প্রিমিয়ার ফুটবল লিগ পরিত্যক্ত
jugantor
প্রিমিয়ার ফুটবল লিগ পরিত্যক্ত

  স্পোর্টস রিপোর্টার  

১৮ মে ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

অধিকাংশ ক্লাবই চেয়েছিল প্রিমিয়ার ফুটবল লিগের সমাপ্তি। শেষতক তাদের চাওয়াই পূর্ণ হল। রোববার আনুষ্ঠানিকভাবে এবারের মৌসুমের ইতি টানল বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। এদিন নির্বাহী কমিটির জরুরি সভা শেষে লিগ পরিত্যক্ত করার ঘোষণা দেয়া হয়। সভা শেষে পেশাদার লিগ কমিটির চেয়ারম্যান ও বাফুফের সিনিয়র সহ-সভাপতি সালাম মুর্শেদী বলেন, ‘করোনা পরিস্থিতি আরও খারাপের দিকে যাচ্ছে। তাছাড়া লিগের এক রাউন্ডও শেষ করতে পারিনি আমরা। তাই সব কিছু বিবেচনা করেই এবারের মৌসুম পরিত্যক্ত ঘোষণা করছি।’ কার্যনির্বাহী কমিটির জরুরি সভায় আরও সিদ্ধান্ত নেয়া হয় যে, এবার স্বাধীনতা কাপ হচ্ছে না। প্রিমিয়ার লিগ পরিত্যক্ত ঘোষণা করায় এবারের মৌসুমে কোনো অবনমন হবে না। এদিকে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা ঢাকা আবাহনীকে চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করেনি কার্যনির্বাহী কমিটি। মার্চের তৃতীয় সপ্তাহে লিগের ষষ্ঠ রাউন্ড শেষ হয়েছিল। এরপর লিগ স্থগিত হয়। মাত্র ছয় রাউন্ড শেষে লিগ পরিত্যক্ত করা প্রসঙ্গে সালাম মুর্শেদী বলেন, ‘কিছু ক্লাব ছয় ম্যাচ আর কিছু ক্লাব পাঁচ ম্যাচ করে খেলেছে। প্রতিটি ক্লাবের ম্যাচ হওয়ার কথা ছিল ২৪টি করে। চারভাগের একভাগও খেলেনি অনেক ক্লাব। ফলে লিগে চ্যাম্পিয়নশিপ নির্ধারণ বা অবনমন হবে না।’ তিনি বলেন, ‘পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হলে আমরা ক্লাব ও ফুটবলারদের বিষয়গুলো নিয়ে বসব। পরিস্থিতি দ্রুত ভালো হলে নতুন মৌসুম সেপ্টেম্বর কিংবা অক্টোবর থেকে শুরু হতে পারে। তার আগে আমরা নির্বাচনের আয়োজন করব। নতুন কমিটি এসে নতুন লিগ আয়োজন করবে।’ তিনি যোগ করেন, ‘এএফসির গাইডলাইন অনুযায়ী আমরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তাই বিষয়টি এএফসিই বুঝবে আগামী মৌসুমে আমাদের কোটা থাকবে কি না। তবে এখনও সময় আছে। সব কিছুই আলোচনা সাপেক্ষে হবে।’
লিগে অংশ নেয়া ১৩ ক্লাবের মধ্যে অধিকাংশই তাদের বিদেশি ফুটবলার ও কোচদের দেশে পাঠিয়ে দিয়েছে। তাহলে আগামী মৌসুমে ক্লাব ও ফুটবলারদের কি দায়বদ্ধতা থাকবে? সালাম মুর্শেদীর উত্তর, ‘আমরা ক্লাব ও খেলোয়াড় উভয়ের স্বার্থ দেখব।’
বাফুফের জরুরি সভায় ২১ জন নির্বাহী কমিটির মধ্যে নয়জন সভায় উপস্থিত ছিলেন। বাকিরা ভিডিও কনফারেন্সে যোগ দেন।

প্রিমিয়ার ফুটবল লিগ পরিত্যক্ত

 স্পোর্টস রিপোর্টার 
১৮ মে ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

অধিকাংশ ক্লাবই চেয়েছিল প্রিমিয়ার ফুটবল লিগের সমাপ্তি। শেষতক তাদের চাওয়াই পূর্ণ হল। রোববার আনুষ্ঠানিকভাবে এবারের মৌসুমের ইতি টানল বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। এদিন নির্বাহী কমিটির জরুরি সভা শেষে লিগ পরিত্যক্ত করার ঘোষণা দেয়া হয়। সভা শেষে পেশাদার লিগ কমিটির চেয়ারম্যান ও বাফুফের সিনিয়র সহ-সভাপতি সালাম মুর্শেদী বলেন, ‘করোনা পরিস্থিতি আরও খারাপের দিকে যাচ্ছে। তাছাড়া লিগের এক রাউন্ডও শেষ করতে পারিনি আমরা। তাই সব কিছু বিবেচনা করেই এবারের মৌসুম পরিত্যক্ত ঘোষণা করছি।’ কার্যনির্বাহী কমিটির জরুরি সভায় আরও সিদ্ধান্ত নেয়া হয় যে, এবার স্বাধীনতা কাপ হচ্ছে না। প্রিমিয়ার লিগ পরিত্যক্ত ঘোষণা করায় এবারের মৌসুমে কোনো অবনমন হবে না। এদিকে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা ঢাকা আবাহনীকে চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করেনি কার্যনির্বাহী কমিটি। মার্চের তৃতীয় সপ্তাহে লিগের ষষ্ঠ রাউন্ড শেষ হয়েছিল। এরপর লিগ স্থগিত হয়। মাত্র ছয় রাউন্ড শেষে লিগ পরিত্যক্ত করা প্রসঙ্গে সালাম মুর্শেদী বলেন, ‘কিছু ক্লাব ছয় ম্যাচ আর কিছু ক্লাব পাঁচ ম্যাচ করে খেলেছে। প্রতিটি ক্লাবের ম্যাচ হওয়ার কথা ছিল ২৪টি করে। চারভাগের একভাগও খেলেনি অনেক ক্লাব। ফলে লিগে চ্যাম্পিয়নশিপ নির্ধারণ বা অবনমন হবে না।’ তিনি বলেন, ‘পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হলে আমরা ক্লাব ও ফুটবলারদের বিষয়গুলো নিয়ে বসব। পরিস্থিতি দ্রুত ভালো হলে নতুন মৌসুম সেপ্টেম্বর কিংবা অক্টোবর থেকে শুরু হতে পারে। তার আগে আমরা নির্বাচনের আয়োজন করব। নতুন কমিটি এসে নতুন লিগ আয়োজন করবে।’ তিনি যোগ করেন, ‘এএফসির গাইডলাইন অনুযায়ী আমরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তাই বিষয়টি এএফসিই বুঝবে আগামী মৌসুমে আমাদের কোটা থাকবে কি না। তবে এখনও সময় আছে। সব কিছুই আলোচনা সাপেক্ষে হবে।’
লিগে অংশ নেয়া ১৩ ক্লাবের মধ্যে অধিকাংশই তাদের বিদেশি ফুটবলার ও কোচদের দেশে পাঠিয়ে দিয়েছে। তাহলে আগামী মৌসুমে ক্লাব ও ফুটবলারদের কি দায়বদ্ধতা থাকবে? সালাম মুর্শেদীর উত্তর, ‘আমরা ক্লাব ও খেলোয়াড় উভয়ের স্বার্থ দেখব।’
বাফুফের জরুরি সভায় ২১ জন নির্বাহী কমিটির মধ্যে নয়জন সভায় উপস্থিত ছিলেন। বাকিরা ভিডিও কনফারেন্সে যোগ দেন।