খেই হারিয়েছেন তালেব

প্রকাশ : ২৬ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক   

৪০০ মিটার স্প্রিন্টে পেছনের দিকে বাংলাদেশের আবু তালেব (ডান থেকে দ্বিতীয়)। ছবি সংগৃহীত

বড় মঞ্চে এসে যেন খেই হারিয়ে ফেলছেন বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা। এশিয়ান গেমসের প্রায় প্রতিটি ইভেন্টেই হতাশ করছেন তারা। বাদ যায়নি অ্যাথলেটিক্সও। ৪০০ মিটার স্প্রিন্টে নিজের সেরা টাইমিংকেও ছাড়িয়ে যেতে পারেননি আবু তালেব। বরং দু’সেকেন্ড সময় বেশি নিয়েছেন। আর ২৮ জনের মধ্যে হয়েছেন ২৭তম।

গত নয় মাসে মুদ্রার দু’পিঠই দেখেছেন সেনাবাহিনীর অ্যাথলেট আবু তালেব। ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত জাতীয় সিনিয়র অ্যাথলেটিক্সের ৪০০ মিটার স্প্রিন্টে ৪৮.৯০ সেকেন্ড সময় নিয়ে স্বর্ণপদক জিতেছিলেন তিনি। কিন্তু জুলাইয়ে অনুষ্ঠিত সামার অ্যাথলেটিক্স মিটে হতাশ করেন তালেব। এই ইভেন্টে ৫০.২০ সেকেন্ড সময় নিয়ে ব্রোঞ্জ জিতেছিলেন। এশিয়াডে নাম আগেভাগে পাঠিয়ে দেয়াতেই খেলতে পারছেন তিনি। তাছাড়া ইনজুরি এশিয়াডে খেলার স্বপ্ন ছিনিয়ে নিয়েছে জহির রায়হানের। আর সুযোগ করে দিয়েছে আবু তালেবকে। গত বছর কেনিয়ায় অনুষ্ঠিত যুব বিশ্ব অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপে ৪০০ মিটার স্প্রিন্টে ৪৮ সেকেন্ড সময় নিয়ে চমক দেখিয়েছিলেন জহির।

শনিবার জিবিকে মেইন স্টেডিয়ামে ৪০০ মিটার দৌড়ে ট্র্যাকে নামেন আবু তালেব। তিনি দাঁড়িয়েছিলেন তিন নম্বর লেনে। হিটে ছিলেন সাতজন অ্যাথলেট। কিন্তু দৌড়ের শুরুতেই তিনি পিছিয়ে পড়েন। এরপর আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেননি। শেষ করতে হয়েছে সবার শেষে থেকেই। ফিনিশিং লাইন স্পর্শ করেন ৫০.৯৭ সেকেন্ড সময় নিয়ে। এমন পারফরম্যান্স হয়তো আশা করেননি আবু তালেব নিজেও। প্রত্যাশা ছিল অন্তত নিজের সেরা টাইমিং ছাড়িয়ে যাওয়ার। সে স্বপ্নটা কাল পূরণ হয়নি। বরং আরও বেশি সময় নিয়েছেন।

দৌড় শেষে হতাশ আবু তালেব বলেন, ‘এটাই আমার প্রথম আন্তর্জাতিক আসর। আমি মোটেও ভালো করতে পারিনি। নিজের টাইমিং নিয়ে সন্তুষ্ট নই। ফিনিশিং আরও ভালো করা উচিত ছিল। জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপে আমার সেরা টাইমিং ছিল ৪৮ দশমিক ৯০ সেকেন্ড। কিন্তু আজ সেটাও আমি করতে পারিনি। এশিয়ান গেমসে আসার জন্য আমার প্রস্তুতি বেশ ভালোই ছিল। কিন্তু আসার কিছু দিন আগে আমি বেশ কিছুদিন অসুস্থ ছিলাম। আসার পরও ঠিকমতো অনুশীলন করতে পারিনি অসুস্থতার কারণে। আমার বাঁ-পায়ের মাসলের দিকে ব্যথা ছিল। সে ব্যথা নিয়েই ট্র্যাকে নেমেছিলাম। সব মিলিয়ে আমি হতাশ।’