‘বাংলাদেশের ফুটবলের বিরুদ্ধে চক্রান্ত’
jugantor
‘বাংলাদেশের ফুটবলের বিরুদ্ধে চক্রান্ত’

  ক্রীড়া প্রতিবেদক  

১৪ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের শুরু থেকেই রেফারিং নিয়ে অভিযোগ করে আসছিলেন বাংলাদেশ দলের স্প্যানিশ কোচ অস্কার ব্রুজোন। বিতর্কিত রেফারিংয়ের চূড়ান্ত রূপ দেখলেন তিনি বুধবার। মালদ্বীপের রাজধানী মালেতে সাফের লিগপর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে নেপালের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে বিদায় নিয়েছে বাংলাদেশ। ম্যাচে দুর্দান্ত কিছু সেভ করা বাংলাদেশ দলের গোলকিপার আনিসুর রহমানকে লাল কার্ড দেখানো হয় তুচ্ছ কারণে। পরে বিতর্কিত পেনাল্টি থেকে গোল করে ম্যাচে সমতা ফেরায় নেপাল।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে রেফারিকে কাঠগড়ায় তুলে অস্কার বলেন, ‘রেফারি আমার খেলোয়াড়দের প্রতি অবিচার করেছেন। তিনি পক্ষপাতদুষ্ট ছিলেন। আমি ভারত ম্যাচের পর থেকেই রেফারিং নিয়ে বলে আসছিলাম। আজ সেটা চূড়ান্ত রূপ নিল।’ তিনি আরও বলেন, ‘আনিসুর বক্সের বাইরে প্রথমে পা দিয়ে বল স্পর্শ করেছে। এরপর বল তার হাতে লেগেছে, সেটি ইচ্ছাকৃত নয়। লাল কার্ড পাওয়ার মতো অপরাধ করেনি সে। পেনাল্টির কথা আর কী বলব। এটি সম্পূর্ণ ভুল সিদ্ধান্ত রেফারির। এরচেয়ে বেশি কিছু বললে আমি এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ হব।’

গত আগস্টে এএফসি কাপে ভারতীয় ক্লাব মোহনবাগানের বিপক্ষে ম্যাচে এভাবেই এক গোলে এগিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত দশজন নিয়ে ড্র করে বসুন্ধরা কিংস। এই ড্রয়ের ফলে কিংসের বদলে মোহনবাগান টুর্নামেন্টের পরের রাউন্ডে ওঠে। দুমাস পর জাতীয় দলেও একই ঘটনার শিকার অস্কার। এই ম্যাচেও তার দল দশজনে পরিণত হয় এবং টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নেয়। দুটি ঘটনা সম্পর্কে অস্কার বললেন, ‘বাংলাদেশের ফুটবলের বিরুদ্ধে এটি চক্রান্ত ছাড়া আর কী হতে পারে। বাংলাদেশের ক্লাব বসুন্ধরা কিংস যেন ভালো অবস্থানে যেতে না পারে সেজন্য এ সিদ্ধান্ত। জাতীয় দলের ক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটল।’

‘বাংলাদেশের ফুটবলের বিরুদ্ধে চক্রান্ত’

 ক্রীড়া প্রতিবেদক 
১৪ অক্টোবর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের শুরু থেকেই রেফারিং নিয়ে অভিযোগ করে আসছিলেন বাংলাদেশ দলের স্প্যানিশ কোচ অস্কার ব্রুজোন। বিতর্কিত রেফারিংয়ের চূড়ান্ত রূপ দেখলেন তিনি বুধবার। মালদ্বীপের রাজধানী মালেতে সাফের লিগপর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে নেপালের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে বিদায় নিয়েছে বাংলাদেশ। ম্যাচে দুর্দান্ত কিছু সেভ করা বাংলাদেশ দলের গোলকিপার আনিসুর রহমানকে লাল কার্ড দেখানো হয় তুচ্ছ কারণে। পরে বিতর্কিত পেনাল্টি থেকে গোল করে ম্যাচে সমতা ফেরায় নেপাল।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে রেফারিকে কাঠগড়ায় তুলে অস্কার বলেন, ‘রেফারি আমার খেলোয়াড়দের প্রতি অবিচার করেছেন। তিনি পক্ষপাতদুষ্ট ছিলেন। আমি ভারত ম্যাচের পর থেকেই রেফারিং নিয়ে বলে আসছিলাম। আজ সেটা চূড়ান্ত রূপ নিল।’ তিনি আরও বলেন, ‘আনিসুর বক্সের বাইরে প্রথমে পা দিয়ে বল স্পর্শ করেছে। এরপর বল তার হাতে লেগেছে, সেটি ইচ্ছাকৃত নয়। লাল কার্ড পাওয়ার মতো অপরাধ করেনি সে। পেনাল্টির কথা আর কী বলব। এটি সম্পূর্ণ ভুল সিদ্ধান্ত রেফারির। এরচেয়ে বেশি কিছু বললে আমি এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ হব।’

গত আগস্টে এএফসি কাপে ভারতীয় ক্লাব মোহনবাগানের বিপক্ষে ম্যাচে এভাবেই এক গোলে এগিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত দশজন নিয়ে ড্র করে বসুন্ধরা কিংস। এই ড্রয়ের ফলে কিংসের বদলে মোহনবাগান টুর্নামেন্টের পরের রাউন্ডে ওঠে। দুমাস পর জাতীয় দলেও একই ঘটনার শিকার অস্কার। এই ম্যাচেও তার দল দশজনে পরিণত হয় এবং টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নেয়। দুটি ঘটনা সম্পর্কে অস্কার বললেন, ‘বাংলাদেশের ফুটবলের বিরুদ্ধে এটি চক্রান্ত ছাড়া আর কী হতে পারে। বাংলাদেশের ক্লাব বসুন্ধরা কিংস যেন ভালো অবস্থানে যেতে না পারে সেজন্য এ সিদ্ধান্ত। জাতীয় দলের ক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটল।’

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন