তিন ধরনের ক্রিকেটই খেলতে চান মোস্তাফিজ
jugantor
তিন ধরনের ক্রিকেটই খেলতে চান মোস্তাফিজ

  স্পোর্টস রিপোর্টার  

২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

তিন ধরনের ক্রিকেটই খেলতে চান মোস্তাফিজুর রহমান। সব ফরম্যাটে নিয়মিত হওয়ার চেষ্টা তার।

সোমবার অনুশীলন শেষে এই বাঁ-হাতি পেসার বলেন, ‘আমি সব ফরম্যাটে খেলতে চাই। চেষ্টা করছি ফিটনেস বাড়াতে। বোলিং আরও ভালো করার জন্যও কাজ করছি। সব ফরম্যাটে নিয়মিত হওয়ার চেষ্টা করছি।’

করোনা সংক্রমণ শুরু হওয়ার আগে বোলিং কোচ ওটিস গিবসন তাকে কিছু গ্রিপ দেখিয়ে দিয়েছেন। এ নিয়ে কাজ করছেন।

এদিকে স্কিল ক্যাম্পে থাকা ক্রিকেটাররা দলীয় অনুশীলনের দ্বিতীয়দিন সোমবারও দুই ভাগে ভাগ হয়ে মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নিজেদের ঝালিয়ে নিয়েছেন।

একাডেমি ভবনে যে ১০ ক্রিকেটার কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন, তাদের মধ্যে চারজন সৈয়দ খালেদ আহমেদ, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, নাঈম হাসান ও হাসান মাহমুদ একাডেমি মাঠে এদিন অনুশীলন করেন।

স্কিল ক্যাম্পে থাকা ২৭ জনের দলে রয়েছেন নয় পেসার।

অনুশীলনে তাসকিন আহমেদ দারুণ লাইন-লেন্থ ও গতিতে বোলিং করছেন। আল-আমিনও ভালো বোলিং করছেন। শ্রীলংকা সফরে পেসারদের ওপর গুরুত্ব দিচ্ছেন নির্বাচকরা।

দীর্ঘদিন খেলা না থাকায় সবাই টেস্ট সিরিজে খেলার জন্য নিজেদের সর্বোচ্চটা দিচ্ছেন প্রস্তুতিতে।

দলীয় অনুশীলন নিয়ে মোস্তাফিজ বলেন, ‘বাড়িতে অনুশীলনের ব্যাপারটা অন্যরকম। বাইরে যা কিছুই করি না কেন, দলীয়ভাবে অনুশীলন করাটা আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ। বাড়িতে আমরা সবাই কম-বেশি কাজ করেছি। এখানে শুরুতে কষ্ট হচ্ছিল। তবে এখন খুব ভালো লাগছে।’

মোস্তাফিজকে নিয়ে নির্বাচকদের আলাদা ভাবনা রয়েছে। একটানা তাকে না খেলিয়ে বিরতি দিয়ে খেলানোর চেষ্টা করবেন নির্বাচকরা। তবে শ্রীলংকা সফর নিশ্চিত না হওয়ায় এখনও অনুশীলনের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকতে হচ্ছে মোস্তাফিজদের।

তিন ধরনের ক্রিকেটই খেলতে চান মোস্তাফিজ

 স্পোর্টস রিপোর্টার 
২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

তিন ধরনের ক্রিকেটই খেলতে চান মোস্তাফিজুর রহমান। সব ফরম্যাটে নিয়মিত হওয়ার চেষ্টা তার।

সোমবার অনুশীলন শেষে এই বাঁ-হাতি পেসার বলেন, ‘আমি সব ফরম্যাটে খেলতে চাই। চেষ্টা করছি ফিটনেস বাড়াতে। বোলিং আরও ভালো করার জন্যও কাজ করছি। সব ফরম্যাটে নিয়মিত হওয়ার চেষ্টা করছি।’

করোনা সংক্রমণ শুরু হওয়ার আগে বোলিং কোচ ওটিস গিবসন তাকে কিছু গ্রিপ দেখিয়ে দিয়েছেন। এ নিয়ে কাজ করছেন।

এদিকে স্কিল ক্যাম্পে থাকা ক্রিকেটাররা দলীয় অনুশীলনের দ্বিতীয়দিন সোমবারও দুই ভাগে ভাগ হয়ে মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নিজেদের ঝালিয়ে নিয়েছেন।

একাডেমি ভবনে যে ১০ ক্রিকেটার কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন, তাদের মধ্যে চারজন সৈয়দ খালেদ আহমেদ, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, নাঈম হাসান ও হাসান মাহমুদ একাডেমি মাঠে এদিন অনুশীলন করেন।

স্কিল ক্যাম্পে থাকা ২৭ জনের দলে রয়েছেন নয় পেসার।

অনুশীলনে তাসকিন আহমেদ দারুণ লাইন-লেন্থ ও গতিতে বোলিং করছেন। আল-আমিনও ভালো বোলিং করছেন। শ্রীলংকা সফরে পেসারদের ওপর গুরুত্ব দিচ্ছেন নির্বাচকরা।

দীর্ঘদিন খেলা না থাকায় সবাই টেস্ট সিরিজে খেলার জন্য নিজেদের সর্বোচ্চটা দিচ্ছেন প্রস্তুতিতে।

দলীয় অনুশীলন নিয়ে মোস্তাফিজ বলেন, ‘বাড়িতে অনুশীলনের ব্যাপারটা অন্যরকম। বাইরে যা কিছুই করি না কেন, দলীয়ভাবে অনুশীলন করাটা আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ। বাড়িতে আমরা সবাই কম-বেশি কাজ করেছি। এখানে শুরুতে কষ্ট হচ্ছিল। তবে এখন খুব ভালো লাগছে।’

মোস্তাফিজকে নিয়ে নির্বাচকদের আলাদা ভাবনা রয়েছে। একটানা তাকে না খেলিয়ে বিরতি দিয়ে খেলানোর চেষ্টা করবেন নির্বাচকরা। তবে শ্রীলংকা সফর নিশ্চিত না হওয়ায় এখনও অনুশীলনের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকতে হচ্ছে মোস্তাফিজদের।