চোখ থাকবে যাদের ওপর

প্রকাশ : ০২ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক   

বাংলাদেশ

সাকিব আল হাসান

বিশ্বের সেরা অলরাউন্ডার। মাঝে কিছুদিন শীর্ষস্থান হারালেও বিশ্বকাপের আগে সিংহাসনে ফিরেছেন। এর আগে তিনটি বিশ্বকাপ খেললেও সেভাবে নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি। এবার ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে তার সেরাটা দেখার অপেক্ষায় বাংলাদেশ। ১৯৮ ম্যাচে সাতটি সেঞ্চুরি ও ৪২টি হাফ সেঞ্চুরিসহ রান করেছেন ৫৭১৭। ৮১.৫৫ স্ট্রাইক রেটে গড় ৩৫.৭৩। বোলিংয়ে ৪.৪৪ ইকোনমি রেটে নিয়েছেন ২৪৯ উইকেট।

মোস্তাফিজুর রহমান

২০১৫ সালে বাংলাদেশ সফরে মোস্তাফিজুর রহমানের দুর্দান্ত বোলিংয়েই সিরিজ হেরেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। তার বোলিংয়ের ধার কিছুটা কমলেও ছন্দে থাকা মোস্তাফিজ এখনও প্রতিপক্ষের জন্য হুমকি। প্রস্তুতি ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে ছন্দ ফিরে পাওয়ার আভাস দিয়েছেন কাটার মাস্টার। ভারতের বিপক্ষে ১৪০ কিলোমিটারের বেশি গতিতে বোলিং করেছেন। কাটার ও স্লোয়ারের সঙ্গে সুইংয়ের মিশেলে দারুণ বৈচিত্র্য দেখিয়েছেন। মাত্র ৪৬ ওয়ানডে খেলা মোস্তাফিজ নিয়েছেন ৮৩ উইকেট। তিনবার পেয়েছেন পাঁচ উইকেট।

দক্ষিণ আফ্রিকা

কুইন্টন ডি কক

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ডি কক ছাড়া দক্ষিণ আফ্রিকার আর কেউ ভালো করতে পারেননি। ওই ম্যাচে তিনি ৬৮ রানে আউট হলে প্রোটিয়াদের পতন শুরু হয়। এই উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যানই দক্ষিণ আফ্রিকার টপঅর্ডারে বড় ভরসা। আইপিএল থেকে ভালো ফর্মে রয়েছেন তিনি। ১০৭ ওয়ানডে খেলা ডি ককের স্ট্রাইক রেট ৯৫.৭৫। ৪৫.৭৮ গড়ে চার সেঞ্চুরি ও ১৭ হাফ সেঞ্চুরিতে ৪৬৭০ রান করেছেন ২৬ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান।

ইমরান তাহির

এবার বিশ্বকাপে প্রথম ওভারেই উইকেট নিয়ে বাজিমাত করেন। লেগ-স্পিনারদের বিপক্ষে বাংলাদেশের দুর্বলতা রয়েছে। তাহিরের দুর্দান্ত ফর্ম আরও বেশি ভয়ের কারণ বাংলাদেশের জন্য। নিজের শেষ বিশ্বকাপে তাহির বড় ভূমিকা রাখবেন বলে ধারণা করা হয়েছে। ৯৯ ম্যাচে পেয়েছেন ১৬৪ উইকেট। পেস বোলিংয়ের পাশাপাশি ৪০ বছর বয়সী তাহিরই প্রোটিয়াদের বড় শক্তির জায়গা।