অভিবাসী বিদ্বেষ থেকেই হামলা

  যুগান্তর ডেস্ক ১৬ মার্চ ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে মুসল্লিদের ওপর হামলার আগে বন্দুকধারী অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক ব্রেন্টন ট্যারান্ট একটি ইশতেহার দিয়েছে। ‘দ্য গ্রেট রিপ্লেসমেন্ট’ শীর্ষক ৭৪ পৃষ্ঠার ওই ঘোষণাপত্রে অভিবাসী বিদ্বেষ থেকেই যে সে হামলা চালিয়েছে বলে জানিয়েছে কট্টর ডানপন্থী ব্রেন্টন। যেখানে ২ বছর আগে থেকে হামলার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছে সে। আর ক্রাইস্টচার্চে হামলার সিদ্ধান্ত ৩ মাস আগে নিয়েছে বলেও জানায় সে। অস্ট্রেলিয়ার গণমাধ্যম নিউজডটকমের এক প্রতিবেদনে টুইটারে পোস্ট করা ব্রেন্টনের ওই ইশতেহারের বিষয়টি বিশ্লেষণ করা হয়েছে। সেখানে ব্রেন্টন নিজেকে একজন শ্বেতাঙ্গ হিসেবে পরিচয় দিয়েছে। আর সে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উগ্র শ্বেতাঙ্গবাদীদের হামলা থেকে অনুপ্রাণিত হয়েছে।

২৮ বছর বয়সী ব্রেন্টন লিখেছে, সে একটি মধ্যবিত্ত শ্রমজীবী পরিবারের সন্তান। এ হত্যাকাণ্ডের পূর্বাভাস দিয়ে ইশতেহারে সে লিখেছে, মুসলমান এবং ধর্মত্যাগীদের ঘৃণা করি আমি। ধর্মত্যাগকারীদের রক্তের সঙ্গে প্রতারণাকারী হিসেবে উল্লেখ করেছে সে। ব্রেন্টন জানায়, আমি ২০১১ সালে নরওয়ের ওসলোতে ৭৭ জনকে হত্যাকারী অ্যান্ডারর্স ব্রেইভিকসহ অন্যান্য বন্দুক হামলাকারীদের কাছ থেকে অনুপ্রাণিত হয়েছি। ডায়লান রুফসহ আরও অনেকের লেখা আমি পড়েছি। তবে সত্যিকার অর্থে নাইট (বীরযোদ্ধা) ব্রেইভিকের কাছ থেকেই হামলার উৎসাহ পেয়েছি। সংজ্ঞায়িত করলে এটি একটি সন্ত্রাসী হামলা। ট্রাম্পের উগ্র সমর্থক ক্যানডিস ওউনসের কাছ থেকেও অনুপ্রাণিত হয়েছি।

একে ২০১৭ সালের স্টকহোমের সন্ত্রাসী হামলার প্রতিশোধ হিসেবেও উল্লেখ করেন ব্রেন্টন। সে জানায়, ওই হামলায় ১১ বছর বয়সী এব্বা অকারলান্ড নামের একটি মেয়ে নিহত হয়েছিল। উজবিকিস্তান থেকে আসা এক শরণার্থী এ হামলা চালিয়েছিল। আর এবার এব্বার মৃত্যুই তাকে হামলা করতে প্রথম উৎসাহ দিয়েছে বলে উল্লেখ করে সে। এছাড়া ফ্রান্সের উগ্র ডানপন্থী নেত্রীর পরাজয় তাকে অনেক ব্যথিত করেছে বলেও জানায় ব্রেন্টন।

অভিবাসীদের প্রতি ক্ষোভ উগরে সে জানায়, আমাদের ভূখণ্ডকে কখনোই অনুপ্রবেশকারীদের ভূখণ্ড হতে দেব না। আমাদের মাতৃভূমি আমাদের এবং যতক্ষণ পর্যন্ত শ্বেতাঙ্গরা জীবিত থাকবে, ততদিন আমাদের ভূখণ্ডকে কেউ ছিনিয়ে নিতে পারবে না।’ ব্রেন্টন আরও জানায়, নিউজিল্যান্ডে হামলা করা তার পরিকল্পনায় ছিল না। কিন্তু পরে এটাকে সবার দৃষ্টি আকর্ষণের ভালো জায়গা বলে মনে করি। আমি মনে করি এখানে হামলা হলে সভ্যতার ওপর সত্যিকার হামলার বিষয়ে সবার দৃষ্টি আকর্ষণ হবে। সবাই জানবে বিশ্বের কোথাও নিরাপদ নয়।’

শ্বেতাঙ্গরা লাখ লাখ ইউরোপীয় এবং দেশের মানুষের প্রতিনিধিত্ব করছে উল্লেখ করে ব্রেন্টন জানায়, আমরা আমাদের দেশের মানুষের অস্তিত্ব নিশ্চিত করতে কাজ করব। আমরা আমাদের শ্বেতাঙ্গ শিশুদের ভবিষৎ নিশ্চিত করে যাব। ক্রাইস্টচার্চের হামলাকে একটি প্রতিশোধের হামলা উল্লেখ করে সে বলেছে, প্রথাগতভাবে বিদেশিদের আক্রমণে লাখ লাখ ইউরোপীয় নাগরিক নিজ দেশে মারা যাচ্ছে। ইউরোপীয়দের ভূমি মুসলিম দেশ থেকে আসা অভিবাসী দখল করে নিয়েছে। এছাড়া সন্ত্রাসী হামলায় হাজার ইউরোপীয় লোক প্রাণ হারিয়েছে।

আরও পড়ুন
--
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×