সরকার সচলের আগে ট্রাম্পের ভাষণও বাতিল
jugantor
সরকার সচলের আগে ট্রাম্পের ভাষণও বাতিল

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৫ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সরকার সচলের আগে ট্রাম্পের ভাষণও বাতিল

যুক্তরাষ্ট্র সরকারের চাকা সচলের আগে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বার্ষিক ভাষণ (স্টেট অব দ্য ইউনিয়ন) হবে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন কংগ্রেসের নিুকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি।

এরপর ট্রাম্প বলেছেন, সরকারের অচলাবস্থা ইস্যুতে সিদ্ধান্ত না আসা পর্যন্ত তিনি বার্ষিক ভাষণ দেবেন না। বুধবার ট্রাম্পের ভাষণ দেয়ার আমন্ত্রণ প্রত্যাহার করে পেলোসি বলেন, ‘সবার আগে সরকারি পরিষেবা সচল করতে হবে।’ খবর বিবিসির।

সরকারের অচলাবস্থায় গত ২২ ডিসেম্বর থেকে আট লাখ সরকারি কর্মীদের বেতন আটকে রয়েছে। ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণে ৫৭০ কোটি ডলার চেয়ে বিল আনেন। তবে ডেমোক্র্যাটরা এই প্রস্তাবে অস্বীকৃতি জানালে সরকারে অচলাবস্থা নেমে আসে।

সীমান্ত ইস্যুতে এই প্রথম এত দীর্ঘ সময় যুক্তরাষ্ট্রে অচলাবস্থা চলছে। বুধবার প্রথমে ট্রাম্প টুইট বার্তায় জানিয়েছিলেন, ভাষণ সঠিক স্থান ও সময়েই হবে। ডেমোক্র্যাট নেতা পেলোসির অবস্থানের পর রাতেই আরেক টুইটে ট্রাম্প জানান, বার্ষিক ভাষণ তিনি দিচ্ছেন না।

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় সরকারের আংশিক অচলাবস্থা নিরসনে স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সিনেটে দুটি বিলে ভোটাভুটি করার কথা রয়েছে ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকানদের। গত ২২ জানুয়ারি সিনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ নেতা মিচ ম্যাককনেলের সঙ্গে শীর্ষ ডেমোক্র্যাট নেতা চাক শুমারের এ সমঝোতা হয়।

পরে দু’নেতা জানান, বৃহস্পতিবার দু’দল থেকে আলাদা করে দুটি বিল উত্থাপিত ও ভোটাভুটি হবে। ১০০ সদস্যের সিনেটে যে কোনো বিল পাস করাতে হলে প্রত্যেকটিকে ৬০টি করে ভোট পেতে হয়।

সরকার সচলের আগে ট্রাম্পের ভাষণও বাতিল

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৫ জানুয়ারি ২০১৯, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
সরকার সচলের আগে ট্রাম্পের ভাষণও বাতিল
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ছবি: এএফপি

যুক্তরাষ্ট্র সরকারের চাকা সচলের আগে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বার্ষিক ভাষণ (স্টেট অব দ্য ইউনিয়ন) হবে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন কংগ্রেসের নিুকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি।

এরপর ট্রাম্প বলেছেন, সরকারের অচলাবস্থা ইস্যুতে সিদ্ধান্ত না আসা পর্যন্ত তিনি বার্ষিক ভাষণ দেবেন না। বুধবার ট্রাম্পের ভাষণ দেয়ার আমন্ত্রণ প্রত্যাহার করে পেলোসি বলেন, ‘সবার আগে সরকারি পরিষেবা সচল করতে হবে।’ খবর বিবিসির।

সরকারের অচলাবস্থায় গত ২২ ডিসেম্বর থেকে আট লাখ সরকারি কর্মীদের বেতন আটকে রয়েছে। ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণে ৫৭০ কোটি ডলার চেয়ে বিল আনেন। তবে ডেমোক্র্যাটরা এই প্রস্তাবে অস্বীকৃতি জানালে সরকারে অচলাবস্থা নেমে আসে।

সীমান্ত ইস্যুতে এই প্রথম এত দীর্ঘ সময় যুক্তরাষ্ট্রে অচলাবস্থা চলছে। বুধবার প্রথমে ট্রাম্প টুইট বার্তায় জানিয়েছিলেন, ভাষণ সঠিক স্থান ও সময়েই হবে। ডেমোক্র্যাট নেতা পেলোসির অবস্থানের পর রাতেই আরেক টুইটে ট্রাম্প জানান, বার্ষিক ভাষণ তিনি দিচ্ছেন না।

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় সরকারের আংশিক অচলাবস্থা নিরসনে স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সিনেটে দুটি বিলে ভোটাভুটি করার কথা রয়েছে ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকানদের। গত ২২ জানুয়ারি সিনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ নেতা মিচ ম্যাককনেলের সঙ্গে শীর্ষ ডেমোক্র্যাট নেতা চাক শুমারের এ সমঝোতা হয়।

পরে দু’নেতা জানান, বৃহস্পতিবার দু’দল থেকে আলাদা করে দুটি বিল উত্থাপিত ও ভোটাভুটি হবে। ১০০ সদস্যের সিনেটে যে কোনো বিল পাস করাতে হলে প্রত্যেকটিকে ৬০টি করে ভোট পেতে হয়।