ইমরানের কূটনৈতিক মেন্যুতেই যুবরাজকে আপ্যায়ন মোদির

৫টি সমঝোতা : ১০০ কোটি ডলার বিনিয়োগের প্রত্যাশা * সন্ত্রাস দমনে যৌথভাবে কাজ করবে রিয়াদ- দিল্লি * ভারত-সৌদি বন্ধুত্ব ডিএনএতে, মোদি আমার বড় ভাই

  যুগান্তর ডেস্ক ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানকে স্বাগত জানাতে প্রটোকল ভেঙেছিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। বিমানবন্দর থেকে নিজেই গাড়ি চালিয়ে ক্রাউন প্রিন্সকে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে নিয়ে যান। হাত গুটিয়ে বসে থাকেনি ভারতও। যুবরাজের মনজয়ে ইমরানের সেই বিশ্ব ধাঁধানো ‘প্রটোকল ভাঙা’ কূটনৈতিক মেন্যুতেই তাকে আপ্যায়ন করলেন সে দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। যাকে বলে, পাল্টাপাল্টি কূটনীতি। মঙ্গলবার রাতে দিল্লি বিমানবন্দরের রানওয়েতে নামে যুবরাজের বিমান। আর প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই বিমানের সিঁড়ির কাছে ছুটে যান মোদি। দূর থেকে দু’বাহু ছড়িয়ে আলিঙ্গনে বাঁধেন সালমানকে। উষ্ণ আলিঙ্গনে সিক্ত হয়ে যুবরাজও বলেন, ভারত ও সৌদি আরব বন্ধুত্ব ডিএনএ’তে মিশে রয়েছে।

এনডিটিভি জানায়, বুধবার দুপুরে বৈঠক করেন বিন সালমান ও মোদি। পরে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে যুবরাজ বলেন, ‘সন্ত্রাসবাদ ও চরমপন্থী দমনই উভয় দেশের প্রধান লক্ষ্য। সৌদি আরব ভারতসহ প্রতিবেশী দেশগুলোকে সন্ত্রাসবাদ দমনে সহায়তা করবে।’ পুলওয়ামা হামলা নিয়ে পাকিস্তান-ভারত উত্তেজনার মধ্যে এ সফরে গেছেন সৌদি রাজপুত্র। এর আগে পাকিস্তান সফরে তিনি ইসলামাবাদের ‘আঞ্চলিক শান্তি ও নিরাপত্তা’ প্রচেষ্টার প্রশংসা করেন। পাকিস্তানের নাম উল্লেখ না করে মোদি বলেন, ‘যারা সন্ত্রাসবাদে মদদ জোগায়, সেই পথ থেকে দেশগুলোকে ফেরাতে তাদের ওপর আরও চাপ বাড়াতে রাজি সৌদি আরব। সন্ত্রাসবাদীদের গতিবিধি সম্পর্কে গোয়েন্দা তথ্য দেয়া-নেয়াও করবে দুটি দেশ।

বিনিয়োগ, পর্যটন, আবাসন, তথ্য ও সংস্কৃতি ইস্যুতে ৫টি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেন দু’নেতা। আগামী দুই বছরের মধ্যে ভারতে ১০০ কোটি ডলার বিনিয়োগ করবে বলেও প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন যুবরাজ। এর আগে রাষ্ট্রপতি ভবনে এক অনুষ্ঠানে যুবরাজকে অভ্যর্থনা জানান ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। এক পর্যায়ে মোদিকে ‘হ্যালো ব্রাদার’ বলে সম্বোধন করেন যুবরাজ। তিনি বলেন, ‘আমি মোদিকে সম্মান করি। তিনি আমার বড় ভাই আর আমি তার ছোট ভাই। আমি খুবই মুগ্ধ।’

সাধারণত বিদেশি অতিথিকে স্বাগত জানাতে প্রধানমন্ত্রীর বিমানবন্দরে যাওয়ার কথা না, তার প্রতিনিধি পাঠানোর কথা। এসব প্রটোকলে তোয়াক্কা না করে যুবরাজকে স্বাগত জানান মোদি। প্রশংসায় ভাসিয়ে একে ‘দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের এক নতুন অধ্যায়’ লিখে টুইট করেছেন ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রাভীশ কুমার। পরে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের সঙ্গে বুধবার বৈঠক করেন যুবরাজ। আলোচনায় প্রতিরক্ষা, বাণিজ্য ও দ্বিপক্ষীয় কৌশলগত সহযোগিতার কথা উঠে এসেছে। রাত পৌনে ১২টার দিকে দিল্লি থেকে চীনের যাওয়ার কথা রয়েছে যুবরাজের।

ভারত-পাকিস্তান সম্পর্ক ভালো হলে চমৎকার হতো- ট্রাম্প : কাশ্মীরের হামলায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। পাকিস্তান ও ভারতের সম্পর্ক বন্ধুত্বপূর্ণ হলে ‘চমৎকার’ হতো বলে মন্তব্য করেছেন তিনি। মঙ্গলবার তিনি বলেন, ‘আমি দেখেছি। এ বিষয়ে বহু প্রতিবেদন পেয়েছি আমি। আমরা উপযুক্ত সময়ে এ বিষয়ে মন্তব্য করব। তারা (ভারত ও পাকিস্তান) মিলেমিশে থাকলে চমৎকার হতো।’

উভয় পক্ষকে সংযত হওয়ার আহ্বান জাতিসংঘের : ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে চলমান উত্তেজনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তনিও গুতেরেস। তিনি দু’দেশকে সর্বোচ্চ সংযম দেখানোর আহ্বান জানিয়েছেন। একই সঙ্গে জাতিসংঘ দফতর এ সংকট নিরসনে সহায়তা করবে বলেও দু’দেশকে প্রস্তাব দিয়েছেন গুতেরেস।

আরও পড়ুন
--
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×