হকির ক্যাম্পেও করোনার হানা
jugantor
হকির ক্যাম্পেও করোনার হানা

  স্পোর্টস রিপোর্টার  

১০ আগস্ট ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ফুটবলের মতো করোনা হানা দিয়েছে হকির ক্যাম্পেও। শনিবার অনূর্ধ্ব-২১ হকি দলের ১৬ জন ক্যাম্পে রিপোর্ট করে করোনা পরীক্ষা করিয়েছেন।

তাদের মধ্যে বিকেএসপির রাকিবুল হাসান এবং ওবায়দুর রহমানের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে বলে জানিয়েছেন ফেডারেশনের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মো. ইউসুফ।

তার কথায়, ‘হাতে রিপোর্ট না পেলেও আমরা জানতে পেরেছি এই দু’জনের ফল পজিটিভ এসেছে। তাদেরকে আমরা কোয়ারেন্টিনে রাখার ব্যবস্থা করব। বাকিরা যথারীতি ফিটনেস ক্যাম্প করবে।’

জাতীয় ফুটবল দলের ক্যাম্পে রীতিমতো আতঙ্ক তৈরি করেছে করোনা। ৩০ ফুটবলারের মধ্যে ১৮ জনই আক্রান্ত হয়েছেন। সেই শঙ্কা নিয়ে শুরু হয়েছে হকির ক্যাম্প। শনিবার দুপুরে বিমানবাহিনীর শাহীন হলে রিপোর্ট করেছেন যুব হকি দলের ২১ সদস্যের মধ্যে ১৬ জন। তাদের মধ্যে বিকেএসপির ১২ জন এবং বিভিন্ন জেলার চারজন খেলোয়াড় রয়েছেন। বাকি পাঁচজন ব্যক্তিগতভাবে করোনা পরীক্ষা করে ক্যাম্পে আসবেন বলে জানা গেছে।

হকির ফিটনেস ক্যাম্পে ডাক পাওয়া খেলোয়াড়রা হলেন- শফিউল আলম, প্রিন্স লাল সামন্ত, নাঈম উদ্দিন, সারোয়ার মোর্শেদ, খালেদ মাহমুদ, আবেদ উদ্দিন, রাজিব দাস, সিহাব হোসেন, আল আমিন মিয়া, দেবাশীষ কুমার, সাকিব মাহমুদ, জাহিদ হোসেন, সাবেদুর রহমান, সোয়েব মল্লিক, মেহরাব হাসান, রকিবুল হাসান, মেহেদী হাসান, নুরুজ্জামান নয়ন, আমিরুল ইসলাম, ওবায়দুর রহমান ও খলিলুর রহমান।

আগেরদিন রিপোর্ট করলেও রোববার শাহীন হলে আনুষ্ঠানিকভাবে হকির ফিটনেস ক্যাম্প শুরু হয়েছে। বিমানবাহিনীর প্রধান ও ফেডারেশনের সভাপতি এয়ার মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত ক্যাম্পের উদ্বোধন করেন। এ সময় ফেডারেশনের সহ-সভাপতি সাজেদ এ আদেল উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে অন্যদের রিপোর্টের ফলাফল নেগেটিভ এলেও সাতদিন আইসোলেশনে থাকতে হবে। এরপর বিমানবাহিনীর তত্ত্বাবধানে সদর দফতরে শুরু হবে খেলোয়াড়দের ফিটনেস ক্যাম্প। মো. ইউসুফ বলেন, ‘আপাতত কোনো টুর্নামেন্টে খেলা আমাদের লক্ষ্য নয়। সার্ভিসেস দলের খেলোয়াড়রা অনুশীলনের মধ্যেই রয়েছে।

তাই সভাপতির ইচ্ছায় আমরা জেলা ও বিকেএসপির খেলোয়াড়দের ফিটনেস লেভেল বাড়াতে চাই।’

হকির ক্যাম্পেও করোনার হানা

 স্পোর্টস রিপোর্টার 
১০ আগস্ট ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ফুটবলের মতো করোনা হানা দিয়েছে হকির ক্যাম্পেও। শনিবার অনূর্ধ্ব-২১ হকি দলের ১৬ জন ক্যাম্পে রিপোর্ট করে করোনা পরীক্ষা করিয়েছেন।

তাদের মধ্যে বিকেএসপির রাকিবুল হাসান এবং ওবায়দুর রহমানের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে বলে জানিয়েছেন ফেডারেশনের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মো. ইউসুফ।

তার কথায়, ‘হাতে রিপোর্ট না পেলেও আমরা জানতে পেরেছি এই দু’জনের ফল পজিটিভ এসেছে। তাদেরকে আমরা কোয়ারেন্টিনে রাখার ব্যবস্থা করব। বাকিরা যথারীতি ফিটনেস ক্যাম্প করবে।’

জাতীয় ফুটবল দলের ক্যাম্পে রীতিমতো আতঙ্ক তৈরি করেছে করোনা। ৩০ ফুটবলারের মধ্যে ১৮ জনই আক্রান্ত হয়েছেন। সেই শঙ্কা নিয়ে শুরু হয়েছে হকির ক্যাম্প। শনিবার দুপুরে বিমানবাহিনীর শাহীন হলে রিপোর্ট করেছেন যুব হকি দলের ২১ সদস্যের মধ্যে ১৬ জন। তাদের মধ্যে বিকেএসপির ১২ জন এবং বিভিন্ন জেলার চারজন খেলোয়াড় রয়েছেন। বাকি পাঁচজন ব্যক্তিগতভাবে করোনা পরীক্ষা করে ক্যাম্পে আসবেন বলে জানা গেছে।

হকির ফিটনেস ক্যাম্পে ডাক পাওয়া খেলোয়াড়রা হলেন- শফিউল আলম, প্রিন্স লাল সামন্ত, নাঈম উদ্দিন, সারোয়ার মোর্শেদ, খালেদ মাহমুদ, আবেদ উদ্দিন, রাজিব দাস, সিহাব হোসেন, আল আমিন মিয়া, দেবাশীষ কুমার, সাকিব মাহমুদ, জাহিদ হোসেন, সাবেদুর রহমান, সোয়েব মল্লিক, মেহরাব হাসান, রকিবুল হাসান, মেহেদী হাসান, নুরুজ্জামান নয়ন, আমিরুল ইসলাম, ওবায়দুর রহমান ও খলিলুর রহমান।

আগেরদিন রিপোর্ট করলেও রোববার শাহীন হলে আনুষ্ঠানিকভাবে হকির ফিটনেস ক্যাম্প শুরু হয়েছে। বিমানবাহিনীর প্রধান ও ফেডারেশনের সভাপতি এয়ার মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত ক্যাম্পের উদ্বোধন করেন। এ সময় ফেডারেশনের সহ-সভাপতি সাজেদ এ আদেল উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে অন্যদের রিপোর্টের ফলাফল নেগেটিভ এলেও সাতদিন আইসোলেশনে থাকতে হবে। এরপর বিমানবাহিনীর তত্ত্বাবধানে সদর দফতরে শুরু হবে খেলোয়াড়দের ফিটনেস ক্যাম্প। মো. ইউসুফ বলেন, ‘আপাতত কোনো টুর্নামেন্টে খেলা আমাদের লক্ষ্য নয়। সার্ভিসেস দলের খেলোয়াড়রা অনুশীলনের মধ্যেই রয়েছে।

তাই সভাপতির ইচ্ছায় আমরা জেলা ও বিকেএসপির খেলোয়াড়দের ফিটনেস লেভেল বাড়াতে চাই।’