মুশফিক উপভোগ করেন চাপ

  স্পোর্টস রিপোর্টার ১৬ মার্চ ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

একসময় মুশফিকুর রহিম ছিলেন মোহামেডানের সমর্থক। তখন আবাহনী ও মোহামেডানের ম্যাচ মানেই স্টেডিয়ামে জনসমুদ্র। সময়ের পরিক্রমায় এ দু’দলের দ্বৈরথে সেই উত্তেজনা আর নেই। বদলে গেছে মুশফিকুর রহিমের সমর্থনও। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে এবারই প্রথম মুশফিক খেলছেন আবাহনীর হয়ে। প্রথম ম্যাচেই তুলে নিয়েছেন সেঞ্চুরি।

রোববার মিরপুর স্টেডিয়ামে পারটেক্সের বিপক্ষে ১২৭ রানের অনবদ্য ইনিংসে দলকে জেতানোর পর জানালেন, আবাহনীর সাফল্য দেখতে দেখতে তিনিও এখন এই দলটির সমর্থক। অধিনায়ক মুশফিক বলেন, ‘ছোটবেলা থেকেই আবাহনী-মোহামেডানের অনেক গল্প শুনেছি। তখন ম্যাচ হারলে দল স্টেডিয়াম থেকে বের হতে পারত না। আমার তা দেখার সৌভাগ্য হয়নি। এখন অনেক বেশি আন্তর্জাতিক ম্যাচ হওয়ায় ঘরোয়া ক্রিকেট দেখার সময় পায় না দর্শকরা। সত্যি বলতে তখন মোহামেডানের সমর্থক ছিলাম। যখন দেখলাম আবাহনী সব সময় সেরা দল তৈরি করে, ফুটবল বা ক্রিকেটে তারা শুধু চ্যাম্পিয়ন হয় তখন দুর্বলতা বাড়াই স্বাভাবিক। যে দল জয়ের মধ্যে থাকে সেই দলকেই হয়তো সমর্থন করতে চাইবেন।’

গত বছর ঢাকা লিগে খেলেননি তিনি। তার আগের বছর খেললেও সেঞ্চুরি পাননি। কাল পারটেক্স স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে আবাহনীর জার্সিতে নেমেই সেঞ্চুরি করলেন। দলের চরম বিপর্যয়ের মধ্যে নেমে আউট হওয়ার আগে ১২৪ বলে করেন ১২৭ রান। প্রথম ম্যচেই সেঞ্চুরি নিয়ে মুশফিক বলেন, ‘ভালো লাগছে। বাংলাদেশের শীর্ষ দল আবাহনী। প্রথম ম্যাচ ছিল, সবাই একটু নার্ভাস ছিল। চ্যাম্পিয়ন দলের ওপর সব সময়ই চাপ থাকে। দিনশেষে দল জিতেছে এটাই আনন্দের।’

আবাহনী ৬৭ রানের মধ্যেই পাঁচ উইকেট হারিয়েছিল। এমন কঠিন পরিস্থিতিতে বড় ইনিংস খেলা নিয়ে মুশফিক বলেন, ‘সব সময় এ ধরনের চাপ উপভোগ করি। এই জিনিসগুলো উপভোগ করলে খেলোয়াড় হিসেবে দুই ধাপ এগিয়ে যাওয়া যায়। সব পর্যায়ের খেলাতেই আমার লক্ষ্য থাকে ম্যাচে যেন সবচেয়ে বেশি অবদান রাখতে পারি।’ তিনি বলেন, ‘ভুলে গিয়েছিলাম প্রথম রান নিতে এত বল (২৪টি) খেলেছি। টেস্টেও আমার এমনটা হয় না। কিন্তু বিশ্বাস ছিল টিকে গেলে অবশ্যই ইনিংসটা বড় করতে পারব।’

এদিকে করোনাভাইরাস আতঙ্কের কারণে খেলোয়াড়দের বেশ কিছু নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। তারপরও কাল দেখা গেল ক্রিকেটারদের করমর্দন করতে। মুশফিক বলেন, ‘আসলে অভ্যাস তো, মাঝে মাঝে ভুলে যাই। এটা নিয়ে সবাই একটু শঙ্কিত। দর্শকদের বলব মাঠে এলেও যেন সতর্ক থাকেন তারা। দূরত্ব বজায় রেখে বসেন। সবাইকে সচেতন থাকার অনুরোধ করব।’

ঘটনাপ্রবাহ : ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ-২০২০

আরও
আরও খবর
 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত