তীরন্দাজদের নিশানা বাড়াতে তীরের বৃত্তি

  স্পোর্টস রিপোর্টার ১২ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

তীর,

চুক্তিটা পাঁচ বছরের। কিন্তু প্রত্যেক বছর তীরন্দাজদের পারফরম্যান্সের ওপর নির্ভর করবে পৃষ্ঠপোষক তীরের সহায়তা। গেল এক বছরে সেই লক্ষ্য অনেকাংশেই পূরণ করেছেন দেশের আরচাররা। তাই দ্বিতীয় বছরে আরচারি ফেডারেশনের সঙ্গে চুক্তি সই করল সিটি গ্রুপ।

নতুন বছরে দুই কোটি ২০ লাখ টাকা দেবে প্রতিষ্ঠানটি। সেই সঙ্গে নয়জন আরচারকে বৃত্তিও দিয়েছে তীর। শনিবার বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের (বিওএ) ডাচ্-বাংলা অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান সিটি গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক (মার্কেটিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স) শোয়েব মো. আসাদুজ্জামান।

এ সময় আরচারি ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক কাজী রাজীবউদ্দিন আহমেদ চপল ও জার্মান কোচ মার্টিন ফ্রেডরিক উপস্থিত ছিলেন। ‘তীর গো ফর গোল্ড’ এ স্লোগান নিয়েই আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পদকের জন্য লড়াই করছেন দেশের তীরন্দাজরা। গেল এক বছরে ইসলামিক সলিডারিটি গেমস, এশিয়ান আরচারি চ্যাম্পিয়নশিপ এবং সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে বেশ ক’টি স্বর্ণপদক জেতেন দেশের আরচাররা। তাই নতুন বছরে পৃষ্ঠপোষকতার অর্থ বাড়ে ৪০ লাখ টাকা।

আগামী এক বছর বিভিন্ন ঘরোয়া আসর ও আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণের জন্য প্রায় দুই কোটি ২০ লাখ টাকা পাবে আরচারি ফেডারেশন। গত বছর এশিয়ান আরচারি চ্যাম্পিয়নশিপ, জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপ এবং তৃণমূল থেকে প্রতিভা বাছাই অন্বেষণে স্পন্সর করেছে সিটি গ্রুপ। এর বাইরে খেলোয়াড়দের ক্যাম্প, থাকা-খাওয়া, কোচিং স্টাফদের বেতন সব মিলে প্রায় দুই কোটি টাকা খরচ করেছে স্পন্সর প্রতিষ্ঠান।

রোমান সানা, রোকসানা আক্তার, অসীম কুমার দাস, একে মামুনদের মতো আরচাররা হতাশ করেননি। বিভিন্ন প্রতিযোগিতা থেকে নয়টি স্বর্ণ উপহার দিয়েছেন তারা। ১৯ জন আরচারকে নিয়ে এখন জাতীয় দলের নিয়মিত ক্যাম্প চলছে। এই ১৯ জনের মধ্যে ৯ জন আনসার ও সেনাবাহিনীসহ বিভিন্ন সংস্থায় কর্মরত রয়েছেন। ভাতাও পাচ্ছেন নিয়মিত।

কিন্তু বাকিরা বছরব্যাপী ক্যাম্পে থাকলেও কোনো আর্থিক সুযোগ-সুবিধা পেতেন না। সিটি গ্রুপ বাকি ১০ জন আরচারকে মাসিক ৫ হাজার টাকা করে বৃত্তি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সিটি গ্রুপের এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছে আরচারি ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক কাজী রাজিব উদ্দিন আহমেদ চপল।

তার কথায়, ‘আরচারদের পারফরম্যান্স ভালো হওয়াতে সিটি গ্রুপ আমাদের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে। গত এক বছর আমাদের আরচাররা বিভিন্ন প্রতিযোগিতা থেকে নয়টি স্বর্ণ পদক এনে দিয়েছে। আমাদের পাশে থাকার জন্য স্পন্সর প্রতিষ্ঠানকে ধন্যবাদ।’ স্পন্সর প্রতিষ্ঠানকে ধন্যবাদ জানান জাতীয় দলের জার্মান কোচ মার্টিন ফ্রেডরিকও।

 

 

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter