে উত্তর বারিধারার সঙ্গে রয়েছে অগ্রণী ব্যাংকও। শুধু রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা নয়, খেলাধুলায়ও পুলিশের অবদান অনেক। সত্তরের দশকে পুলিশ প্রথম বিভাগ ফুটবলে খেলেছে। গত ক’বছর বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নশিপ লিগ খেললেও প্রিমিয়ারে ওঠতে ব্যর্থ হয়। এবার সফল তারা। কাজী নুসরাত এদীব লুনা বলেন, ‘বিপিএলে খেলতে পারছে পুলিশ। এখন দলের সব কিছুই নতুন করে ঢেলে সাজাতে হবে। লিগের নিয়ম-কানুন পুরনে চেষ্টা থাকবে। ভালো মানের দেশি ও বিদেশি ফুটবলারদের নিয়ে একটি ভারসাম্যপূর্ণ দল গঠনের চেষ্টা করবো। পেশাদার লিগে আমরা হয়তো চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইট দিতে পারব না; কিন্তু টিকে থাকার চেষ্টা থাকবে।’ কোচ মো. সেলিম বলেন, ‘একসময় নিজে পুলিশে খেলেছি। খেলোয়াড় থেকে আজ কোচ। এবার সর্বোচ্চ লিগে দলকে তুলতে পেরেছি। এরচেয়ে বড় আনন্দের আর কি হতে পারে। এটা আমার স্পোর্টস ক্যারিয়ারের বড় অর্জন।’

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×