কাউকে না জানিয়ে ফিরে গেলেন জাপানি সাঁতার কোচ

  স্পোর্টস রিপোর্টার ২২ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

হঠাৎ দেশে ফিরে গেছেন সাঁতারের জাপানি কোচ তাকিও ইনোকি। সাঁতার ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক এমবি সাইফের এখন রাজ্যের চিন্তা। বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম সংলগ্ন আইভি রহমান সুইমিং কমপ্লেক্সে গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, ‘আসলে কোচ আমাদের সাগরের মাঝে ফেলে চলে গেছেন। সামনে এসএ গেমস। তাকে নিয়ে আমরা পরিকল্পনা করছিলাম। খেলোয়াড়রাও তার ওপর নির্ভরশীল ছিল। এরই মাঝে তিনি চলে যাওয়ায় আমরা কিংকতর্ব্যবিমূঢ়।’

এসএ গেমসের অনুশীলন চলছে মিরপুর সুইমিং কমপ্লেক্সে। জাতীয় দলের পাশাপাশি ট্যালেন্ট হান্টে প্রোগ্রামের ক্যাম্পে মোবাইল নিষিদ্ধ ছিল। মোবাইল নিষিদ্ধ থাকার পরও মোবাইল ব্যবহার করায় দু’জন সাঁতারুকে জুনিয়র পর্যায়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত কোচরা শাস্তি হিসেবে বেশি প্রশিক্ষণ করান। এতে এক পর্যায়ে সাঁতারু শরীফা আকতার মিম মাথা ঘুরে পড়ে যান। অবশ্য পরে সুস্থ হয়েছেন তিনি। পুরো ঘটনা জাপানি কোচ পর্যবেক্ষণ করেন। তিনি সাঁতারুদের শাস্তি দেয়া ও অব্যবস্থাপনায় অসন্তুষ্ট হয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে স্ট্যাটাস দেন। কোচের স্ট্যাটাস দেখে ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মিরপুর সুইমিং কমপ্লেক্সে যান। তিনি কোচের কক্ষের সামনে দুই ঘণ্টা অবস্থান করলেও কোচ তার সঙ্গে কথা বলেননি। ফেডারেশনকে কিছু না জানিয়েই চলে গেছেন কোচ। এ নিয়ে সাধারণ সম্পাদক বিব্রত, ‘তিনি আমাদের জানালে আমরা ব্যবস্থা নিতাম। ইতিমধ্যে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি করেছি। তদন্ত রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত কিছু বলা যাচ্ছে না।’ লে. কমান্ডার মাহদী তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক। অন্য দুই সদস্য সেলিম মিয়া ও নিবেদিতা দাস। পাঁচদিনের মধ্যে রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে। ১ ডিসেম্বর এসএ গেমস শুরু হওয়ার কথা। সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আমরা তার সঙ্গে আবার যোগাযোগ করব। তাকে ফিরিয়ে আনা যায় কি না।

নতুন কোচ এসে খেলোয়াড়দের অবস্থা বুঝতেই সময় লাগবে।’ ফেডারেশনকে না জানিয়ে যাওয়ায় কোচ নিজেই শৃঙ্খলা ভঙ্গ করেছেন। তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে কি না এ প্রসঙ্গে সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘সভাপতি মহোদয়কে জানিয়েছি বিষয়টি। কমিটির সবাই মিলে সিদ্ধান্ত নেব। বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনকেও (বিওএ) জানানো হয়েছে।’ এই কোচের অধীনে এ মাসের শেষে কুমিংয়ে অনুশীলনের জন্য যাওয়ার কথা ছিল সাঁতারুদের। কোচ চলে যাওয়ায় কুমিং সফরও ঝুলে গেছে। ফেডারেশনের পরিকল্পনা এখন নেপালে পাঠিয়ে মাসখানেক প্রস্তুতি নেয়ার।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×