বর আজহারের ছেলে কনে সানিয়ার বোন
jugantor
বর আজহারের ছেলে কনে সানিয়ার বোন

  স্পোর্টস ডেস্ক  

০৯ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দু’জনই হায়দরাবাদি। একজন সাবেক ক্রিকেটার। অপরজন টেনিস তারকা। ভারতের হয়ে ৯৯ টেস্ট খেলা মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন ও সানিয়া মির্জা এবার আত্মীয় হতে চলেছেন। সাবেক ভারত অধিনায়ক আজহারের ছেলে মোহাম্মদ আসাদউদ্দিনের সঙ্গে বিয়ে হতে যাচ্ছে সানিয়া মির্জার ছোট বোন আনাম মির্জার। খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন স্বয়ং সানিয়া। বিয়ে হবে এ বছর ডিসেম্বরে। আনাম ও আসাদকে নিয়ে এতদিন যে গুঞ্জন ছড়িয়েছিল, শেষতক তার সত্যতা মিলল। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে দু’জন তাদের ছবি পোস্ট করেছেন। এরপরই খোলাসা হয় তাদের সম্পর্ক।

পাকিস্তানি ক্রিকেটার শোয়েব মালিকের স্ত্রী সানিয়াও ইনস্টাগ্রামে আসাদের সঙ্গে নিজের ছবি পোস্ট করে ক্যাপশনে লিখেছেন- ‘পরিবার’। আসাদও ইনস্টাগ্রামে সানিয়া ও আনামের সঙ্গে নিজের ছবি পোস্ট করেছেন। ক্যাপশনে লিখেছেন- ‘দুই সুন্দরী নারীর মাঝে’।

আজহার পুত্র আসাদ নির্মাণশিল্পের সঙ্গে জড়িত। তার হবু স্ত্রী আনাম মির্জা পেশায় ফ্যাশন ডিজাইনার। আসাদ আজহারের প্রথম স্ত্রী নওরিনের ঘরের সন্তান। আজহারের আরেক ছেলে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হন।

বর আজহারের ছেলে কনে সানিয়ার বোন

 স্পোর্টস ডেস্ক 
০৯ অক্টোবর ২০১৯, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দু’জনই হায়দরাবাদি। একজন সাবেক ক্রিকেটার। অপরজন টেনিস তারকা। ভারতের হয়ে ৯৯ টেস্ট খেলা মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন ও সানিয়া মির্জা এবার আত্মীয় হতে চলেছেন। সাবেক ভারত অধিনায়ক আজহারের ছেলে মোহাম্মদ আসাদউদ্দিনের সঙ্গে বিয়ে হতে যাচ্ছে সানিয়া মির্জার ছোট বোন আনাম মির্জার। খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন স্বয়ং সানিয়া। বিয়ে হবে এ বছর ডিসেম্বরে। আনাম ও আসাদকে নিয়ে এতদিন যে গুঞ্জন ছড়িয়েছিল, শেষতক তার সত্যতা মিলল। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে দু’জন তাদের ছবি পোস্ট করেছেন। এরপরই খোলাসা হয় তাদের সম্পর্ক।

পাকিস্তানি ক্রিকেটার শোয়েব মালিকের স্ত্রী সানিয়াও ইনস্টাগ্রামে আসাদের সঙ্গে নিজের ছবি পোস্ট করে ক্যাপশনে লিখেছেন- ‘পরিবার’। আসাদও ইনস্টাগ্রামে সানিয়া ও আনামের সঙ্গে নিজের ছবি পোস্ট করেছেন। ক্যাপশনে লিখেছেন- ‘দুই সুন্দরী নারীর মাঝে’।

আজহার পুত্র আসাদ নির্মাণশিল্পের সঙ্গে জড়িত। তার হবু স্ত্রী আনাম মির্জা পেশায় ফ্যাশন ডিজাইনার। আসাদ আজহারের প্রথম স্ত্রী নওরিনের ঘরের সন্তান। আজহারের আরেক ছেলে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হন।