সুমি যাচ্ছেন এশিয়াডে সোনাঝরা হাসি নিয়ে

  স্পোর্টস রিপোর্টার ২৯ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অ্যাথলেট সুমি আক্তার
বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অ্যাথলেট সুমি আক্তার

এক মিটেই চার স্বর্ণ। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের ট্র্যাকে এমন সোনা ফলিয়েছেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অ্যাথলেট সুমি আক্তার। ৪০০, ৮০০, ১৫০০ ও তিন হাজার মিটার দৌড়ে স্বর্ণপদক জেতেন তিনি।

অবশ্য গেল বছরের ডিসেম্বরেও জাতীয় সিনিয়র মিটে এ চারটি ইভেন্টেই স্বর্ণ জিতেছিলেন সুমি। যার ফল হিসেবে জাকার্তা এশিয়ান গেমসের ট্র্যাকে খেলার সুযোগ পাচ্ছেন। অতীতে মহিলা অ্যাথলেটদের এমন রেকর্ড থাকলেও সাম্প্রতিক বছরগুলোয় অধরাই ছিল এক মিটে চার স্বর্ণের স্বপ্ন।

সুমি খুশির খবর দিলেও হতাশ করেছেন এশিয়াডগামী দলের আরেক অ্যাথলেট আবু তালেব। ৪০০ মিটার স্প্রিন্টে ব্রোঞ্জ জিতেছেন সেনাবাহিনীর এই অ্যাথলেট।

১০০ মিটার স্প্রিন্টে শিরিন আক্তারকে রুখে দিতে ব্যর্থ হন নৌবাহিনীর সোহাগী আক্তার। কিন্তু সেই প্রতিশোধ নিয়ে নেন ২০০ মিটার স্প্রিন্টে। সতীর্থ এবং দেশের দ্রুততম মানবী শিরিন আক্তারকে (২৫.২০ সেকেন্ড) পেছনে ফেলে ঠিকই স্বর্ণপদক জেতেন সোহাগী (২৫.১০ সেকেন্ড)। তাই শিরিন আক্তারকে হারিয়ে তৃপ্তির হাসি তার মুখে, ‘ভালো লাগছে ২০০ মিটারে স্বর্ণ জিততে পেরে।

কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে হয়েছে। শিরিন আপু কিছুটা সময় এগিয়ে ছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তাকে হারাতে পেরে ভালো লাগছে।’ পুরুষদের এই ইভেন্টে স্বর্ণপদক জিতেছেন বিকেএসপির জহির রায়হান। তার টাইমিং ২১.৭০ সেকেন্ড।

রুপাজয়ী সেনাবাহিনীর শরীফের ২২.২০ এবং নৌবাহিনীর আবদুর রউফের সময় ছিল ২৬.৬০ সেকেন্ড। সোনা জেতার পর জহির রায়হানের কথা, ‘ইনজুরিতে পড়েছিলাম। ইনজুরি থেকে ফিরে বাড়তি পরিশ্রম করেছি।

পরিশ্রমের ফসল হিসেবে প্রথম হতে পেরে ভালোই লাগছে।’ তবে অতৃপ্তির কথাও জমা রয়েছে তার বুকে। জহিরের কথায়, ‘আমার প্রিয় ইভেন্ট ৪০০ মিটার। সেই ইভেন্টে রেকর্ড করার ইচ্ছা ছিল। রেকর্ড না করতে পেরে কিছুটা খারাপ লাগছে।’ ৪০০ মিটার ইভেন্টে স্বর্ণপদক জিততে জহির সময় নেন ৪৮.১০ সেকেন্ড।

আগে অলিম্পিক, এশিয়ান কিংবা কমনওয়েলথের মতো বড় আসরে সাধারণত ১০০ মিটার স্প্রিন্টারদেরই পাঠাত ফেডারেশন। এবার একটু ভিন্ন পথেই যেন হাঁটছেন কর্মকর্তারা। জাকার্তা এশিয়ান গেমসে পাঠানো হচ্ছে ৪০০ মিটার স্প্রিন্টার।

ইন্দোনেশিয়ায় বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করবেন সেনাবাহিনীর দুই অ্যাথলেট সুমি আক্তার ও আবু তালেব। তারা দু’জনই অলিম্পিকের তত্ত্ববধানে অনুশীলনে ছিলেন। এবারের মিটে সরাসরি তারা অংশ নিচ্ছেন।

তালেব ৪০০ মিটারে তৃতীয় হলেও সুমী আক্তার প্রথম হয়েছেন। সোনাঝরা হাসি নিয়েই এশিয়াডে যাচ্ছেন সুমি আক্তার। তার কথায়, ‘ডিসেম্বরেও আমি চারটি স্বর্ণপদক জিতেছিলাম। এবারও জিতলাম। খুব ভালো লাগছে। দেশের মতো ইন্দোনেশিয়ায়ও ভালো করতে চাই। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন।’

এদিকে শুক্রবার সন্ধ্যায় একটি ইভেন্টের ফল নিয়ে দু’সংস্থার মধ্যে খানিকটা অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে। এজন্য কাল বাড়তি সতকর্তা ছিল স্টেডিয়ামে। ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুর রকিব মন্টু বলেন, ‘অনেক প্রতিকূলতার মধ্যে গ্রীষ্মকালীন অ্যাথলেটিক্স

করেছি। বেশ সাড়া পেয়েছি সর্বস্তর থেকে। তাই অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলেও এ নিয়ে ভিন্ন কিছু ভাবার অবকাশ নেই।’

 

 

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter