করোনায় বধির ক্রিকেটারদের কষ্ট

  স্পোর্টস রিপোর্টার ১৬ মে ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

কথা বলতে পারেন না। শুনতেও পান না। হাতের ইশারায় ভাব প্রকাশ করেন। দু’হাত নেড়ে সাংকেতিক ভাষায় নিজেদের মধ্যে কথার আদান-প্রদান করেন তারা। মাথা ঝাঁকিয়ে একে অন্যের কথার সায় দেন। তাই বলে কোনো দিক দিয়ে পিছিয়ে নেই। বরং এগিয়ে মূক ও বধির ক্রীড়াবিদরা। দেশের গণ্ডি পেরিয়ে বিদেশের মাটিতেও চমক দেখান তারা। করোনাভাইরাস মহামারীর দিনগুলোয় কষ্টে আছেন অনেক বধির ক্রীড়াবিদ। বধির ক্রীড়া ফেডারেশনের সিনিয়র সহ-সভাপতি জাকির হোসেন খান বলেন, ‘আমরা তাদের খোঁজখবর নিচ্ছি। সবার বাসায় আমাদের যাওয়া হয়ে ওঠে না। তারা কথা বলতে না পারায় সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ভিডিওকলে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ হচ্ছে। সবাই নিজেদের অবস্থার কথা জানাচ্ছেন হাত নেড়ে।’

দেশের ৩০টি ক্লাব এবং ছয়টি বধির স্কুলের শিক্ষার্থীরা ফেডারেশনের ক্রীড়াবিদ। ক্রিকেট, দাবা, ব্যাডমিন্টন ও ক্যারম- এই চারটি ডিসিপ্লিনে খেলা হয়। দেশজুড়ে দেড় শতাধিক বধির ক্রীড়াবিদ খেলেন বধির ক্রীড়া ফেডারেশনের হয়ে। মওলানা ভাসানী হকি ফেডারেশনের দোতলায় দুটি রুমে স্বপ্নের বীজ বপন করেন বধির ক্রীড়াবিদরা। ২০০৫ সালে ভারতের লখনৌয়ে এশিয়া কাপ বধির ক্রিকেটের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদায় নেয় বাংলাদেশ। ২০১৭ সালে দিল্লি এশিয়া কাপে রানার্সআপ ট্রফি জেতেন লাল-সবুজের বধির ক্রিকেটাররা। ২০১৮ সালে ভিসা না পাওয়ায় দিল্লিতে বধির টি ২০ বিশ্বকাপ ক্রিকেটে খেলতে যেতে পারেননি। সে আক্ষেপে এখনও পোড়েন তারা। এখন তারা আরও বেশি কষ্টে রয়েছেন করোনাভাইরাস মহামারীর দরুন। যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের বিশেষ সহায়তার ঘোষণা আশা জাগিয়েছে। বধির ক্রিকেট দলের সদস্য নাফিস ইমতিয়াজ দ্বীপ ইশারায় বোঝাতে চাইলেন, ‘মন্ত্রণালয়ের ঘোষণায় অন্যদের মতো আমাদের বধির ক্রীড়াবিদদেরও সহায়ক হবে।’ মুম্বাইয়ে বধিরদের ওপর বিশেষ প্রশিক্ষণ নেয়া জাকির হোসেন খান বলেন, ‘ফেডারেশনে আমরা সবাই চাকরিজীবী। আমি সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের জেনারেল ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত। বধির ক্রীড়াবিদদের সঙ্গে কাজ করছি। নিয়মিত তাদের সময় দিই। ব্যক্তিগতভাবে আমরা হয়তো তাদেরকে আর্থিকভাবে সহযোগিতা করতে পারি না। তাই যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের ঘোষণায় তারা বেশ উৎসাহিত।’

তিনি যোগ করেন, ‘আমরা ২৪ জন বধির ক্রীড়াবিদের নাম ১৩ মে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদে পাঠিয়েছি। তাদের মধ্যে ক্রিকেটে ৭ জন, দাবায় ৩ জন, ক্যারামে ৭ জন ও ব্যাডমিন্টনে ৭ জনের নাম রয়েছে। যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীর মাধ্যমে সরকারের এই আর্থিক সহযোগিতা পেলে খুব খুশি হবে আমাদের বধির ক্রীড়াবিদরা। সেই আশায় রয়েছে তারা।’

আরও খবর
 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত