জিদানকে টপকে গেলেন জিরু

১০ ম্যাচ ও ৬৯৮ মিনিট পর ফ্রান্সের জার্সিতে গোলের দেখা পেলেন ৩১ বছর বয়সী চেলসি ফরোয়ার্ড

প্রকাশ : ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  এএফপি/গোল ডটকম

করিম বেনজেমা, অ্যান্থনি মার্শাল ও লাকাজেত্তেকে উপেক্ষা করে অলিভিয়ের জিরুকে বিশ্বকাপ দলে রাখায় প্রবল সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন ফ্রান্সের কোচ দিদিয়ের দেশম। শেষ পর্যন্ত রাশিয়া বিশ্বকাপে ফ্রান্স অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হলেও গোটা আসরে জিরু ছিলেন গোলহীন।

অবশেষে কাটল সেই দীর্ঘ খরা। ১০ ম্যাচ ও ৬৯৮ মিনিট পর ফ্রান্সের জার্সিতে গোলের দেখা পেলেন ৩১ বছর বয়সী চেলসি ফরোয়ার্ড। দেশের হয়ে গোল সংখ্যায় ছাড়িয়ে গেলেন কিংবদন্তি জিনেদিন জিদানকে। আর জিরুদের এ গোলেই বিশ্বকাপ জয়ের পর ঘরের মাঠে নিজেদের প্রথম ম্যাচে শেষ হাসি হাসল ফ্রান্স।

রোববার প্যারিসে উয়েফা নেশন্স লিগের ম্যাচে নেদারল্যান্ডসকে ২-১ গোলে হারিয়েছে বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। গত সপ্তাহে মিউনিখে নেশন্স লিগে নিজেদের প্রথম ম্যাচে সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন জার্মানির সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করেছিল ফ্রান্স। রোববার জার্মানিও ফিরেছে জয়ের ধারায়। তবে নেশন্স লিগে নয়, নিখাদ প্রীতি ম্যাচে ঘরের মাঠে পেরুকে ২-১ গোলে হারিয়েছে জোয়াচিম লো’র দল।

নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে গত পরশু রাতের ম্যাচটি ছিল ফ্রান্সের বিশ্বকাপজয়ী দলের জন্য এক ধরনের পুনর্মিলনী। ম্যাচ শেষে প্রায় ৮০ হাজার দর্শকের সামনে বিশ্বকাপ জয়ের কীর্তি ঘটা করে উদযাপন করেন এমবাপ্পে, গ্রিজমানরা। জিততে না পারলে উৎসবের এ পর্বটা এত রঙিন হতো না।

সেজন্য কিলিয়ান এমবাপ্পে ও জিরু বিশেষ ধন্যবাদ পেতেই পারেন। ১৪ মিনিটে এমবাপ্পের গোলেই এগিয়ে যায় ফ্রান্স। ৬৭ মিনিটে নেদারল্যান্ডসকে সমতায় ফিরিয়েছিলেন রায়ান বাবেল। কিন্তু সেই সমতা বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। ৭৫ মিনিটে বেনজামিন মেন্দির ক্রস থেকে দুর্দান্ত এক গোলে প্যারিসের গ্যালারিতে উৎসবের ঢেউ তুলে দেন জিরু।

৩২তম গোলে জিদানকে (৩১) টপকে জিরু এখন এককভাবে ফ্রান্সের চতুর্থ সর্বোচ্চ গোলদাতা। ফ্রান্সের জার্সিতে তার চেয়ে বেশি গোল করেছেন শুধু ডেভিড ত্রেজেগুয়ে (৩৪), মিশেল প্লাতিনি (৪১) ও থিয়েরি অঁরি (৫১)। নেশন্স লিগের আরেক ম্যাচে ক্রিশ্চিয়ান এরিকসেনের জোড়া গোলে গ্যারেথ বেলের ওয়েলসকে ২-০ ব্যবধানে হারিয়েছে ডেনমার্ক।

ঘরের মাঠে প্রীতি ম্যাচে জার্মানিও অঘটনের শঙ্কা জাগিয়ে তুলেছিল। লুইস আনভিনকুলার গোলে ২২ মিনিটেই এগিয়ে যায় পেরু। ২৫ মিনিটে ইউলিয়ান ব্রান্ডট ম্যাচে সমতা ফেরানোর পর ৮৫ মিনিটে অভিষিক্ত নিকো মুলজের গোলে স্বস্তির জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে জার্মানি। এটি ছিল জার্মানির কোচ হিসেবে জোয়াচিম লোর রেকর্ড ছোঁয়া ১৬৭তম ম্যাচ।