অনুদান পেয়ে আবেগাপ্লুত রেফারি নাজির

বঙ্গবন্ধু ক্রীড়াসেবী কল্যাণ ফাউন্ডেশনের ভাতা পেলেন দুস্থ ক্রীড়াবিদরা

প্রকাশ : ২৭ মে ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  স্পোর্টস রিপোর্টার

একসময় মাঠে বাঁশি হাতে কর্তৃত্ব করেছেন। এখন অন্যের সাহায্য ছাড়া চলতে পারেন না। ফুটবল রেফারি নাজির হোসেনের বয়স ৭৫ বছর। স্ত্রীর কাঁধে ভর করে রোববার যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ে এসেছিলেন বঙ্গবন্ধু ক্রীড়াসেবী ফাউন্ডেশনের অনুদানের চেক নিতে। ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেলের কাছ থেকে অনুদানের চেক পেয়ে আবেগাপ্লুত নাজির। কাঁপা কাঁপা কণ্ঠে বলেন, ‘একসময় সংসারে সচ্ছলতা ছিল। এখন আমি নিজেই অন্যের মুখাপেক্ষী। একা চলতে পারি না। অসচ্ছলতা আমার জীবনে। আজ যে অনুদান পেলাম তা সামান্য মনে হলেও আমার জন্য অসামান্য।’

দাবাড়ু মাধবচন্দ্র রায় বলেন, ‘আমাদের সময়ে এ ধরনের অনুদান কল্পনাও করা যেত না। তারপরও এখন কিছুটা হলেও পাওয়া যাচ্ছে। আমি আশা করব, অনুদানের পরিমাণ বাড়ানো হবে।’ ২৮ জন দুস্থ ক্রীড়াবিদ এই ভাতা পান। রোববার সকালে বঙ্গবন্ধু ক্রীড়াসেবী কল্যাণ ফাউন্ডেশন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে চেক বিতরণ করে।

২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে বঙ্গবন্ধু ক্রীড়াসেবী কল্যাণ ফাউন্ডেশনের এককালীন অনুদান প্রদানের লক্ষ্যে অনলাইনে আবেদন আহ্বান করা হয়। মোট ১৭৬২ জন আবেদন করেন। বিভিন্ন জেলা কমিটি যাচাই-বাছাই করে ১০৫৯ জনের আবেদন সুপারিশসহ ফাউন্ডেশনে পাঠায়। আবেদন সচিব, বঙ্গবন্ধু ক্রীড়াসেবী কল্যাণ ফাউন্ডেশনের নেতৃত্বে গঠিত বাছাই কমিটি যাচাই-বাছাই করে ১০৫০ জন ক্রীড়াসেবী বা তাদের পরিবারকে অনুদান দেয়ার জন্য মনোনীত করে।

যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল বলেন, ‘যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সব সময় ক্রীড়াবিদদের পাশে ছিল, আছে এবং থাকবে। তারাই দেশের ক্রীড়াঙ্গনের গর্ব এবং অহংকার। তাদের পাশে আমরা সব সময় রয়েছি।’ ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে ১০৫০ জন ক্রীড়াসেবীকে ১৫ হাজার করে এক কোটি সাতান্ন লাখ পঞ্চাশ হাজার টাকা দেয়া হচ্ছে। বঙ্গবন্ধু ক্রীড়াসেবী কল্যাণ ফাউন্ডেশন ২০১০-২০১১ অর্থবছর থেকে ২০১৭-২০১৮ অর্থবছর পর্যন্ত মোট ৪,১৮৬ জন অসচ্ছল আহত ও অসমর্থ ক্রীড়াসেবীর মধ্য পাঁচ কোটি বিরাশি লাখ দশ হাজার টাকা অনুদান দিয়েছে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বঙ্গবন্ধু ক্রীড়াসেবী কল্যাণ ফাউন্ডেশনের সচিব মো. আনোয়ার হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. জাফর উদ্দীন। এছাড়াও মন্ত্রণালয় ও সংযুক্ত দফতরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, ক্রীড়া সংগঠক এবং খেলোয়াড়রা উপস্থিত ছিলেন।