প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বিশিষ্টজনদের শুভেচ্ছা বাণী
jugantor
প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বিশিষ্টজনদের শুভেচ্ছা বাণী

   

০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নির্মোহভাবে বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশ করছে যুগান্তর: ড. সা’দত হুসাইন

নির্মোহভাবে বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশের দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে যুগান্তর। আমরা অনেক ক্ষেত্রে সত্য প্রকাশে যুগান্তরের সাহসী পদক্ষেপ দেখেছি। যুগান্তরের অনেক মন্তব্য, রচনা ও সংবাদ প্রকাশ গতানুগতিকতার বাইরে নতুন দৃষ্টিভঙ্গি তুলে ধরছে।

যুগান্তর ধীরে ধীরে আরও বেশি বস্তুনিষ্ঠ ও ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠানে পরিণত হচ্ছে। ভবিষ্যতেও যুগান্তর তার সাহসী সাংবাদিকতা ও মতপ্রকাশের স্বাধীনতার পক্ষে নির্মোহ অবদান রেখে যাবে। আমি যুগান্তরের সর্বাঙ্গীণ সফলতা কামনা করছি।

ড. সা’দত হুসাইন : সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব, সরকারি কর্ম কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান

যুগান্তর স্বাধীনচেতা পত্রিকা: আবু আহমেদ

যুগান্তর স্বাধীনচেতা একটি পত্রিকা এবং মানুষের মতপ্রকাশের স্বাধীনতায় কাজ করে যাচ্ছে। আজকালকার মানুষের মধ্যে যারা স্বাধীন মতপ্রকাশ করতে চায়, তাদের জন্য মতপ্রকাশ কঠিন বিষয়ে পরিণত হয়েছে। সরকার কোনোকিছু বললে সেটাই শুদ্ধ, বাকি কিছুই শুদ্ধ না এমনটি নয়।

আমাদের প্রত্যাশা, যুগান্তর সত্যকে সত্য হিসেবে প্রকাশ করবে, গোঁজামিল দিয়ে কোনো অসত্য ও উদ্দেশ্যমূলক কিছু প্রকাশ করবে না। আমি যুগান্তরের উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি ও সাফল্য কামনা করি।

আবু আহমেদ : অধ্যাপক ও অর্থনীতিবিদ

বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনে জনগণের আস্থা অর্জন করেছে যুগান্তর: এম আব্দুস সোবহান

যুগান্তর বিশ বছর পাড়ি দিয়ে একুশ বছরে পদার্পণ করায় আমি শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। সময়ের পরিক্রমায় জন্মদিন বারবার আসবে, হোক সেটি মানুষের কিংবা প্রতিষ্ঠানের। সে হিসেবে আমি মনে করি যুগান্তর ইতিমধ্যেই একটি দীর্ঘপথ পাড়ি দিয়েছে এবং বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে জনগণের আস্থা অর্জন করে নিয়েছে। এজন্য যুগান্তরকে আমি অভিনন্দন জানাই এবং জন্মদিনের শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করছি।

যুগান্তর তার এ দীর্ঘ পথপরিক্রমায় তাদের বস্তুনিষ্ঠতা, সত্যবাদিতা ও নির্ভীকতার মাধ্যমে সমাজে বিদ্যমান পঙ্কিলতা, আবর্জনা, বিভেদ-বৈষম্য জনসম্মুখে তুলে ধরেছে এবং সেসব নিরসনে ভূমিকা রেখেছে। ভবিষ্যতেও যুগান্তর তাদের এ কর্মপ্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবে বলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস।

যুগান্তর মানে হচ্ছে যুগ থেকে যুগ। আশা করি যুগান্তর তাদের এ নামের তাৎপর্য সমুন্নত রাখবে এবং বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন করে বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক অবস্থা ও মানুষের জীবনমানের উন্নয়ন এবং জনগণের জীবনে সুখ-সমৃদ্ধি আনয়নে ভূমিকা রাখবে। আমি এও আশা করি, যুগান্তর গঠনমূলক সমালোচনার মাধ্যমে সরকার ও জনগণের সমৃদ্ধি আনয়নে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

আমি আগামী দিনে যুগান্তরের উত্তরোত্তর কল্যাণ কামনা করছি এবং যুগান্তর পরিবারের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট মালিক, সম্পাদক ও সাংবাদিকদের সাফল্য ও সমৃদ্ধি কামনা করছি। যুগান্তর দীর্ঘজীবী হোক।

এম আব্দুস সোবহান : উপাচার্য, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

যুগান্তর মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পক্ষে ভূমিকা রেখে চলেছে: ড. শিরীণ আখতার

যুগান্তরের একুশ বছরে পদার্পণ উপলক্ষে এ পত্রিকার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাইকে শুভেচ্ছা জানাই। যুগান্তর যেভাবে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পক্ষে ভূমিকা রেখে চলেছে তা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। জাতির জনকের জন্মশতবার্ষিকী পালন উপলক্ষে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বছরব্যাপী অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করেছে।

আশা করি যুগান্তর এসব অনুষ্ঠানের খবর বিস্তারিতভাবে প্রকাশ করবে। অতীতে কোনো কোনো পত্রিকার সংশ্লিষ্ট সাংবাদিকের সঙ্গে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের দূরত্বের কারণে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক গুরুত্বপূর্ণ খবর সঠিকভাবে উপস্থাপিত হয়নি। আমি যুগান্তরের উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি কামনা করছি।

অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার : উপাচার্য, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

যুগান্তরের অবদান অপরিসীম: গোলাম রহমান

যুগান্তরের ২১তম বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে আমার শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। যুগান্তর জনগণের কথা সহজ ও সাবলীলভাবে তুলে ধরছে এবং ভবিষ্যতেও এ প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে বলে আমার প্রত্যাশা।

সংবাদ ও অন্যান্য বিষয় যেমন- কলাম, ফিচার, ছবি ইত্যাদি প্রকাশের মাধ্যমে দেশের জনগণ এবং দেশের বাইরে বসবাসরত বাংলাদেশিদের জন্য সব ধরনের অবদান রেখে চলেছে যুগান্তর।

দীর্ঘ পথচলায় গণতান্ত্রিক চর্চায় যুগান্তরের অবদান ছিল অপরিসীম। ভবিষ্যতেও এ প্রক্রিয়া চলমান থাকবে, এটাই আশা করি।

অধ্যাপক গোলাম রহমান : সাবেক প্রধান তথ্য কমিশনার

যুগান্তর নির্ভীকভাবে গণমানুষের কথা বলে: ড. জহিরুল হক

যুগান্তর গণমানুষের পত্রিকা। এ পত্রিকা নির্ভীকভাবে গণমানুষের কথা বলে। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে রয়েছে যুগান্তরের ব্যাপক পাঠক গ্রুপ। রিপোর্টিংয়ের ক্ষেত্রে যুগান্তরের মান অনেক উন্নত। সে জন্য পাঠক লুফে নিচ্ছে যুগান্তরকে।

জন্মদিনে যুগান্তরের কাছে প্রত্যাশা, শিক্ষাক্ষেত্রে আপনাদের আরও মনোযোগী হওয়া প্রয়োজন। দেশে চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের প্রস্তুতি চলছে। কিন্তু শিক্ষাবিপ্লবও যে হয়ে যাচ্ছে, তার খবর অনেকেই রাখে না। একশ্রেণির পত্রিকা শুধু প্রচার করে যাচ্ছে শিক্ষাক্ষেত্রের দোষত্রুটি।

কিন্তু যারা ভালো করছে তাদের সম্পর্কে ভালো কিছু ছাপা হচ্ছে না। কোটি কোটি ছাত্রছাত্রী ও তাদের অভিভাবকদের জন্য যুগান্তরের আরও আয়োজন অত্যাবশ্যক হয়ে পড়েছে। যুগ যুগ ধরে সাফল্যের সঙ্গে বেঁচে থাকবে যুগান্তর।

প্রফেসর ড. জহিরুল হক : উপাচার্য, ইউনিভার্সিটি অফ লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ

 

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বিশিষ্টজনদের শুভেচ্ছা বাণী

  
০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নির্মোহভাবে বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশ করছে যুগান্তর: ড. সা’দত হুসাইন

নির্মোহভাবে বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশের দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে যুগান্তর। আমরা অনেক ক্ষেত্রে সত্য প্রকাশে যুগান্তরের সাহসী পদক্ষেপ দেখেছি। যুগান্তরের অনেক মন্তব্য, রচনা ও সংবাদ প্রকাশ গতানুগতিকতার বাইরে নতুন দৃষ্টিভঙ্গি তুলে ধরছে।

যুগান্তর ধীরে ধীরে আরও বেশি বস্তুনিষ্ঠ ও ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠানে পরিণত হচ্ছে। ভবিষ্যতেও যুগান্তর তার সাহসী সাংবাদিকতা ও মতপ্রকাশের স্বাধীনতার পক্ষে নির্মোহ অবদান রেখে যাবে। আমি যুগান্তরের সর্বাঙ্গীণ সফলতা কামনা করছি।

ড. সা’দত হুসাইন : সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব, সরকারি কর্ম কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান

যুগান্তর স্বাধীনচেতা পত্রিকা:আবু আহমেদ

যুগান্তর স্বাধীনচেতা একটি পত্রিকা এবং মানুষের মতপ্রকাশের স্বাধীনতায় কাজ করে যাচ্ছে। আজকালকার মানুষের মধ্যে যারা স্বাধীন মতপ্রকাশ করতে চায়, তাদের জন্য মতপ্রকাশ কঠিন বিষয়ে পরিণত হয়েছে। সরকার কোনোকিছু বললে সেটাই শুদ্ধ, বাকি কিছুই শুদ্ধ না এমনটি নয়।

আমাদের প্রত্যাশা, যুগান্তর সত্যকে সত্য হিসেবে প্রকাশ করবে, গোঁজামিল দিয়ে কোনো অসত্য ও উদ্দেশ্যমূলক কিছু প্রকাশ করবে না। আমি যুগান্তরের উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি ও সাফল্য কামনা করি।

আবু আহমেদ : অধ্যাপক ও অর্থনীতিবিদ

বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনে জনগণের আস্থা অর্জন করেছে যুগান্তর: এম আব্দুস সোবহান

যুগান্তর বিশ বছর পাড়ি দিয়ে একুশ বছরে পদার্পণ করায় আমি শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। সময়ের পরিক্রমায় জন্মদিন বারবার আসবে, হোক সেটি মানুষের কিংবা প্রতিষ্ঠানের। সে হিসেবে আমি মনে করি যুগান্তর ইতিমধ্যেই একটি দীর্ঘপথ পাড়ি দিয়েছে এবং বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে জনগণের আস্থা অর্জন করে নিয়েছে। এজন্য যুগান্তরকে আমি অভিনন্দন জানাই এবং জন্মদিনের শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করছি।

যুগান্তর তার এ দীর্ঘ পথপরিক্রমায় তাদের বস্তুনিষ্ঠতা, সত্যবাদিতা ও নির্ভীকতার মাধ্যমে সমাজে বিদ্যমান পঙ্কিলতা, আবর্জনা, বিভেদ-বৈষম্য জনসম্মুখে তুলে ধরেছে এবং সেসব নিরসনে ভূমিকা রেখেছে। ভবিষ্যতেও যুগান্তর তাদের এ কর্মপ্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবে বলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস।

যুগান্তর মানে হচ্ছে যুগ থেকে যুগ। আশা করি যুগান্তর তাদের এ নামের তাৎপর্য সমুন্নত রাখবে এবং বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন করে বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক অবস্থা ও মানুষের জীবনমানের উন্নয়ন এবং জনগণের জীবনে সুখ-সমৃদ্ধি আনয়নে ভূমিকা রাখবে। আমি এও আশা করি, যুগান্তর গঠনমূলক সমালোচনার মাধ্যমে সরকার ও জনগণের সমৃদ্ধি আনয়নে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

আমি আগামী দিনে যুগান্তরের উত্তরোত্তর কল্যাণ কামনা করছি এবং যুগান্তর পরিবারের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট মালিক, সম্পাদক ও সাংবাদিকদের সাফল্য ও সমৃদ্ধি কামনা করছি। যুগান্তর দীর্ঘজীবী হোক।

এম আব্দুস সোবহান : উপাচার্য, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

যুগান্তর মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পক্ষে ভূমিকা রেখে চলেছে: ড. শিরীণ আখতার

যুগান্তরের একুশ বছরে পদার্পণ উপলক্ষে এ পত্রিকার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাইকে শুভেচ্ছা জানাই। যুগান্তর যেভাবে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পক্ষে ভূমিকা রেখে চলেছে তা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। জাতির জনকের জন্মশতবার্ষিকী পালন উপলক্ষে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বছরব্যাপী অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করেছে।

আশা করি যুগান্তর এসব অনুষ্ঠানের খবর বিস্তারিতভাবে প্রকাশ করবে। অতীতে কোনো কোনো পত্রিকার সংশ্লিষ্ট সাংবাদিকের সঙ্গে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের দূরত্বের কারণে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক গুরুত্বপূর্ণ খবর সঠিকভাবে উপস্থাপিত হয়নি। আমি যুগান্তরের উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি কামনা করছি।

অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার : উপাচার্য, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

যুগান্তরের অবদান অপরিসীম: গোলাম রহমান

যুগান্তরের ২১তম বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে আমার শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। যুগান্তর জনগণের কথা সহজ ও সাবলীলভাবে তুলে ধরছে এবং ভবিষ্যতেও এ প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে বলে আমার প্রত্যাশা।

সংবাদ ও অন্যান্য বিষয় যেমন- কলাম, ফিচার, ছবি ইত্যাদি প্রকাশের মাধ্যমে দেশের জনগণ এবং দেশের বাইরে বসবাসরত বাংলাদেশিদের জন্য সব ধরনের অবদান রেখে চলেছে যুগান্তর।

দীর্ঘ পথচলায় গণতান্ত্রিক চর্চায় যুগান্তরের অবদান ছিল অপরিসীম। ভবিষ্যতেও এ প্রক্রিয়া চলমান থাকবে, এটাই আশা করি।

অধ্যাপক গোলাম রহমান : সাবেক প্রধান তথ্য কমিশনার

যুগান্তর নির্ভীকভাবে গণমানুষের কথা বলে: ড. জহিরুল হক

যুগান্তর গণমানুষের পত্রিকা। এ পত্রিকা নির্ভীকভাবে গণমানুষের কথা বলে। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে রয়েছে যুগান্তরের ব্যাপক পাঠক গ্রুপ। রিপোর্টিংয়ের ক্ষেত্রে যুগান্তরের মান অনেক উন্নত। সে জন্য পাঠক লুফে নিচ্ছে যুগান্তরকে।

জন্মদিনে যুগান্তরের কাছে প্রত্যাশা, শিক্ষাক্ষেত্রে আপনাদের আরও মনোযোগী হওয়া প্রয়োজন। দেশে চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের প্রস্তুতি চলছে। কিন্তু শিক্ষাবিপ্লবও যে হয়ে যাচ্ছে, তার খবর অনেকেই রাখে না। একশ্রেণির পত্রিকা শুধু প্রচার করে যাচ্ছে শিক্ষাক্ষেত্রের দোষত্রুটি।

কিন্তু যারা ভালো করছে তাদের সম্পর্কে ভালো কিছু ছাপা হচ্ছে না। কোটি কোটি ছাত্রছাত্রী ও তাদের অভিভাবকদের জন্য যুগান্তরের আরও আয়োজন অত্যাবশ্যক হয়ে পড়েছে। যুগ যুগ ধরে সাফল্যের সঙ্গে বেঁচে থাকবে যুগান্তর।

প্রফেসর ড. জহিরুল হক : উপাচার্য, ইউনিভার্সিটি অফ লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