বিদেশি ঋণ ২৭ হাজার কোটি রুপি

ঋণ পরিশোধে সরকারি সম্পত্তি বেচছে পাকিস্তান

  যুগান্তর ডেস্ক ২১ মার্চ ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ক্রমবর্ধমান বিদেশি ঋণের কারণে বড় অর্থনৈতিক সংকটে রয়েছে পাকিস্তান। ঋণের বোঝা হালকা করতে এবার সরকারি সম্পত্তি বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে ‘নয়া পাকিস্তানের নয়া সরকার’। সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দফতরের মালিকানায় থাকা এসব সম্পত্তির মধ্যে রয়েছে হাজার হাজার একর রাষ্ট্রীয় খাসজমি, অসংখ্য রেস্ট হাউস ও সরকারি বাসভবন। হাজার হাজার কোটি রুপি মূল্যের এসব সম্পত্তি বিক্রির জন্য মিনিস্ট্রি অব প্রাইভেটাইজেশন বা বেসরকারিকরণ মন্ত্রণালয়কে নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। বিক্রি প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করতে প্রাইভেটাইজেশন কমিশনের অধীনে বিশেষ ‘অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট সেল’ গঠনেরও নির্দেশ দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানিয়েছেন ইমরানের সরকারের তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী। খবর এক্সপ্রেস ট্রিবিউন ও ডনের।

এই মুহূর্তে পাকিস্তানের বিদেশি ঋণের পরিমাণ ২৭ হাজার কোটি রুপি, যা প্রতিনিয়তই বাড়ছে। শুধু চীনের কাছেই দেশটির ঋণের পরিমাণ দুই হাজার কোটি ডলার। গত মাসেই বেইজিং থেকে ২৫০ কোটি ডলার ঋণ নিয়েছে ইসলামাবাদ। ঋণের পাহাড় মাথায় নিয়েই গত বছরের মাঝামাঝিতে ক্ষমতায় আসেন ইমরান খান। ঋণের কারণে দেশের অর্থনৈতিক দুর্দশা নানাভাবে মেরামত করার চেষ্টা করছেন তিনি। বন্ধুপ্রতীম দেশ সৌদির কাছ থেকে ৬০০ কোটি ডলারের অর্থনৈতিক সহায়তা পেয়েছেন।

গত বছরের শেষের দিকেই সর্বপ্রথম সরকারি সম্পত্তি বিক্রির ইঙ্গিত দিয়েছিলেন ইমরান। এক টুইটার বার্তায় তিনি বলেন, সরকারি মালিকানাধীন বহু জমির আকারে শত শত কোটি রুপির ‘মৃত পুঁজি বসে আছে পাকিস্তান।’ মৃত পুঁজি বলতে সরকারি জমিতে কর্মকর্তাদের জন্য নির্মিত বর্তমানে অব্যবহৃত অসংখ্য বাসভবন, রেস্ট হাউসকে বোঝান তিনি। পাঞ্জাব, করাচি, খাইবার পাখতুনখোয়াসহ বিভিন্ন প্রদেশে এসব সম্পত্তি পতিত পড়ে আছে বলে জানান তিনি। তিনি জানান, ‘শুধু শহর এলাকাতেই ৩০০ বিলিয়ন রুপির জমি রয়েছে।’ এই অর্থ ‘জনস্বার্থে’ ব্যবহার করা যায় বলে সে সময় জানান তিনি।

মঙ্গলবার এ নিয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠক করেন ইমরান খান। বৈঠকে সরকারি সম্পত্তি বিক্রির ব্যাপারে অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী জানিয়েছেন, বিক্রয়যোগ্য সব সম্পত্তির তালিকা চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান। প্রত্যেক মন্ত্রণালয় ও সংশ্লিষ্ট দফতরগুলোকে কমপক্ষে তিনটি ঝামেলা ও ত্রুটিহীন সম্পত্তি প্রাইভেটাইজেশন কমিশনের কাছে জমা দিতে বলা হয়েছে। প্রাইভেটাইজেশন কমিশন জানিয়েছে, কর্মকর্তারা ইতিমধ্যে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে ৪৫ হাজারের বেশি অস্থাবর সম্পত্তির বিস্তারিত তথ্য হাতে পেয়েছে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×