পড়াশোনায় ‘জিরো’ ফুটবলে ‘হিরো’

  যুগান্তর ডেস্ক    ০২ জুন ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

উসমান দেম্বেলে
উসমান দেম্বেলে

ফুটবল পায়ে চমক দেখাতে ভালোবাসেন। তাই সবাই তাকে ডাকে ‘ওয়ান্ডার কিড’ বলে। কিন্তু বার্সেলোনায় আসার পর থেকে এখনও কোনো বিস্ময়ের জন্ম দিতে পারেননি। আসন্ন বিশ্বকাপে তার দেশের হয়ে প্রত্যেক ম্যাচে নামবেনই, এমন নিশ্চয়তাও দেয়া যাচ্ছে না।

কিন্তু উসমান দেম্বেলের সম্ভাবনা রয়েছে বিশ্বকাপের অন্যতম তারকা হয়ে ওঠার। উত্তর ফ্রান্সের ভার্ননে জন্ম দেম্বেলের। বাবা-মা দু’জনেই পশ্চিম আফ্রিকার মৌরিতানিয়া থেকে এসেছিলেন ফ্রান্সে। ছোটবেলায় শান্ত ছিলেন দেম্বেলে। কিন্তু ফুটবল বলতে পাগল।

এতটাই যে, ছোটবেলায় বাবা-মাকে নাকি বলে দিয়েছিলেন, পড়াশোনা করতে চান না। শুধু ফুটবল খেলতে চান। অবাক হয়েছিলেন তার বাবা উসমান এবং মা ফতিমাতা। ছেলের আগ্রহ দেখে খুশিও হয়েছিলেন। তার অন্যতম কারণ, দেম্বেলের ভাইবোন পড়াশোনায় খুবই ভালো ছিলেন। তাই পরিবারের ছোট ছেলে ফুটবল খেলুক, এটাই ছিল দেম্বেলের বাবা-মা’র ইচ্ছা।

মাত্র ছয় বছর বয়সে মায়ের সঙ্গে রেনেতে চলে এসেছিলেন চাচা সামবাগের সঙ্গে থাকতে। সামবাগ পেশাদার ফুটবলার ছিলেন। ছোট দেম্বেলের কাছে চাচাই তখন রোলমডেল। চাচার কাছেই ফুটবলে হাতেখড়ি। মাত্র সাত বছর বয়সেই স্থানীয় ম্যাডেলেন এভ্রিক্স ক্লাবের যুব একাডেমিতে ভর্তি হয়ে যান।

সেই শুরু। ২০১০-এ দেম্বেলে যোগ দেন রেনের দ্বিতীয় ডিভিশনে। এরপর প্রথম ডিভিশনেও খেলেন। ফ্রান্সের ঘরোয়া লিগে রীতিমতো আলোড়ন ফেলে দিয়েছিলেন। থিয়েরি অঁরি ও অ্যান্থনি মার্শালের পর তরুণতম ফুটবলার হিসেবে ১০ গোলের গণ্ডি টপকান। ছয় বছর রেনেসে কাটানোর পর দেম্বেলে যোগ দেন বরুশিয়া ডর্টমুন্ডে।

এর মধ্যেই তার নামের সঙ্গে অনেকের তুলনা শুরু হয়ে গেছে। কেউ কেউ তাকে নেইমারের সঙ্গে তুলনা করছেন। আবার কেউ বলছেন তরুণ বয়সের রোনাল্ডো। ডর্টমুন্ডে আসার পর তৎকালীন কোচ পিটার বস?জ তাকে একটু পেছন থেকে খেলাতে শুরু করেন। ফলও পান।

৫০ ম্যাচে ১০ গোল করলেও দেম্বেলের অ্যাসিস্ট থেকে গোল করেননি, ডর্টমুন্ডে এমন ফুটবলার খুঁজে পাওয়া মুশকিল ছিল। মোট ২১টি অ্যাসিস্ট করেছিলেন তিনি। দেম্বেলের উত্থান চোখে পড়েছিল বার্সেলোনার। নেইমার আচমকা চলে যাওয়ায় তার পরিবর্ত খুঁজতে উঠেপড়ে লেগেছিল বার্সা।

তাই প্রচুর অর্থের বিনিময়ে দেম্বেলেকে কিনে নেয় তারা। তবে স্প্যানিশ ক্লাবে আসার পর সেভাবে নিজের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি দেম্বেলে। তাছাড়া তাকে প্রথম একাদশে রাখার মতো জায়গাও ফাঁকা নেই। বরং ফিলিপে কুতিনহো এসে অনেকটাই নেইমারের খামতি মিটিয়ে দিয়েছেন।

সামনের মৌসুমে তাকে অন্য কোনো ক্লাবে লোনে পাঠিয়ে দেয়া হবে, এমনটাই মত অনেকের। সেই সিদ্ধান্ত বদলানোর জন্য বিশ্বকাপটাই সেরা মঞ্চ দেম্বেলের। ওয়েবসাইট।

ঘটনাপ্রবাহ : বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১৮

 

 

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]mail.com

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter