মুখচেনাদের বাছাই করেছে বাফুফে

  স্পোর্টস রিপোর্টার ১৯ মে ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনাল কভার করার জন্য মুখচেনা এক সাংবাদিকের নাম চূড়ান্ত করেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। ১ জুন স্পেনের মাদ্রিদে অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচটি। ফিফার স্পন্সর গ্রজপম। ফিফার আওতাধীন টুর্নামেন্টের সময় সদস্য দেশগুলোতে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করে গ্রজপম। কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশকেও এই প্রোগ্রামের আওতায় আনা হয়েছে। ফিফা বিশ্বকাপ, কনফেডারেশন কাপে বাফুফে প্রতিনিধি দল গিয়েছিল। ক্ষুদে ফুটবলারদের পাশাপাশি বাফুফের দু’একজন কর্মকর্তা ও ক্রীড়া সাংবাদিকও পাঠানো হয়। আর এই সাংবাদিক বাছাই প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করে বাফুফে নিজেরাই। এবারও বাফুফে শীর্ষ ক্রীড়া সাংবাদিকদের বাদ দিয়ে পছন্দনীয় সাংবাদিককে পাঠাচ্ছে বলে জানা গেছে। বাফুফের এই কর্মকাণ্ডে গণমাধ্যম কর্মীদের মধ্যে সৃষ্টি হয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার। শুধু এই প্রোগ্রামেই নয়, মিডিয়া অ্যাক্রিডিটেশন কার্ড বরাদ্দ নিয়েও চলে বড় অনিয়ম। এর আগে বিশ্বকাপ ফুটবলের মিডিয়া অ্যাক্রিডিটেশন কার্ড নিয়ে কম লুকোচুরি হয়নি। ২০১০ দক্ষিণ আফ্রিকা, ২০১৪ ব্রাজিল বিশ্বকাপ ও ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপে নিজেদের পছন্দনীয় মিডিয়াকে কার্ড বরাদ্দ দিয়েছিলেন বাফুফের শীর্ষ কর্মকর্তারা। কার্ড বরাদ্দে কখনই নির্বাহী কমিটির মতামত নেয়া হয়নি। অনিয়মতান্ত্রিক ও স্বৈরাচারী কায়দায় কার্ড বরাদ্দ দেয়া হয় মুখ চেনাদের। বাফুফের দুর্নীতির চিত্র তুলে ধরায় যুগান্তরকে গত তিনটি বিশ্বকাপ ফুটবলের অ্যাক্রিডিটেশন কার্ড দেয়নি। নিজেদের স্বার্থ হাসিলের জন্য সংবাদকর্মীদের সামনে প্রত্যেকবারই কার্ডের মুলো ঝুলায় বাফুফে। সে সঙ্গে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন ও মহিলা ফুটবল উইংয়ের চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার কিরনের কৃপা পেতে অনেক মিডিয়া কর্মীদের মধ্যে চলে অশুভ তৎপরতা। একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেল প্রায়ই অবাস্তব সব ইস্যু তৈরি করে বাজারে নিউজ বাজারে ছাড়ে। রিপোর্ট করে- বার্সেলোনা বাংলাদেশে আসছে। ব্যাস, এতেই সারা দেশ তোলপাড়। শেষে খবর পাওয়া গেল, আসলে ওটা ছিল একটি মিডিয়া হাইপ তৈরি করা নিউজ।

জাতীয় রাজনীতির মতো ফুটবলেও একের পর এক ইস্যু তৈরি হয়, আবার হাওয়ায় মিলিয়ে যায়। নিত্যনতুন ইস্যু তৈরি করে মিডিয়া কভারেজ নেন বাফুফে কর্মকর্তারা। কিন্তু ইস্যু ইস্যুই থেকে যায়। সেটা আর আলোর মুখ দেখে না। বাফুফের এক কর্মকর্তা বলেন, ‘দশ বছরে ফুটবলের চাকা দশ ইঞ্চি না এগোলেও মিডিয়াতে ফুটবল ব্যাপক কভারেজ পেয়েছে। ভাবখানা এমন যে, মাঠে নয়, মিডিয়াতে বেঁচে থাকলেই চলবে ফুটবল।’

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×