স্মার্ট ক্রিকেট খেলতে চান লিটন
jugantor
স্মার্ট ক্রিকেট খেলতে চান লিটন

  ক্রীড়া প্রতিবেদক  

১১ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঈদের আগে ক্রিকেটারদের অনুশীলন শেষ হয়েছে সোমবার। ছুটি শেষে ১৬ মে করোনা পরীক্ষা হবে তাদের। ১৭ মে করোনা নেগেটিভ হওয়া সাপেক্ষে জৈব সুরক্ষাবলয়ে ঢুকে যাবেন ক্রিকেটাররা। ১৮ তারিখ থেকে শুরু হবে দলীয় অনুশীলন। শ্রীলংকার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের আগে থাকতে পারছেন না ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুক। সন্তানসম্ভবা স্ত্রীর পাশে থাকতে দেশে ফিরছেন তিনি। সোমবার অনুশীলন শেষে উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান লিটন দাস জানান, সাদা বলের ক্রিকেটে বাংলাদেশ ও শ্রীলংকা প্রায় সমশক্তির দল। দেশের মাটিতে খেলা হওয়ায় সিরিজ জয়ের ভালো সম্ভাবনা দেখছেন তিনি।

লিটন বলেন, ‘শ্রীলংকা ও আমরা প্রায় সমশক্তির দল। তারাও সাদা বলের ক্রিকেট ভালো খেলে। আমাদের স্মার্ট ক্রিকেট খেলতে হবে প্রথমত। নিজেকে সেভাবে প্রস্তুত করতে হবে। তাহলে সফল হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে।’ তিনি বলেন, ‘আমরা সাদা বলের ক্রিকেটে অনেক ভালো দল। বিশেষ করে ওয়ানডেতে হোম কন্ডিশনে। এখন পুরো দল পাব। এটা আমাদের জন্য প্লাস পয়েন্ট।’

ফিল্ডিংয়ে নিজের ভাবনা নিয়ে লিটন বলেন, ‘ফিল্ডিং আমি দুভাবে দেখি। যখন গ্লাভস থাকে তখন একভাবে, যখন থাকে না তখন আরেকভাবে। কিপিং করলে দায়িত্ব অনেক বড় থাকে। দলকে নিয়ন্ত্রণ করতে হয়। এটা উপভোগ করি। যখন সাদা বলে খেলি তখন দায়িত্ব থাকে ক্যাচ নেওয়া, রান আটকানো, লাইনে ফিল্ডিং করা-এসব। আমি ওটাও উপভোগ করি।’ নিজের খেলাটা এখন আগের চেয়ে অনেক ভালো বোঝেন লিটন। তিনি বলেন, ‘সব সময়ই ভাবি আমাকে নতুন বলে মোকাবিলা করতে হবে। সেভাবেই প্রতিদিন অনুশীলন করি। প্রথম ১০ ওভার যদি টিকে থাকতে পারি তাহলে ১৫-৪০ ওভার পর্যন্ত খেলা সহজ হয়ে যাবে। আমি জানি আমার কতটুকু সামর্থ্য আছে। এটা নিয়েই কাজ করছি।’ ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুকের সঙ্গে সর্বশেষ কয়েকদিন অনুশীলনের অভিজ্ঞতা নিয়ে তিনি বলেন, ‘ফিল্ডিংয়ের সময় বুঝতে হবে আমার কোনটা ভালো। অনেক ফিল্ডারের আর্ম অনেক ভালো, অনেক ফিল্ডার ক্যাচিংয়ে ভালো। আমি কিছুটা স্লো তাই সেভাবেই আমি অন্যদিকে গুরুত্ব দিচ্ছি। এছাড়া পজিশন অনুযায়ী ব্যাটসম্যানের অবস্থা বোঝাও জরুরি। সব মিলে অনুশলীনের কোনো বিকল্প নেই।’

স্মার্ট ক্রিকেট খেলতে চান লিটন

 ক্রীড়া প্রতিবেদক 
১১ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঈদের আগে ক্রিকেটারদের অনুশীলন শেষ হয়েছে সোমবার। ছুটি শেষে ১৬ মে করোনা পরীক্ষা হবে তাদের। ১৭ মে করোনা নেগেটিভ হওয়া সাপেক্ষে জৈব সুরক্ষাবলয়ে ঢুকে যাবেন ক্রিকেটাররা। ১৮ তারিখ থেকে শুরু হবে দলীয় অনুশীলন। শ্রীলংকার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের আগে থাকতে পারছেন না ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুক। সন্তানসম্ভবা স্ত্রীর পাশে থাকতে দেশে ফিরছেন তিনি। সোমবার অনুশীলন শেষে উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান লিটন দাস জানান, সাদা বলের ক্রিকেটে বাংলাদেশ ও শ্রীলংকা প্রায় সমশক্তির দল। দেশের মাটিতে খেলা হওয়ায় সিরিজ জয়ের ভালো সম্ভাবনা দেখছেন তিনি।

লিটন বলেন, ‘শ্রীলংকা ও আমরা প্রায় সমশক্তির দল। তারাও সাদা বলের ক্রিকেট ভালো খেলে। আমাদের স্মার্ট ক্রিকেট খেলতে হবে প্রথমত। নিজেকে সেভাবে প্রস্তুত করতে হবে। তাহলে সফল হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে।’ তিনি বলেন, ‘আমরা সাদা বলের ক্রিকেটে অনেক ভালো দল। বিশেষ করে ওয়ানডেতে হোম কন্ডিশনে। এখন পুরো দল পাব। এটা আমাদের জন্য প্লাস পয়েন্ট।’

ফিল্ডিংয়ে নিজের ভাবনা নিয়ে লিটন বলেন, ‘ফিল্ডিং আমি দুভাবে দেখি। যখন গ্লাভস থাকে তখন একভাবে, যখন থাকে না তখন আরেকভাবে। কিপিং করলে দায়িত্ব অনেক বড় থাকে। দলকে নিয়ন্ত্রণ করতে হয়। এটা উপভোগ করি। যখন সাদা বলে খেলি তখন দায়িত্ব থাকে ক্যাচ নেওয়া, রান আটকানো, লাইনে ফিল্ডিং করা-এসব। আমি ওটাও উপভোগ করি।’ নিজের খেলাটা এখন আগের চেয়ে অনেক ভালো বোঝেন লিটন। তিনি বলেন, ‘সব সময়ই ভাবি আমাকে নতুন বলে মোকাবিলা করতে হবে। সেভাবেই প্রতিদিন অনুশীলন করি। প্রথম ১০ ওভার যদি টিকে থাকতে পারি তাহলে ১৫-৪০ ওভার পর্যন্ত খেলা সহজ হয়ে যাবে। আমি জানি আমার কতটুকু সামর্থ্য আছে। এটা নিয়েই কাজ করছি।’ ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুকের সঙ্গে সর্বশেষ কয়েকদিন অনুশীলনের অভিজ্ঞতা নিয়ে তিনি বলেন, ‘ফিল্ডিংয়ের সময় বুঝতে হবে আমার কোনটা ভালো। অনেক ফিল্ডারের আর্ম অনেক ভালো, অনেক ফিল্ডার ক্যাচিংয়ে ভালো। আমি কিছুটা স্লো তাই সেভাবেই আমি অন্যদিকে গুরুত্ব দিচ্ছি। এছাড়া পজিশন অনুযায়ী ব্যাটসম্যানের অবস্থা বোঝাও জরুরি। সব মিলে অনুশলীনের কোনো বিকল্প নেই।’

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন