১৩ বছর পর মুখ খুললেন সানিয়া
jugantor
১৩ বছর পর মুখ খুললেন সানিয়া

  ক্রীড়া ডেস্ক  

১১ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দীর্ঘ টেনিস জীবনে অনেক উত্থান-পতন দেখেছেন। তবে বেইজিং অলিম্পিক থেকে সরে দাঁড়ানোর ব্যাপারটা এখনো মন থেকে মেনে নিতে পারেন না সানিয়া মির্জা। ২০০৮ বেইজিং অলিম্পিকের মাঝপথ থেকে সরে যেতে বাধ্য হন টেনিস সুন্দরী। তার সেই সিদ্ধান্ত নিয়ে ভারতীয় টেনিস মহলে ঝড় বয়ে গেলেও মুখ বন্ধ রেখেছিলেন। তবে এত বছর পরে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়ার ব্যাপারটা খোলাসা করলেন সানিয়া।

একটি ইউটিউব চ্যানেলে সানিয়া বলেন, ‘প্রত্যেক ক্রীড়াবিদ দেশের হয়ে খেলতে নামলে সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করে। আমিও সেই মানসিকতা নিয়ে বেইজিং অলিম্পিকে শুরু করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু ডান হাতের কবজির যন্ত্রণা ভোগাতে শুরু করে। তখন আমার সবে ২০ বছর বয়স। সেই ঘটনার আগে পর্যন্ত জীবনে সব কিছু বেশ ভালোই যাচ্ছিল। কিন্তু সেবারের চোট আমাকে মানসিকভাবে আরও পেছনে ঠেলে দেয়। শুধু কাঁদতাম। প্রায় এক মাস খাওয়া-দাওয়া বন্ধ করে দিয়েছিলাম। প্রায় তিন-চার মাস নিজেকে ঘরবন্দি করে রাখার জন্য মানসিক অবসাদে চলে গিয়েছিলাম।’ সেবার মহিলাদের এককে প্রথম রাউন্ডে সানিয়ার বিপক্ষে ছিলেন চেক প্রজাতন্ত্রের ইভেতা বেনেসোভা। সেই ম্যাচে ২-৬ ব্যবধানে প্রথম সেটে হেরে যাওয়ার পর দ্বিতীয় সেটে ১-২ ব্যবধানে পিছিয়ে ছিলেন সানিয়া।

১৩ বছর পর মুখ খুললেন সানিয়া

 ক্রীড়া ডেস্ক 
১১ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দীর্ঘ টেনিস জীবনে অনেক উত্থান-পতন দেখেছেন। তবে বেইজিং অলিম্পিক থেকে সরে দাঁড়ানোর ব্যাপারটা এখনো মন থেকে মেনে নিতে পারেন না সানিয়া মির্জা। ২০০৮ বেইজিং অলিম্পিকের মাঝপথ থেকে সরে যেতে বাধ্য হন টেনিস সুন্দরী। তার সেই সিদ্ধান্ত নিয়ে ভারতীয় টেনিস মহলে ঝড় বয়ে গেলেও মুখ বন্ধ রেখেছিলেন। তবে এত বছর পরে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়ার ব্যাপারটা খোলাসা করলেন সানিয়া।

একটি ইউটিউব চ্যানেলে সানিয়া বলেন, ‘প্রত্যেক ক্রীড়াবিদ দেশের হয়ে খেলতে নামলে সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করে। আমিও সেই মানসিকতা নিয়ে বেইজিং অলিম্পিকে শুরু করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু ডান হাতের কবজির যন্ত্রণা ভোগাতে শুরু করে। তখন আমার সবে ২০ বছর বয়স। সেই ঘটনার আগে পর্যন্ত জীবনে সব কিছু বেশ ভালোই যাচ্ছিল। কিন্তু সেবারের চোট আমাকে মানসিকভাবে আরও পেছনে ঠেলে দেয়। শুধু কাঁদতাম। প্রায় এক মাস খাওয়া-দাওয়া বন্ধ করে দিয়েছিলাম। প্রায় তিন-চার মাস নিজেকে ঘরবন্দি করে রাখার জন্য মানসিক অবসাদে চলে গিয়েছিলাম।’ সেবার মহিলাদের এককে প্রথম রাউন্ডে সানিয়ার বিপক্ষে ছিলেন চেক প্রজাতন্ত্রের ইভেতা বেনেসোভা। সেই ম্যাচে ২-৬ ব্যবধানে প্রথম সেটে হেরে যাওয়ার পর দ্বিতীয় সেটে ১-২ ব্যবধানে পিছিয়ে ছিলেন সানিয়া।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন