তিতের তেলেসমাতি

প্রতিপক্ষ দলগুলোর ওপর ব্রাজিলের গোয়েন্দাগিরি!

রাশিয়া বিশ্বকাপ বাকি আর ২১ দিন

  যুগান্তর ডেস্ক    ২৪ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ব্রাজিল,

২০০২ বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর পেরিয়ে গেছে আরও তিনটি বিশ্বকাপ। ষষ্ঠ বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্ন অধরাই রয়ে গেছে ব্রাজিলের। এর মাঝে একবারও ওঠা হয়নি ফাইনালে।

ঘরের মাঠে শেষ বিশ্বকাপটা তো ভুলে যেতে পারলেই বেঁচে যায় তারা। জার্মানির উপহার দেয়া সেই দুঃস্বপ্ন ভুলতে চাই সোনালি ট্রফির ছোঁয়া। ‘হেক্সা’ জয়ের মিশনে এবার তাই কোমর কষে মাঠে নেমেছে ব্রাজিল। তাদের বিশ্বকাপ প্রস্তুতি শুধু অনুশীলনে সীমাবদ্ধ নেই।

তেরেসোপোলিসের গ্রানজা কোমারি ট্রেনিং কমপ্লেক্সে নেইমাররা যখন অনুশীলনে ব্যস্ত, ব্রাজিলের একঝাঁক স্কাউট তখন প্রতিপক্ষের হাঁড়ির খবর সংগ্রহে চষে বেড়াচ্ছেন ইউরোপ-আমেরিকা। ষষ্ঠ বিশ্বকাপ জয়ের মিশনে দেশের ১৯টি ক্লাবকে সম্পৃক্ত করেছে ব্রাজিল ফুটবল ফেডারেশন। ড্র’র পরপরই বিশ্বকাপে ব্রাজিলের সব প্রতিপক্ষ দলের ওপর গোয়েন্দাগিরির দায়িত্ব দেয়া হয় ক্লাবগুলোকে।

ব্রাজিলীয় ক্লাবগুলোর অসংখ্য স্কাউট রয়েছে। প্রতিটি ক্লাবের নির্বাচিত প্রতিনিধিরা একটি নির্দিষ্ট দলের সব ম্যাচ দেখছেন। তাদের গতিবিধি অনুসরণ করে রণকৌশল বোঝার চেষ্টা করছেন। পাশাপাশি চলছে গোপন তথ্য সংগ্রহ ও পরিসংখ্যান বিশ্লেষণের কাজ। প্রতিপক্ষের শক্তি, দুর্বলতা চিহ্নিত করে বিস্তারিত জানিয়ে দেয়া হচ্ছে জাতীয় দলের কোচ তিতেকে।

কিছু ক্লাব শুধু ভিডিও ও পরিসংখ্যান দেখে স্কাউটিং প্রতিবেদন জমা দিচ্ছে। ঠিক কোন ধরনের তথ্য লাগবে তার একটি ফরম্যাট ঠিক করে দিয়েছে ব্রাজিল ফুটবল ফেডারেশন। তবে প্রয়োজনে নতুন কিছু যোগ করার স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে ক্লাবগুলোকে।

রাশিয়া বিশ্বকাপে ব্রাজিলের গ্রুপে রয়েছে কোস্টারিকা, সুইজারল্যান্ড ও সার্বিয়া। এর মধ্যে তিতের হাতে কোস্টারিকাকে নিয়ে প্রতিবেদন তুলে দিয়েছেন অ্যাভাই ক্লাবের প্রতিনিধিরা। সুইজারল্যান্ডের ওপর নজর রাখছে গ্রেমিও এবং সার্বিয়াকে পর্যবেক্ষণ করছে স্পোর্ট। এ সপ্তাহেই তাদের কাছ থেকে প্রতিবেদন পাবেন তিতে।

বাকি ১৬টি ক্লাব বিশ্বকাপের আরও ২৪টি দলের ওপর নজর রাখছে। যারা নকআউট পর্বে ব্রাজিলের সম্ভাব্য প্রতিপক্ষ হতে পারে। অবশ্য যে দল নিয়ে এবার রাশিয়ায় যাচ্ছে ব্রাজিল, বিশ্বকাপ জেতার জন্য সেটাই হয়তো যথেষ্ট।

আক্ষরিক অর্থেই চ্যাম্পিয়নে ঠাসা দল। ব্রাজিলের ২৩ সদস্যের বিশ্বকাপ দলের ১৪ জনই এবার নিজ নিজ ক্লাবের হয়ে লিগ শিরোপা জিতেছেন। এদের বাইরে দু’জন জিতেছেন মহাদেশীয় শিরোপা। আরও তিনজন খেলবেন আগামী শনিবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে।

হাতেগোনা যে দু’একজন শিরোপা জিততে পারেননি, তারাও ফর্মের তুঙ্গে থেকে যোগ দিয়েছেন বিশ্বকাপ ক্যাম্পে। যেমন রোমার গোলকিপার অ্যালিসন। চেলসির উইলিয়ান জিতেছেন এফএ কাপ।

লিগ চ্যাম্পিয়নদের মধ্যে আছেন বার্সেলোনার কুতিনহো ও পাউলিনহো, ম্যানসিটির জেসুস, ফার্নান্দিনহো, দানিলো ও এদেরসন, পিএসজির নেইমার, থিয়াগো সিলভা ও মারকুইনহোস, জুভেন্টাসের দগলাস কস্তা, শাখতার দনেৎস্কের তাইসন ও ফ্রেড এবং করিন্থিয়ান্সের ক্যাসিও ও ফাগনার।

ফিলিপ লুইস ইউরোপা লিগ ও পেড্রো গেরোমেল জিতেছেন কোপা লিবার্তাদোরেস। এছাড়া চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে খেলবেন মার্সেলো, কাসেমিরো ও ফিরমিনো। এমন নক্ষত্রখচিত দল আর কয়টি আছে? ওয়েবসাইট।

ঘটনাপ্রবাহ : বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১৮

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter