মাহমুদউল্লাহর ফেরার লড়াই লাল বলের ক্রিকেটে
jugantor
মাহমুদউল্লাহর ফেরার লড়াই লাল বলের ক্রিকেটে

  স্পোর্টস রিপোর্টার  

১৩ মার্চ ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দেশের ক্রিকেটকে এগিয়ে নিতে মাশরাফি মুর্তজা, সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহর অবদান অনেক। পঞ্চপাণ্ডবের একসঙ্গে মাঠে নামা কমে আসতে শুরু করেছে। নিষেধাজ্ঞার কারণে কেন্দ্রীয় চুক্তিতে নেই সাকিব আল হাসান, চুক্তি থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন মাশরাফি, মাহমুদউল্লাহকে রাখা হয়েছে শুধু সাদা বলের ক্রিকেটে। তামিম ও মুশফিকই একমাত্র সব ফরম্যাটের চুক্তিতে রয়েছেন। বড় চ্যালেঞ্জ এখন মাহমুদউল্লাহর। তিনি চ্যালেঞ্জ নিতে ভালোবাসেন। কিন্তু টেস্ট আঙিনায় ফেরা তার জন্য কঠিন। অস্ট্রেলিয়ার কন্ডিশনে টি ২০ বিশ্বকাপে বাংলাদেশকে ভালো ফল এনে দেয়ার চ্যালেঞ্জ তো আছেই। মাহমুদউল্লাহ টেস্টে ফিরতে চান।

মাহমুদউল্লাহর লড়াই এখন ভিন্ন দুটি ফরম্যাটের জন্য। টেস্টে সমালোচনার মুখে পারফর্ম করেছেন। নিয়মিত অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের চোট ও অনুপস্থিতি মিলিয়ে ২০১৮ ও ২০১৯ সালে ছয়টি টেস্টে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ। জায়গাও হারিয়েছেন অনেকবার। ২০১৭ সালে শ্রীলংকায় বাংলাদেশের শততম টেস্টে তাকে বাদ দেয়ায় সমালোচনা হয়েছিল। এরপর আবার দলে ফিরে দারুণ ব্যাটিং করেছেন। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সেঞ্চুরির পর ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষেও শতক হাঁকিয়েছেন। কিন্তু সম্প্রতি তার টেস্ট ব্যাটিংয়ে খুশি নন কোচ রাসেল ডমিঙ্গো।

ঘরের মাঠে আফগানিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট থেকে সাদা পোশাকের ক্রিকেটে হতশ্রী ব্যাটিং করছেন। সবশেষ পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে বাজে শটে আউট হন। সেই শট দেখেই তাকে টেস্ট থেকে অবসর নিতে বলেছেন ডমিঙ্গো। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হোম টেস্ট সিরিজেও সুযোগ হয়নি তার। নির্বাচকরা বলেছেন, তাকে আপাতত টেস্ট ক্রিকেটের জন্য ভাবছেন না। সামনে বাংলাদেশের অনেক টেস্ট। পাকিস্তান সফরে আগামী মাসে একটি টেস্ট রয়েছে, জুনে অস্ট্রেলিয়া আসবে দুই টেস্ট খেলতে। জুলাই-আগস্টে শ্রীলংকায় তিন টেস্ট খেলবে বাংলাদেশ।

বর্তমান অবস্থায় মাহমুদউল্লাহর এই ছয় টেস্টে সুযোগ পাওয়ার সম্ভাবনা কম। তবে টেস্টে ফিরতে বদ্ধপরিকর টি ২০ অধিনায়ক। তিনি বলেন, ‘আমি চ্যালেঞ্জ নিতে পছন্দ করি। আমার কাজটা আমাকেই করতে হবে। আমি লড়াই করে নিজের জায়গাটা নেয়ার চেষ্টা করতে পারি। লড়াই করে যাব।’
এদিকে ৩৪ বছর বয়সী মাহমুদউল্লাহকে সঠিক টি ২০ অধিনায়ক মনে করে বিসিবি। টি ২০ বিশ্বকাপ নিয়ে তিনি বলেন, ‘সবদিক থেকে বিবেচনা করলে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজদিয়েই আমাদের টি ২০ বিশ্বকাপের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। সবাইকে বলেছি প্রতিপক্ষকে চাপে রেখে ক্রিকেট খেলতে। সব সিরিজ হয়তো সমান যাবে না। কিন্তু এই মানসিকতায় এগোতে পারলে বিশ্বকাপে আমরা ভালো একটি দল হিসেবে গড়ে উঠতে পারি।’

মাহমুদউল্লাহর ফেরার লড়াই লাল বলের ক্রিকেটে

 স্পোর্টস রিপোর্টার 
১৩ মার্চ ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দেশের ক্রিকেটকে এগিয়ে নিতে মাশরাফি মুর্তজা, সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহর অবদান অনেক। পঞ্চপাণ্ডবের একসঙ্গে মাঠে নামা কমে আসতে শুরু করেছে। নিষেধাজ্ঞার কারণে কেন্দ্রীয় চুক্তিতে নেই সাকিব আল হাসান, চুক্তি থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন মাশরাফি, মাহমুদউল্লাহকে রাখা হয়েছে শুধু সাদা বলের ক্রিকেটে। তামিম ও মুশফিকই একমাত্র সব ফরম্যাটের চুক্তিতে রয়েছেন। বড় চ্যালেঞ্জ এখন মাহমুদউল্লাহর। তিনি চ্যালেঞ্জ নিতে ভালোবাসেন। কিন্তু টেস্ট আঙিনায় ফেরা তার জন্য কঠিন। অস্ট্রেলিয়ার কন্ডিশনে টি ২০ বিশ্বকাপে বাংলাদেশকে ভালো ফল এনে দেয়ার চ্যালেঞ্জ তো আছেই। মাহমুদউল্লাহ টেস্টে ফিরতে চান।

মাহমুদউল্লাহর লড়াই এখন ভিন্ন দুটি ফরম্যাটের জন্য। টেস্টে সমালোচনার মুখে পারফর্ম করেছেন। নিয়মিত অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের চোট ও অনুপস্থিতি মিলিয়ে ২০১৮ ও ২০১৯ সালে ছয়টি টেস্টে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ। জায়গাও হারিয়েছেন অনেকবার। ২০১৭ সালে শ্রীলংকায় বাংলাদেশের শততম টেস্টে তাকে বাদ দেয়ায় সমালোচনা হয়েছিল। এরপর আবার দলে ফিরে দারুণ ব্যাটিং করেছেন। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সেঞ্চুরির পর ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষেও শতক হাঁকিয়েছেন। কিন্তু সম্প্রতি তার টেস্ট ব্যাটিংয়ে খুশি নন কোচ রাসেল ডমিঙ্গো।

ঘরের মাঠে আফগানিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট থেকে সাদা পোশাকের ক্রিকেটে হতশ্রী ব্যাটিং করছেন। সবশেষ পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে বাজে শটে আউট হন। সেই শট দেখেই তাকে টেস্ট থেকে অবসর নিতে বলেছেন ডমিঙ্গো। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হোম টেস্ট সিরিজেও সুযোগ হয়নি তার। নির্বাচকরা বলেছেন, তাকে আপাতত টেস্ট ক্রিকেটের জন্য ভাবছেন না। সামনে বাংলাদেশের অনেক টেস্ট। পাকিস্তান সফরে আগামী মাসে একটি টেস্ট রয়েছে, জুনে অস্ট্রেলিয়া আসবে দুই টেস্ট খেলতে। জুলাই-আগস্টে শ্রীলংকায় তিন টেস্ট খেলবে বাংলাদেশ। 

বর্তমান অবস্থায় মাহমুদউল্লাহর এই ছয় টেস্টে সুযোগ পাওয়ার সম্ভাবনা কম। তবে টেস্টে ফিরতে বদ্ধপরিকর টি ২০ অধিনায়ক। তিনি বলেন, ‘আমি চ্যালেঞ্জ নিতে পছন্দ করি। আমার কাজটা আমাকেই করতে হবে। আমি লড়াই করে নিজের জায়গাটা নেয়ার চেষ্টা করতে পারি। লড়াই করে যাব।’ 
এদিকে ৩৪ বছর বয়সী মাহমুদউল্লাহকে সঠিক টি ২০ অধিনায়ক মনে করে বিসিবি। টি ২০ বিশ্বকাপ নিয়ে তিনি বলেন, ‘সবদিক থেকে বিবেচনা করলে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ দিয়েই আমাদের টি ২০ বিশ্বকাপের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। সবাইকে বলেছি প্রতিপক্ষকে চাপে রেখে ক্রিকেট খেলতে। সব সিরিজ হয়তো সমান যাবে না। কিন্তু এই মানসিকতায় এগোতে পারলে বিশ্বকাপে আমরা ভালো একটি দল হিসেবে গড়ে উঠতে পারি।’