পাতানো ম্যাচ দোষী প্রমাণিত হলে বহিষ্কার
jugantor
পাতানো ম্যাচ দোষী প্রমাণিত হলে বহিষ্কার
বললেন সালাউদ্দিন

  ক্রীড়া প্রতিবেদক  

২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঘরোয়া ফুটবলে নতুন ব্যাধি অনলাইন বেটিং। এ নিয়ে ক’দিন ধরে তোলপাড় ফুটবলাঙ্গন। এবার মুখ খুললেন কাজী সালাউদ্দিন। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সভাপতির হুঙ্কার, ‘ম্যাচ পাতানো, বর্ণবাদ ও মাদকের ব্যাপারে আমার জিরো টলারেন্স।’ মঙ্গলবার কমলাপুর বীরশ্রেষ্ঠ শহিদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে প্রতিভা অন্বেষণ কর্মসূচির চূড়ান্তপর্ব উদ্বোধনের সময় সালাউদ্দিন আরও বলেন, ‘পাতানো ম্যাচের সঙ্গে জড়িত যে কোনো দল দোষী প্রমাণিত হলে তাদের বহিষ্কার করা হবে।’ ঘরোয়া ফুটবলের আলোচিত বিষয় এখন পাতানো ম্যাচ। চলমান প্রিমিয়ার লিগে আরামবাগ ও ব্রাদার্স ইউনিয়নের পাঁচটি ম্যাচ নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছে এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন (এএফসি)।

প্রতিভা অন্বেষণ কর্মসূচি চলবে তিন দিন। তরুণ ফুটবলার সম্পর্কে বাফুফে সভাপতির কথা, ‘আমরা এমন প্রতিভা অন্বেষণ চালিয়ে যাব। এভাবে কর্মসূচি চালিয়ে গেলে চার থেকে পাঁচ বছর পর অনেক মেধাবী ফুটবলার পাওয়া যাবে।’ তিনি যোগ করেন, ‘অনেক ফুটবলারের মেধা রয়েছে। তা বিকশিত করতে প্রয়োজন নির্দেশনা, অনুশীলনসহ আরও অনেক বিষয়। এর পাশাপাশি দরকার তাদের ধৈর্য। তরুণ ফুটবলাররা যদি ধৈর্য ধরে ফুটবলের সঙ্গে থাকতে পারে, বাফুফেও তাদের ধরে রাখবে।’ সাফ ও এএফসির অ-১৫ ও অ-১৬ প্রতিযোগিতার জন্য বাফুফে অ-১৫ পর্যায়ে দেশব্যাপী ট্রায়াল করছে। কমলাপুর স্টেডিয়ামে চলছে চূড়ান্ত বাছাই।

পাতানো ম্যাচ দোষী প্রমাণিত হলে বহিষ্কার

বললেন সালাউদ্দিন
 ক্রীড়া প্রতিবেদক 
২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঘরোয়া ফুটবলে নতুন ব্যাধি অনলাইন বেটিং। এ নিয়ে ক’দিন ধরে তোলপাড় ফুটবলাঙ্গন। এবার মুখ খুললেন কাজী সালাউদ্দিন। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সভাপতির হুঙ্কার, ‘ম্যাচ পাতানো, বর্ণবাদ ও মাদকের ব্যাপারে আমার জিরো টলারেন্স।’ মঙ্গলবার কমলাপুর বীরশ্রেষ্ঠ শহিদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে প্রতিভা অন্বেষণ কর্মসূচির চূড়ান্তপর্ব উদ্বোধনের সময় সালাউদ্দিন আরও বলেন, ‘পাতানো ম্যাচের সঙ্গে জড়িত যে কোনো দল দোষী প্রমাণিত হলে তাদের বহিষ্কার করা হবে।’ ঘরোয়া ফুটবলের আলোচিত বিষয় এখন পাতানো ম্যাচ। চলমান প্রিমিয়ার লিগে আরামবাগ ও ব্রাদার্স ইউনিয়নের পাঁচটি ম্যাচ নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছে এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন (এএফসি)।

প্রতিভা অন্বেষণ কর্মসূচি চলবে তিন দিন। তরুণ ফুটবলার সম্পর্কে বাফুফে সভাপতির কথা, ‘আমরা এমন প্রতিভা অন্বেষণ চালিয়ে যাব। এভাবে কর্মসূচি চালিয়ে গেলে চার থেকে পাঁচ বছর পর অনেক মেধাবী ফুটবলার পাওয়া যাবে।’ তিনি যোগ করেন, ‘অনেক ফুটবলারের মেধা রয়েছে। তা বিকশিত করতে প্রয়োজন নির্দেশনা, অনুশীলনসহ আরও অনেক বিষয়। এর পাশাপাশি দরকার তাদের ধৈর্য। তরুণ ফুটবলাররা যদি ধৈর্য ধরে ফুটবলের সঙ্গে থাকতে পারে, বাফুফেও তাদের ধরে রাখবে।’ সাফ ও এএফসির অ-১৫ ও অ-১৬ প্রতিযোগিতার জন্য বাফুফে অ-১৫ পর্যায়ে দেশব্যাপী ট্রায়াল করছে। কমলাপুর স্টেডিয়ামে চলছে চূড়ান্ত বাছাই।