ব্রোঞ্জের পর রুপা বাকির

  স্পোর্টস রিপোর্টার, নেপাল থেকে ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বাকি

কমনওয়েলথ গেমসে দু’বার রুপা জিতেছেন। কিন্তু এসএ গেমসে পারেননি ব্যক্তিগত ইভেন্টে একটিও সোনা জিততে। শনিবারও কাটল না সেই খরা। দুর্দান্ত সূচনা। স্বর্ণের খুব কাছে চলে যাওয়া। শেষ দিকে বাজে শুট করা। শুধু বাকিই নন, সাতদোবাদোর শুটিং রেঞ্জে স্বর্ণের আশা জাগিয়েও বাংলাদেশের চার শুটার জিতেছেন রুপা। শনিবার ১০ মিটার রাইফেল মিশ্র দলগত ইভেন্টে সোনার পদকের সম্ভাবনা ছিল।

কিন্তু ফাইনালের চাপটা নিতে পারেননি দেশসেরা শুটার আবদুল্লাহ হেল বাকি ও সৈয়দ আতকিয়া হাসান দিশা। ভারতের মেহুলি ঘোষ এবং ভারদানের সঙ্গে সমানতালে লড়াই করেও পেরে ওঠেননি বাংলাদেশের দুই প্রতিযোগী। ১৭-৯ পয়েন্টে হেরে যান বাকি-দিশা। এসএ গেমস শুটিং থেকে এবার এসেছে পাঁচটি রুপা। এর মধ্যে দুটিতে স্বর্ণের প্রত্যাশা ছিল।

নিজের প্রিয় ব্যক্তিগত ইভেন্টে ব্রোঞ্জ জিতে হতাশ করেছিলেন বাকি। তাই মিক্সড ইভেন্টের দিকে তাকিয়ে ছিলেন সবাই। কিন্তু এবারও পারলেন না বাকি। ভারতের প্রতিযোগীর সঙ্গে একসময় ৭-৭ পয়েন্টে সমতা এনেছিলেন বাকি-দিশা। এরপর দিশা যতটা ভালো করছিলেন, বাকি ঠিক ততটাই খারাপ করেছিলেন। শেষ দিকের চাপ নিতে পারেননি। ফাইনাল আরেকটি দুঃখ হয়ে রইল বাকির জন্য।

তার কথায়, ‘আমি আসলে নিজের প্রতি মনোযোগী ছিলাম। কীভাবে নিখুঁত শর্ট করা যায়, নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করা যায় সেই চেষ্টাই করেছিলাম। বাইরে কী হচ্ছিল না হচ্ছিল এসব দিকে খেয়াল ছিল না। আমি নিজের মতো করেই খেলার চেষ্টা করেছি। আসলে শেষ দিকে কিছুটা নাভার্সনেস চলে এসেছে। বলতে পারেন ফাইনালের টেম্পারমেন্টটা নিতে পারিনি। এর জন্য আমাকে কাজ করতে হবে।’

প্রতিবেশী দেশ ভারত শুটিংয়ের জন্য ১১৬ কোটি রুপির বাজেট করেছে। তাদের সব শুটারই বিভিন্ন দেশে অনুশীলন করেন এবং নিয়মিত বড় টুর্নামেন্টে খেলেন। এটাকে বড় পার্থক্য হিসেবে সামনে এনেছেন দিশা, ‘স্বর্ণ জিততে না পারায় কষ্ট পাইনি। আমরা তো ফাইট দেয়ার সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি। খুব কাছেই ছিলাম। আসলে জিততে পারিনি বলে হতাশ নই। যা হয়েছে তাতেই আলহামদুলিল্লাহ। আমাদের প্রতিবেশী দেশ ভারতের কথা বলব, তারা অনেক ক্যাম্প করছে এবং বাইরে অনেক ফাইনাল খেলেছে।’

ঘটনাপ্রবাহ : এসএ গেমস-২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×