‘একদিন আমরাও জিতব’

  স্পোর্টস ডেস্ক ১৯ মার্চ ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

শেষ দৃশ্যে স্বপ্নের সমাধি
শেষ দৃশ্যে স্বপ্নের সমাধি। দিনেশ কার্তিক যেন ছয় মারেননি। ছোঁ মেরে কেড়ে নিলেন বাংলাদেশের জয়। হতাশায় বসে পড়লেন বোলার সৌম্য এএফপি

শেষ বলে দিনেশ কার্তিক ছক্কা মারার পর বোলার সৌম্য সরকার হতাশায় বসে পড়লেন। কে দেবে সান্ত্বনা? অধিনায়ক সাকিব আল হাসান এসে তাকে টেনে তুললেন। নিজে এক ওভার হাতে না রেখে খণ্ডকালীন বোলার সৌম্যকে দিয়ে শেষ ওভার করানোয় হয়তো অনুশোচনায় পুড়বেন সাকিব।

শ্বাসরুদ্ধকর বললে কম বলা হবে। একেবারে শেষ বল পর্যন্ত গড়াল ফাইনাল। মোস্তাফিজুর রহমান ১৮তম ওভারে বাংলাদেশকে ফিরিয়েছিলেন ম্যাচে। পরের ওভারে ২২ রান দিয়ে রুবেল হতাশায় ডোবান। শেষ ছয় বলে দরকার ছিল ১২ রান। শেষ বলে পাঁচ। কার্তিক ছয় মেরে সাকিবদের স্বপ্ন ভেঙে দেন।

আগের ম্যাচে মাহমুদউল্লাহর ছয়ে বাংলাদেশ পেয়েছিল ফাইনালের টিকিট। রোববার কার্তিকের ছয়ে চ্যাম্পিয়ন ভারত। কার্তিকের কাছেই হেরেছে বাংলাদেশ। মাত্র আট বলে অপরাজিত ২৯ রান। দুটি চার ও তিনটি ছয়। এমন বীরত্বপূর্ণ ব্যাটিং সঙ্গত কারণেই তাকে ম্যাচসেরার পুরস্কার এনে দিয়েছে। টুর্নামেন্টসেরা ওয়াশিংটন সুন্দর।

আগেই বলা হয়েছে, ১৮তম ওভারে ম্যাচ বাংলাদেশের অনুকূলে নিয়ে এসেছিলেন মোস্তাফিজ। শেষ পর্যন্ত ফসল ঘরে তোলা যায়নি। বাঙ্গালোর ফিরে আসে কলম্বোয়। টি ২০ বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে তিন বলে তিন উইকেট হারিয়ে হারতে হয়েছিল এক রানে। কাল শেষ বলে ছয় হজম করে হারতে হল দুই উইকেটে।

সাকিব আল হাসান ম্যাচ শেষে বলতে ভুল করেননি যে, ‘এরকম একটি ফাইনালে এর চেয়ে বেশি আর আপনি কী চাইতে পারেন?’ তিনি যোগ করেন, ‘আমি মনে করি, আমরা দুর্দান্ত খেলেছি। আমরাও জিততে পারতাম। ভারত স্নায়ু ঠিক রেখে ম্যাচ জিতেছে।’

বাংলাদেশ অধিনায়ক বলেন, ‘১৮তম ও ১৯তম ওভারে নিজেদের সেরা বোলারদের দিয়ে বোলিং করানোই ছিল আমাদের পরিকল্পনা। রুবেল এক ওভারে ১৫ রান (আসলে ২২) দিলেও, আমরা তা কাটিয়ে উঠতে পারতাম। লেন্থ ঠিক রেখে ও বোলিং করেছে। কৃতিত্ব দিতে হবে দিনেশ কার্তিককে। প্রথম বলেই ছয় মেরে ও শুরু করে।’

