চোট টলাতে পারেনি তাদেরও

  আনন্দবাজার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

তামিম,

দ্বিতীয় ওভারে হাতে চোট পেয়েছিলেন। বাঁ-হাতের কব্জি ভেঙে যায় বাংলাদেশের ওপেনার তামিম ইকবালের। এশিয়া কাপের প্রথম ম্যাচে সেই অবস্থায়ও পরে ব্যাট করতে নামেন তিনি। তবে তামিম একা নন, এমন নজির আগেও দেখা গিয়েছে। গুরুতর আহত হওয়ার পরও দেশের জন্য মাঠে নামেন তারা।

বার্ট সাটক্লিফ : দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে জোহানেসবার্গ টেস্টে মুখোমুখি নিউজিল্যান্ড। সালটা ১৯৫৩-৫৪। ব্যাট করতে নেমে কানে ভয়ঙ্কর চোট পান বার্ট সাটক্লিফ। চিকিৎসকরা সম্পূর্ণ বিশ্রামের কথা বলেছিলেন। সেই টেস্টেই পরে ব্যাট করতে নামেন তিনি। দুর্দান্ত ইনিংসও খেলেন।

রিক ম্যাককস্কার : অস্ট্রেলিয়ার এই সাবেক ওপেনার ১৯৭৬-৭৭ সালে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টেস্টে গুরুতর আহত হন। চোয়াল ভেঙে যায়। এ অবস্থায় দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করেন। খেলেন ৬৮টি বলও।

অনিল কুম্বলে : ২০০২ সাল। অ্যান্টিগায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে থুতনিতে মারাত্মক চোট পান। কিন্তু সবাইকে অবাক করে রীতিমতো যন্ত্রণা সহ্য করেও বল করেন তিনি। নেন লারার উইকেটও।

গ্যারি কারস্টেন : ২০০৩-০৪ সাল। পাকিস্তানের শোয়েব আখতার তখন আগুন ঝরাচ্ছেন। প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে চোট পান কারস্টেন। এক্স-রে’তে দেখা যায় তার নাকের হাড় ভেঙেছে। দ্বিতীয় ইনিংসে দলের স্কোর একসময় ১৪৯ রানে চার উইকেট। সবাইকে অবাক করে ব্যাট করতে নামেন কারস্টেন। এ অবস্থায় ৪০-এর ওপর রান করেন তিনি।

গ্রায়েম স্মিথ : বলতে হবে স্মিথের কথাও। ২০০৯ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ব্যাট করতে নেমে কনুইয়ে চোট পান। কোনোভাবেই আর ব্যাট করার মতো পরিস্থিতি ছিল না। কিন্তু দলের অবস্থা তখন খুবই খারাপ। ব্যাট হাতে নামতে দেখা যায় স্মিথকে। বেশ কয়েকটি বল সামলে দেন।

মাইকেল ক্লার্ক : ফের একবার বলতে হবে অস্ট্রেলিয়া-দক্ষিণ আফ্রিকার একটি ম্যাচের কথা। ২০১৪-১৫ সালে কেপটাউনের টেস্ট। গুরুতর আহত হয়েছিলেন মাইকেল ক্লার্ক। সেই অবস্থায় দেখা যায় তিনি ব্যাট করে চলেছেন। পরে জানা যায় তার কাঁধের হাড় ভেঙে গিয়েছিল।

ঘটনাপ্রবাহ : এশিয়া কাপ ২০১৮

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter