ব্রাজিলের গোল উৎসব আর্জেন্টিনার গোলখরা

ব্রাজিল ৫ : ০ এল সালভাদর হ আর্জেন্টিনা ০ : ০ কলম্বিয়া

প্রকাশ : ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  এএফপি/গোল ডটকম

ধারে, ভারে, ঐতিহ্যে দু’দলের মাঝে যে মেরু ব্যবধান, স্কোরলাইনে তারই স্পষ্ট প্রতিফলন। ফিফা র‌্যাংকিংয়ের ৭২ নম্বরে থাকা পুঁচকে এল সালভারকে প্রীতি ম্যাচে ৫-০ গোলে উড়িয়ে দিল ব্রাজিল। বিশ্বকাপের হতাশা পেছনে ফেলে টানা দ্বিতীয় ম্যাচে গোল পেলেন নেইমার। নিজে এক গোল করার পাশাপাশি দলের আরও তিনটি গোলে অবদান রেখেছেন ব্রাজিল অধিনায়ক। আলো ছড়িয়েছেন উঠতি তারকা রিচার্লিসনও। ব্রাজিলের জার্সিতে প্রথমবার শুরুর একাদশে নেমেই জোড়া গোল করলেন ২১ বছর বয়সী এভারটন ফরোয়ার্ড। বাংলাদেশ সময় বুধবার সকালে ম্যারিল্যান্ডে ব্রাজিলের গোল উৎসবের দিনে যুক্তরাষ্ট্রের আরেক প্রান্তে গোলের দেখাই পায়নি আর্জেন্টিনা। নিউজার্সিতে কলম্বিয়ার বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচে গোলশূন্য ড্র করেছে দু’বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। বিশ্বকাপের পর একদম নতুন চেহারার দল নিয়ে আগের ম্যাচে পুঁচকে গুয়াতেমালার বিপক্ষে হেসেখেলেই ৩-০ গোলে জিতেছিল আর্জেন্টিনা। কিন্তু কলম্বিয়ার মতো তুলনামূলক শক্ত প্রতিপক্ষের বিপক্ষে বেরিয়ে এলো তাদের আসল চেহারা। লিওনেল মেসির শূন্যতা এদিন তীব্রভাবেই অনুভব করেছে আর্জেন্টিনা। মেসিকে ছাড়া খুব খারাপ না খেললেও কলম্বিয়ার জমাট রক্ষণ ভাঙতে পারেনি তারা। ম্যারিল্যান্ডের ফেডেক্স ফিল্ড স্টেডিয়ামে কাল এল সালভাদরকে নিয়ে আক্ষরিক অর্থেই ছেলেখেলা করেছে ব্রাজিল। আগের ম্যাচে যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে সেলেকাওদের ২-০ গোলের জয়ে পেনাল্টি থেকে শুরুতেই দলকে এগিয়ে দেয়া নেইমার এ ম্যাচেও ধরে রাখলেন সেই ধারা। চার মিনিটে রিচার্লিসনের আদায় করা পেনাল্টি থেকে জাতীয় দলের জার্সিতে ৯২ ম্যাচে নিজের ৫৯তম গোলটি তুলে নেন নেইমার। ব্রাজিলের হয়ে তার চেয়ে বেশি গোল আছে শুধু রোনালদো (৬২) ও পেলের (৭৭)। পাঁচ মিনিট পর নেইমারের জোরালো শট ক্রসবারে প্রতিহত। তবে শেষ পর্যন্ত নেইমার-ঝলকের সামনে দাঁড়াতে পারেনি এল সালভাদর। ১৬ মিনিটে পিএসজি তারকার পাস থেকে ব্রাজিলের জার্সিতে গোলের খাতা খোলেন রিচার্লিসন। ৩০ মিনিটে নেইমারের আরেকটি নিখুঁত পাস থেকে ব্যবধান ৩-০ করেন ফিলিপে কুতিনহো। বিরতির ঠিক আগে ডাইভ দিয়ে হলুদ কার্ড দেখলেও জাদুকরী পারফরম্যান্সের জন্য বিশ্বকাপের মতো এবার আর দুয়ো শুনতে হয়নি নেইমারকে। ৫০ মিনিটে রিচার্লিসনের ব্যক্তিগত দ্বিতীয় গোলের পর ৯০ মিনিটে নেইমারের কর্নার থেকে হেডে এল সালভাদরের কফিনে শেষ পেরেক ঠুকে দেন মার্কুইনহোস। গোটা ম্যাচে একবারের জন্যও ব্রাজিলের অভিষিক্ত গোলকিপার নেতোকে পরীক্ষায় ফেলতে পারেনি এল সালভাদর। আসল পরীক্ষাটা অবশ্য আগামী মাসে দিতে হবে তিতের দলকে। ১৬ অক্টোবর সৌদি আরবে অগ্নিগর্ভ প্রীতি ম্যাচে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আর্জেন্টিনার মুখোমুখি হবে ব্রাজিল। আর্জেন্টাইন সমর্থকদের আশা স্বেচ্ছানির্বাসনের ইতি টেনে এ ম্যাচ দিয়েই দেশের জার্সিতে ফিরবেন মেসি। তাকে ছাড়া আর্জেন্টিনার নতুন এই দলের পক্ষে বড় ম্যাচ জেতা ভীষণ কঠিন হবে। কাল কলম্বিয়ার বিপক্ষেই সেটা বোঝা গেছে। দলে এদিন বেশ কয়েকটি পরিবর্তন এনেছিলেন আর্জেন্টিনার অন্তর্বর্তীকালীন কোচ লিওলেন স্কালোনি। শুরু থেকেই খেলেছেন মাউরো ইকার্দি। দ্বিতীয়ার্ধে বদলি হিসেবে নামেন পাওলো দিবালা। কিন্তু অনেক সুযোগ পেয়েও কাজের কাজ গোল আদায় করতে পারেননি কেউ। ২০০৭ সালের পর থেকে কলম্বিয়ার বিপক্ষে অপরাজিত থাকার রেকর্ড অক্ষুণ্ণ রাখতে পারাই আর্জেন্টিনার একমাত্র প্রাপ্তি।