সাকিব বলেন, ‘আমরা জানতাম ১৬৬ নিরাপদ স্কোর নয়। তবু এই সংগ্রহ নিয়ে লড়াই করতে মনস্থির করেছিলাম আমরা। প্রত্যেকেই নিজেদের সেরাটা দিয়েছে। আমি বলব, আমরা শতভাগ দিয়েছি।’ তার আক্ষেপ, ‘হারাটা কষ্ট দেয়। কিন্তু আমরা ভালো খেলেছি।’

মেহেদী হাসান মিরাজকে দিয়ে মাত্র এক ওভার করানো প্রসঙ্গে সাকিবের যুক্তি, ‘আগেই পরিকল্পনা করা হয়েছিল, কে কখন বোলিং করবে। আমাদের সব বোলার ভালো বোলিং করতে পারে। আমরা এই হার থেকেও ইতিবাচক কিছু নিতে পারি। একদিন আমরাও জিতব।’

স্কোর কার্ড

বাংলাদেশ

রান বল ৪ ৬

তামিম ক ঠাকুর ব চাহাল ১৫ ১৩ ১ ০

লিটন ক রায়না ব সুন্দর ১১ ৯ ০ ১

সাব্বির ব উনাদকাট ৭৭ ৫০ ৭ ৪

সৌম্য ক ধাওয়ান ব চাহাল ১ ২ ০ ০

মুশফিক ক শংকর ব চাহাল ৯ ১২ ০ ০

মাহমুদউল্লাহ রানআউট ২১ ১৬ ২ ০

সাকিব রানআউট ৭ ৭ ১ ০

মেহেদী হাসান নটআউট ১৯ ৭ ২ ১

রুবেল ব উনাদকাট ০ ১ ০ ০

মোস্তাফিজ নটআউট ০ ৩ ০ ০

অতিরিক্ত ৬

মোট (৮ উইকেটে, ২০ ওভারে) ১৬৬

উইকেট পতন : ১/২৭, ২/২৭, ৩/৩৩, ৪/৬৮, ৫/১০৪, ৬/১৩৩, ৭/১৪৭, ৮/১৪৮।

বোলিং : উনাদকাট ৪-০-৩৩-২, সুন্দর ৪-০-২০-১, চাহাল ৪-০-১৮-৩, ঠাকুর ৪-০-৪৫-০, শংকর ৪-০-৪৮-০।

ভারত

রান বল ৪ ৬

রোহিত ক মাহমুদউল্লাহ ব নাজমুল ৫৬ ৪২ ৪ ৩

ধাওয়ান ক বদলি ব সাকিব ১০ ৭ ০ ১

রায়না ক মুশফিক ব রুবেল ০ ৩ ০ ০

রাহুল ক সাব্বির ব রুবেল ২৪ ১৪ ২ ১

পান্ডে ক সাব্বির ব মোস্তাফিজ ২৮ ২৭ ৩ ০

শংকর ক মেহেদী হাসান ব সৌম্য ১৭ ১৯ ৩ ০

দিনেশ কার্তিক নটআউট ২৯ ৮ ২ ৩

সুন্দর নটআউট ০ ০ ০ ০

অতিরিক্ত ৪

মোট (৬ উইকেটে, ২০ ওভারে) ১৬৮

উইকেট পতন : ১/৩২, ২/৩২, ৩/৮৩, ৪/৯৮, ৫/১৩৩, ৬/১৬২।

বোলিং : সাকিব ৪-০-২৮-১, মেহেদী হাসান মিরাজ ১-০-১৭-০, রুবেল ৪-০-৩৫-২, নাজমুল ৪-০-৩২-১, মোস্তাফিজ ৪-১-২১-১, সৌম্য ৩-০-৩৩-১।

ফল : ভারত ৪ উইকেটে জয়ী।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ : দিনেশ কার্তিক (ভারত)।

ম্যান অব দ্য টুর্নামেন্ট : ওয়াশিংটন সুন্দর (ভারত)।

ঘটনাপ্রবাহ : ত্রিদেশীয় সিরিজ শ্রীলংকা ২০১৮

 

 

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.