৮০ বছর বয়সেও মাঠে নামতে প্রস্তুত পেলে!
jugantor
৮০ বছর বয়সেও মাঠে নামতে প্রস্তুত পেলে!

  ক্রীড়া ডেস্ক  

১৬ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দীর্ঘদিন হাসপাতালে থাকার পর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ব্রাজিলীয় ফুটবল কিংবদন্তি পেলে। গত ৪ সেপ্টেম্বর অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে তার কোলনের টিউমার বের করা হয়। এরপর থেকে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন তিনি। হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর বৃহস্পতিবার পেলে জানালেন, এখন পুরোপুরি সুস্থ আছেন।

হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করতে ভোলেননি তিনি। ইনস্টাগ্রামে এক ভিডিওতে বলেন, ‘ঈশ্বরকে অশেষ ধন্যবাদ যে আমি সুস্থ। মাঠে নেমে ফুটবল খেলতে প্রস্তুত। রোববারের অপেক্ষায় আছি। আমার অসুস্থতার সময়ে আপনাদের যে শুভকামনা পেয়েছি তা আমার মনোবল বাড়িয়ে দিয়েছে, আমাকে শক্তিশালী করেছে। আপনাদের অশেষ ধন্যবাদ।’

এর আগে হাসপাতালে পেলে চিকিৎসাধীন থাকার সময় এক ইনস্টাগ্রাম বার্তায় তার মেয়ে কেলি নাসিমেন্টো লিখেছিলেন, ‘বাবা সুস্থ হয়ে উঠছেন। কয়েকদিনের মধ্যে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাবেন। তবে বাড়িতে চিকিৎসা চালিয়ে যেতে হবে।’ ব্রাজিল জাতীয় দল, সান্তোস ও নিউইয়র্ক কসমসে চোট পাওয়া পেলেকে এ বয়সে বেশ ভুগতে হচ্ছে। বছরের পর বছর ধরে নিতম্বের সমস্যায় ভুগছেন। সাহায্য ছাড়া চলাফেরা করতে পারেন না এখন। ব্রাজিলের হয়ে ১৯৫৮, ১৯৬২ ও ১৯৭০ বিশ্বকাপ জেতা পেলে ৯২ ম্যাচে ৭৭ গোল করে এখনও দেশটির ইতিহাসে সর্বোচ্চ গোলদাতা। চারটি বিশ্বকাপে গোল করা মাত্র চারজন খেলোয়াড়ের একজন তিনি।

৮০ বছর বয়সেও মাঠে নামতে প্রস্তুত পেলে!

 ক্রীড়া ডেস্ক 
১৬ অক্টোবর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দীর্ঘদিন হাসপাতালে থাকার পর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ব্রাজিলীয় ফুটবল কিংবদন্তি পেলে। গত ৪ সেপ্টেম্বর অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে তার কোলনের টিউমার বের করা হয়। এরপর থেকে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন তিনি। হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর বৃহস্পতিবার পেলে জানালেন, এখন পুরোপুরি সুস্থ আছেন।

হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করতে ভোলেননি তিনি। ইনস্টাগ্রামে এক ভিডিওতে বলেন, ‘ঈশ্বরকে অশেষ ধন্যবাদ যে আমি সুস্থ। মাঠে নেমে ফুটবল খেলতে প্রস্তুত। রোববারের অপেক্ষায় আছি। আমার অসুস্থতার সময়ে আপনাদের যে শুভকামনা পেয়েছি তা আমার মনোবল বাড়িয়ে দিয়েছে, আমাকে শক্তিশালী করেছে। আপনাদের অশেষ ধন্যবাদ।’

এর আগে হাসপাতালে পেলে চিকিৎসাধীন থাকার সময় এক ইনস্টাগ্রাম বার্তায় তার মেয়ে কেলি নাসিমেন্টো লিখেছিলেন, ‘বাবা সুস্থ হয়ে উঠছেন। কয়েকদিনের মধ্যে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাবেন। তবে বাড়িতে চিকিৎসা চালিয়ে যেতে হবে।’ ব্রাজিল জাতীয় দল, সান্তোস ও নিউইয়র্ক কসমসে চোট পাওয়া পেলেকে এ বয়সে বেশ ভুগতে হচ্ছে। বছরের পর বছর ধরে নিতম্বের সমস্যায় ভুগছেন। সাহায্য ছাড়া চলাফেরা করতে পারেন না এখন। ব্রাজিলের হয়ে ১৯৫৮, ১৯৬২ ও ১৯৭০ বিশ্বকাপ জেতা পেলে ৯২ ম্যাচে ৭৭ গোল করে এখনও দেশটির ইতিহাসে সর্বোচ্চ গোলদাতা। চারটি বিশ্বকাপে গোল করা মাত্র চারজন খেলোয়াড়ের একজন তিনি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন