পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে গোলাপি রোমাঞ্চ
jugantor
পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে গোলাপি রোমাঞ্চ

  ক্রীড়া ডেস্ক  

২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সিরিজের চেন্নাইপর্ব শেষ হয়েছে ১-১ সমতায়। বাকি দুই ম্যাচ আহমেদাবাদে। অনেক সমীকরণের এই পর্ব হতে যাচ্ছে রোমাঞ্চ ও উত্তেজনায় ভরপুর। পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে গোলাপি রোমাঞ্চ ছড়িয়ে আজ শুরু হচ্ছে ভারত-ইংল্যান্ড সিরিজের তৃতীয় টেস্ট। সংস্কারের পর আহমেদাবাদের সর্দার প্যাটেল স্টেডিয়ামের দর্শক ধারণক্ষমতা এখন এক লাখ ১০ হাজার। নতুন স্টেডিয়ামে এটাই প্রথম টেস্ট। সেটাও আবার দিবারাত্রির ম্যাচ। সিরিজে এগিয়ে যাওয়ার কঠিন লড়াইয়ে বাড়তি মাত্রা যোগ করেছে টেস্ট

চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে ওঠার সমীকরণ। ফাইনালের আশা বাঁচিয়ে রাখতে দুদলের সামনেই সিরিজ জয়ের কোনো বিকল্প নেই। লর্ডসের ফাইনালে চোখ রেখেই আজ ভারতের ইতিহাসের মাত্র দ্বিতীয় পেসার হিসাবে ক্যারিয়ারের শততম টেস্ট খেলতে নামছেন ইশান্ত শর্মা। গোলাপি বলে আগুন ঝরিয়ে উপলক্ষ্যটা রাঙাতে চান তিনি। তবে ব্যক্তিগত মাইলফলকের চেয়ে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল নিয়ে বেশি রোমাঞ্চিত ইশান্ত, ‘১০০ আমার কাছে শুধুই সংখ্যা। আমার মূল চাওয়া পরের টেস্ট ও সিরিজ জিতে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল নিশ্চিত করা। আমি শুধু একটি ফরম্যাটই খেলি। কাজেই টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপই আমার কাছে বিশ্বকাপ। আমরা যদি ফাইনালে উঠতে পারি এবং জিততে পারি, তাহলে বিশ্বকাপ জয়ের অনুভূতিই হবে আমার।’

ইংল্যান্ডের পেস আক্রমণের নেতা জেমস অ্যান্ডারসনেরও অভিন্ন চাওয়া, ‘গোলাপি বলে রিভার্স সুইং পাব কিনা তা নিয়ে ভাবছি না। শুধু জানি, ফাইনালে যেতে যেভাবেই হোক দুটি টেস্ট জিততে হবে।’

চেন্নাইয়ে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে স্পিনে নাকাল হয়ে ৩১৭ রানে হেরেছিল ইংল্যান্ড। তবে দিবারাত্রির ম্যাচে পেসাররা বরাবর ভালো করায় আহমেদাবাদে ঘুরে দাঁড়ানোর ব্যাপারে আশাবাদী ইংলিশ অধিনায়ক জো রুট। অ্যান্ডারসন ও জফরা আর্চার ফিরছেন একাদশে। এর আগে দেশের মাটিতে একমাত্র ডে-নাইট টেস্টে বাংলাদেশকে তিনদিনে হারিয়েছিল ভারত। তবে নিজেদের সবশেষ গোলাপি টেস্টে মুদ্রার উলটো পিঠ দেখতে হয়েছে কোহলিদের। গত ডিসেম্বরে অ্যাডিলেডে মাত্র ৩৬ রানে অলআউট হয়েছিল ভারত। এবার বিপর্যয় এড়াতে প্রস্তুতিতে কোনো খামতি রাখেনি স্বাগতিকরা। বিশাল মাঠের পাশাপাশি এলইডি লাইটের সঙ্গেও মানিয়ে নেওয়ার চ্যালেঞ্জ থাকছে।

পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে গোলাপি রোমাঞ্চ

 ক্রীড়া ডেস্ক 
২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সিরিজের চেন্নাইপর্ব শেষ হয়েছে ১-১ সমতায়। বাকি দুই ম্যাচ আহমেদাবাদে। অনেক সমীকরণের এই পর্ব হতে যাচ্ছে রোমাঞ্চ ও উত্তেজনায় ভরপুর। পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে গোলাপি রোমাঞ্চ ছড়িয়ে আজ শুরু হচ্ছে ভারত-ইংল্যান্ড সিরিজের তৃতীয় টেস্ট। সংস্কারের পর আহমেদাবাদের সর্দার প্যাটেল স্টেডিয়ামের দর্শক ধারণক্ষমতা এখন এক লাখ ১০ হাজার। নতুন স্টেডিয়ামে এটাই প্রথম টেস্ট। সেটাও আবার দিবারাত্রির ম্যাচ। সিরিজে এগিয়ে যাওয়ার কঠিন লড়াইয়ে বাড়তি মাত্রা যোগ করেছে টেস্ট

চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে ওঠার সমীকরণ। ফাইনালের আশা বাঁচিয়ে রাখতে দুদলের সামনেই সিরিজ জয়ের কোনো বিকল্প নেই। লর্ডসের ফাইনালে চোখ রেখেই আজ ভারতের ইতিহাসের মাত্র দ্বিতীয় পেসার হিসাবে ক্যারিয়ারের শততম টেস্ট খেলতে নামছেন ইশান্ত শর্মা। গোলাপি বলে আগুন ঝরিয়ে উপলক্ষ্যটা রাঙাতে চান তিনি। তবে ব্যক্তিগত মাইলফলকের চেয়ে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল নিয়ে বেশি রোমাঞ্চিত ইশান্ত, ‘১০০ আমার কাছে শুধুই সংখ্যা। আমার মূল চাওয়া পরের টেস্ট ও সিরিজ জিতে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল নিশ্চিত করা। আমি শুধু একটি ফরম্যাটই খেলি। কাজেই টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপই আমার কাছে বিশ্বকাপ। আমরা যদি ফাইনালে উঠতে পারি এবং জিততে পারি, তাহলে বিশ্বকাপ জয়ের অনুভূতিই হবে আমার।’

ইংল্যান্ডের পেস আক্রমণের নেতা জেমস অ্যান্ডারসনেরও অভিন্ন চাওয়া, ‘গোলাপি বলে রিভার্স সুইং পাব কিনা তা নিয়ে ভাবছি না। শুধু জানি, ফাইনালে যেতে যেভাবেই হোক দুটি টেস্ট জিততে হবে।’

চেন্নাইয়ে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে স্পিনে নাকাল হয়ে ৩১৭ রানে হেরেছিল ইংল্যান্ড। তবে দিবারাত্রির ম্যাচে পেসাররা বরাবর ভালো করায় আহমেদাবাদে ঘুরে দাঁড়ানোর ব্যাপারে আশাবাদী ইংলিশ অধিনায়ক জো রুট। অ্যান্ডারসন ও জফরা আর্চার ফিরছেন একাদশে। এর আগে দেশের মাটিতে একমাত্র ডে-নাইট টেস্টে বাংলাদেশকে তিনদিনে হারিয়েছিল ভারত। তবে নিজেদের সবশেষ গোলাপি টেস্টে মুদ্রার উলটো পিঠ দেখতে হয়েছে কোহলিদের। গত ডিসেম্বরে অ্যাডিলেডে মাত্র ৩৬ রানে অলআউট হয়েছিল ভারত। এবার বিপর্যয় এড়াতে প্রস্তুতিতে কোনো খামতি রাখেনি স্বাগতিকরা। বিশাল মাঠের পাশাপাশি এলইডি লাইটের সঙ্গেও মানিয়ে নেওয়ার চ্যালেঞ্জ থাকছে।