ভারত-মালদ্বীপ ফাইনাল

ভারত ৩ : ১ পাকিস্তান * মালদ্বীপ ৩ : ০ নেপাল

  স্পোর্টস রিপোর্টার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ভারতের গোল উদযাপন
ভারতের গোল উদযাপন। পাকিস্তানের বিপক্ষে সাফ সুজুকি কাপ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিফাইনালে। বুধবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে -যুগান্তর

ধারে-ভারে, পরিসংখ্যানে-পারফরম্যান্সে এবং র‌্যাংকিংয়ে ভারত ঢের এগিয়ে পড়শি পাকিস্তানের চেয়ে। এবারের সাফ ফুটবলে যদিও খেলছে ভারতের অনূর্ধ্ব-২৩ দল। এই দল নিয়েই ভারত পৌঁছে গেল ফাইনালে। সেমিফাইনালে তারা ৩-১ গোলে হারিয়েছে পাকিস্তানকে। মানভির সিংয়ের জোড়া গোলের সঙ্গে বদলি সুমিত পাসির লক্ষ্যভেদে ফাইনালের টিকিট পেয়ে যায় স্টিফেন কন্সট্যান্টাইনের দল। পাকিস্তানের একমাত্র গোলদাতা হাসান বশির। সাফ ফুটবলের ফাইনালে এ নিয়ে রেকর্ড ১১ বার খেলছে ভারত। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ভারত ফাইনালে খেলবে মালদ্বীপের বিপক্ষে। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে দিনের প্রথম সেমিফাইনালে মালদ্বীপ ৩-০ গোলে জয়ী হয় নেপালের বিপক্ষে।

ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের অন্তিম সময়ে দশজনের দলে পরিণত হয় দু’দলই। একপর্যায়ে দু’দলের ফুটবলারদের মধ্যে হাতাহাতি শুরু হয়। ফলে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছেড়ে বেরিয়ে যেতে হয় পাকিস্তানের মহসিন আলী ও ভারতের লালিয়ান জুয়ালাকে। ভারত-পাকিস্তান লড়াই মানে অন্যরকম এক উত্তেজনা। গ্যালারিতে দর্শক থাকবেই। থাকবে কথার লড়াই। কাল বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামেও দেখা গেছে একই চিত্র। স্বাগতিক বাংলাদেশ গ্রুপপর্ব থেকে ছিটকে পড়ার পরও প্রায় হাজারপাঁচেক দর্শক উপস্থিত ছিলেন সেমিফাইনালে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দুই দলের লড়াই দেখতে। প্রিয় দলের পতাকা, ভুভুজেলা আর ঢোল-বাদ্য নিয়ে গ্যালারি মাতিয়ে রাখেন তারা। কর্দমাক্ত মাঠে শুরু থেকেই চেপে ধরে পাকিস্তানকে। একের পর এক আক্রমণ শানালেও প্রথমার্ধে গোলের মুখ দেখেনি তারা।

দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে নেমেই গোলের দেখা পেয়ে যায় সাতবারের চ্যাম্পিয়নরা। বাঁ প্রান্ত দিয়ে মিডফিল্ডার আশিকের মাইনাসে দারুণ এক প্লেসিংয়ে বল জালে জড়িয়ে দলকে উৎসবে মাতিয়ে তোলেন মানভির সিং (১-০)। ২১ মিনিট পর ব্যবধান দ্বিগুণ করেন মানভির। দু’মিনিট আগে বদলি হিসেবে মাঠে নামা লালিয়ান জুয়ানা চাংতের পাসে বল পেয়ে যান ভিনিত রায়। তার মাইনাসে নিশানা ভেদ করেন এই ফরোয়ার্ড (২-০)। এরপরও যেন গোলের ক্ষুধা থামছিল না ভারতের। ম্যাচ শেষ হওয়ার ছয় মিনিট আগে বাঁ দিক থেকে আশিক কুরুনিয়ার লবে দৌড়ে এসে দারুণ এক হেডে গোল করেন বদলি হিসেবে মাঠে নামা সুমিত পাসি (৩-০)। দু’মিনিট পর দু’দলের খেলোয়াড়রা হাতাহাতিতে লিপ্ত হন। অবৈধ বাধাকে কেন্দ্র করে লালিয়ান জুয়ানা চাংতে পাকিস্তানি এক ফুটবলারকে ঘুষি মারেন। সঙ্গে সঙ্গে দৌড়ে এসে তাকে পাল্টা আঘাত করেন পাকিস্তানি মহসীন আলী। রেফারি শিভাকর দু’জনকেই লাল কার্ড দেখিয়ে মাঠ থেকে বের করে দেন। ম্যাচের ৮৮ মিনিটে একটি গোল পরিশোধ করে পাকিস্তান। হাসান বশির বাঁ পায়ের শটে গোল করে ব্যবধান কমান (৩-১)।

প্রথম সেমিফাইনালে হিমালয় দুহিতাদের হারিয়ে ফাইনালে ওঠে মালদ্বীপ। গ্রুপপর্বে জয় দূরে থাক, একটি গোলও নেই। পয়েন্ট মাত্র এক। তা-ও আবার টস-ভাগ্যে শ্রীলংকাকে বিদায় করে সেমিফাইনালে ওঠে মালদ্বীপ। সেই দলটির কি বিধ্বংসী চেহারা। টুর্নামেন্টের অন্যতম ফেভারিট নেপালকে ছত্রখান করে দিল। একে একে তিনটি গোল করে ফাইনালে নেপালের খেলার স্বপ্ন ভেঙে চুরমার করে দিয়েছে দ্বীপদেশ।

সাফে কখনই নেপালের কাছে হারের রেকর্ড নেই মালদ্বীপের। সেই রেকর্ডটা এবারও অক্ষুণ্ণ রইল। ম্যাচের শুরু থেকেই নেপালের বিপদসীমানায় আক্রমণ শানাতে থাকে মালদ্বীপ। যার ফল পায় ম্যাচের মাত্র ৯ মিনিটেই। বক্সের বাইরে আলী ফাসিরকে অবৈধভাবে বাধা দেন নেপালের ডিফেন্ডার। মালদ্বীপের অধিনায়ক আকরাম আবদুল ঘানির ফ্রিকিক নেপালের জালে জড়িয়ে যায় (১-০)। বজ পাতের কারণে ম্যাচ কমিশনার চেন লিয়ান চেন ঝুঁকি নিতে চাননি। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ম্যাচের ২৭ মিনিট পর খেলা বন্ধ হয়ে যায়। ফের মাঠে খেলা গড়ায় ৩৪ মিনিট পর। খেলা শুরু হতেই গোল পেতে মরিয়া হয়ে ওঠে নেপাল। কিন্তু ভাগ্য তাদের সুপ্রসন্ন ছিল না। ৮৪ মিনিটে বদলি ফরোয়ার্ড আসাদুল্লাহ আবদুল্লাহর শট ফিরিয়ে দেন নেপালের ডিফেন্ডার। ফিরতি বলে বক্সের বাইরে থেকে শটে লক্ষ্যভেদ করেন ফরোয়ার্ড ইব্রাহিম ওয়াহিদ (২-০)। মিনিটদুয়েক পর ফের উল্লাস করে মালদ্বীপ। বক্সের মধ্যে বল পেয়ে নিখুঁত শটে মালদ্বীপকে আরও এগিয়ে দেন ইব্রাহিম (৩-০)। পঞ্চমবারের মতো সাফের ফাইনালে মালদ্বীপ।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter