‘একা’ জায়েদ
jugantor
‘একা’ জায়েদ

  স্পোর্টস রিপোর্টার  

১৬ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ইন্দোর টেস্টের প্রথম দু’দিনে বাংলাদেশের জন্য কোনো ভালো খবরই নেই। প্রথমে বোলিংয়ে দাপট দেখানোর পর এখন ব্যাটিংয়েও রান পাহাড়ে উঠছে ভারত। স্বাগতিকদের শক্তিশালী ব্যাটিং লাইনআপের বিপক্ষে যা একটু মুগ্ধতা ছড়িয়েছেন শুধু ডান-হাতি পেসার আবু জায়েদ রাহি। কাল তিনি একাই লড়ে গেলেন বিরাট কোহলি-রাহানেদের বিপক্ষে। সঙ্গী পেলেন না। তাই আবু জায়েদ টপ অর্ডারের চার উইকেট নেয়ার পরও ভারতকে অল্প রানে আটকে রাখতে পারেনি বাংলাদেশ। দ্বিতীয়দিন শেষে ছয় উইকেটে তারা তুলেছে ৪৯৩ রান। শেষদিকে ইবাদত হোসেন ও মেহেদী হাসান মিরাজ একটি করে উইকেট নিলেও ততক্ষণে স্বাগতিকরা বড় লিড নিয়ে ফেলেছে।

আগেরদিন ওপেনার রোহিত শর্মাকে আউট করেন আবু জায়েদ। কাল তারকায় ঠাসা ভারতীয় ব্যাটিং লাইনআপকে ধাক্কা দিয়েছিলেন প্রথম সেশনেই। পূজারাকে আউট করার পর অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে এলবিডব্ল–র ফাঁদে ফেলেন। ভারত অধিনায়ক ফেরেন শূন্য রানে। ফিফটি করার পর আজিংকা রাহানেকেও আউট করেন আবু জায়েদ। একার কাঁধে সব দায়িত্ব তুলে নিয়ে চেষ্টার কমতি করেননি। কিন্তু আগরওয়ালের ব্যাটিংয়ে ঢাকা পড়ে গেছে জায়েদের দারুণ বোলিং। সহযোদ্ধারা তাকে আরেকটু ভালো সঙ্গ দিতে পারলে দিনটা অন্যরকম হতে পারত বাংলাদেশের জন্য।

ঘাসের উইকেটেও বাংলাদেশ কেন দুই পেসার নিয়ে মাঠে নামল তা নিয়ে সমালোচনা প্রথমদিন থেকেই। আবার আল-আমিন বা মোস্তাফিজুর রহমানকে না নিয়ে কেন ইবাদতকে একাদশে রাখা হল তা নিয়েও আছে সমালোচনা। তবে ভারত ঠিকই তিন পেসার নিয়ে খেলছে। তাতে সুফলও পেয়েছে। দিনের শুরুতে পিচ রিপোর্টে, সুনীল গাভাস্কার বলেছিলেন, ‘আজ (শুক্রবার) উইকেট হবে ব্যাটিং সহায়ক। ঘাস অনেকটাই বাদামি হয়ে গেছে।’ সেখানেও দিনের শুরুতে ভালো করেন আবু জায়েদ। সকালে কিছুটা ভালো বোলিং করেন পেসার ইবাদত। কিন্তু তার অধিকাংশ বলই হাফ ভলি হওয়ায় ব্যাটসম্যানদের খেলতে তেমন সমস্যা হয়নি।

‘একা’ জায়েদ

 স্পোর্টস রিপোর্টার 
১৬ নভেম্বর ২০১৯, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ইন্দোর টেস্টের প্রথম দু’দিনে বাংলাদেশের জন্য কোনো ভালো খবরই নেই। প্রথমে বোলিংয়ে দাপট দেখানোর পর এখন ব্যাটিংয়েও রান পাহাড়ে উঠছে ভারত। স্বাগতিকদের শক্তিশালী ব্যাটিং লাইনআপের বিপক্ষে যা একটু মুগ্ধতা ছড়িয়েছেন শুধু ডান-হাতি পেসার আবু জায়েদ রাহি। কাল তিনি একাই লড়ে গেলেন বিরাট কোহলি-রাহানেদের বিপক্ষে। সঙ্গী পেলেন না। তাই আবু জায়েদ টপ অর্ডারের চার উইকেট নেয়ার পরও ভারতকে অল্প রানে আটকে রাখতে পারেনি বাংলাদেশ। দ্বিতীয়দিন শেষে ছয় উইকেটে তারা তুলেছে ৪৯৩ রান। শেষদিকে ইবাদত হোসেন ও মেহেদী হাসান মিরাজ একটি করে উইকেট নিলেও ততক্ষণে স্বাগতিকরা বড় লিড নিয়ে ফেলেছে।

আগেরদিন ওপেনার রোহিত শর্মাকে আউট করেন আবু জায়েদ। কাল তারকায় ঠাসা ভারতীয় ব্যাটিং লাইনআপকে ধাক্কা দিয়েছিলেন প্রথম সেশনেই। পূজারাকে আউট করার পর অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে এলবিডব্ল–র ফাঁদে ফেলেন। ভারত অধিনায়ক ফেরেন শূন্য রানে। ফিফটি করার পর আজিংকা রাহানেকেও আউট করেন আবু জায়েদ। একার কাঁধে সব দায়িত্ব তুলে নিয়ে চেষ্টার কমতি করেননি। কিন্তু আগরওয়ালের ব্যাটিংয়ে ঢাকা পড়ে গেছে জায়েদের দারুণ বোলিং। সহযোদ্ধারা তাকে আরেকটু ভালো সঙ্গ দিতে পারলে দিনটা অন্যরকম হতে পারত বাংলাদেশের জন্য।

ঘাসের উইকেটেও বাংলাদেশ কেন দুই পেসার নিয়ে মাঠে নামল তা নিয়ে সমালোচনা প্রথমদিন থেকেই। আবার আল-আমিন বা মোস্তাফিজুর রহমানকে না নিয়ে কেন ইবাদতকে একাদশে রাখা হল তা নিয়েও আছে সমালোচনা। তবে ভারত ঠিকই তিন পেসার নিয়ে খেলছে। তাতে সুফলও পেয়েছে। দিনের শুরুতে পিচ রিপোর্টে, সুনীল গাভাস্কার বলেছিলেন, ‘আজ (শুক্রবার) উইকেট হবে ব্যাটিং সহায়ক। ঘাস অনেকটাই বাদামি হয়ে গেছে।’ সেখানেও দিনের শুরুতে ভালো করেন আবু জায়েদ। সকালে কিছুটা ভালো বোলিং করেন পেসার ইবাদত। কিন্তু তার অধিকাংশ বলই হাফ ভলি হওয়ায় ব্যাটসম্যানদের খেলতে তেমন সমস্যা হয়নি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন