উত্তাল সমুদ্রে ১৩৭৩ যাত্রী নিয়ে বিপদে বিলাসবহুল প্রমোদতরী

উদ্ধারে ৫ হেলিকপ্টার ও কয়েকটি জাহাজ

  যুগান্তর ডেস্ক ২৫ মার্চ ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

উত্তাল সমুদ্রে ১৩৭৩ যাত্রী নিয়ে বিপদে বিলাসবহুল প্রমোদতরী
ছবি: সংগৃহীত

নরওয়ের পশ্চিম উপকূলে কয়েক মিটার উঁচু ঢেউ ও শক্তিশালী ঝড়ের কবলে পড়েছে একটি বিলাসবহুল প্রমোদতরী। জাহাজটিতে প্রায় ১৩৭৩ জন যাত্রী ছিল। জরুরি বিপদ সংকেত পাঠানোর পর উদ্ধার অভিযান শুরু হয়েছে। রোববার সন্ধ্যার মধ্যে হেলিকপ্টারে করে সবাইকে উদ্ধার করা হয়েছে।

চারটি ইঞ্জিনের সবগুলো বিকল হয়ে গেলেও ফের চালু করা সম্ভব হয়েছে। পরে জাহাজটিকে নিরাপদে তীরে ভেড়ানো হয়। উদ্ধারকারী দলকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী এরনা সোলবার্গ। খবর এএফপি ও দ্য গার্ডিয়ানের।

খারাপ আবহাওয়ায় পড়ে শনিবার সকালে এমভি ভাইকিং স্কাই নামের জাহাজটির চারটির ইঞ্জিনের সবগুলোই বিকল হয়ে যায়। এরপর হঠাৎ ঝাঁকুনি দিয়ে ঢেউয়ের আঘাতে কলার খোসার মতো দুলতে থাকে জাহাজটি। এতে আরেকটি টাইটানিক পরিস্থিতির আতঙ্ক গ্রাস করে কর্তৃপক্ষকে।

এ সময় জাহাজের যাত্রীদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে ভয়াবহ এক আতঙ্ক। জরুরি বিপদ সংকেত পাঠান জাহাজের ক্যাপ্টেন। এরপর লোকজনকে উদ্ধারে মোতায়েন করা হয় ৫টি হেলিকপ্টার ও বেশ কয়েকটি টাগবোট ও জাহাজ। প্রত্যেক ট্রিপে ১৫-২০ জনকে উদ্ধার করা হচ্ছে। পুলিশ বলেছে, কেউ মারাত্মক আহত হননি। উদ্ধারের পর ৩০ জনকে নেয়া হয়েছে হাসপাতালে।

এমভি ভাইকিং স্কাই হল একটি ভাইকিং ওশিন ক্রুজ জাহাজ, যার যাত্রা শুরু হয় ২০১৭ সালে। গত ১৪ মার্চ নরওয়ের বারজেন থেকে যাত্রা শুরু করে জাহাজটি। যাত্রী নিয়ে এটি নরওয়ের বিভিন্ন শহর ভ্রমণ করছিল। ২৬ মার্চ (মঙ্গলবার) লন্ডনের টিলবুরি পৌঁছার মধ্য দিয়ে এ সফর শেষ হওয়ার কথা ছিল।

সমুদ্রে নৌচলাচল বিষয়ক ওয়েবসাইট মেরিন ট্র্যাফিক দেখাচ্ছে, শনিবার জাহাজটি ট্রোমসো থেকে স্টাভাঙ্গারে যাচ্ছিল। কিন্তু এই দুর্বিপাকে পড়ে মোলডের কাছে ফারস্টাড শহরের কাছাকাছি উপকূলে। জাহাজটির কোম্পানির ওয়েবসাইটে দেখানো হয়েছে, এর ধারণ ক্ষমতা ৯৩০ জন।

কিন্তু ঘটনার সময় এতে প্রায় ১,৩৭৩ মানুষ ছিলেন। তা ছাড়া জাহাজটি যে এলাকা দিয়ে যাচ্ছিল তা হুস্তাডভিকা নামে পরিচিত। নরওয়ে উপকূলে সবচেয়ে বিপজ্জনক এলাকার মধ্যে এটি অন্যতম।

মোরে ওগ রোমসডালে কাউন্টির পুলিশ বলেছে, ঘটনার সময় জাহাজটির ইঞ্জিনে মারাত্মক সমস্যা দেখা দেয়। প্রচণ্ড উঁচু হয়ে ঢেউ আছড়ে পড়তে থাকে এর গায়ে। তীব্র বাতাস বার বার গতিপথ পাল্টে দিতে থাকে এর। ফলে জাহাজের আরোহীদের মধ্যে চিৎকার শুরু হয়। এমন অবস্থায় এমভি ভাইকিং স্কাই থেকে বিপদ সংকেত পায় নরওয়ের সমুদ্র উদ্ধারবিষয়ক এজেন্সি। শুরু হয় উদ্ধার অভিযান। জাহাজটিতে থাকা সবাইকে তীরে আনার কাজ শুরু হয়েছে।

ঘটনাস্থল থেকে নরওয়ের পত্রিকা ডাগব্লাডেটকে একজন বলেছেন, ঘটনার সময় সমুদ্রের ঢেউ কয়েক মিটার পর্যন্ত উঁচু হয়ে জাহাজের গায়ে আছড়ে পড়ছিল।

ভিজি পত্রিকাকে পুলিশ বলেছে, সমুদ্রে বাতাসের গতি ছিল ৩৮ নট। আর জাহাজটি তীর থেকে প্রায় ২.৫ নটিক্যাল মাইল বা ৪.৬ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছিল। জাহাজটির একটি ইঞ্জিন নতুন করে চালু করা সম্ভব হয়। ফলে উদ্ধার অভিযান চলা অবস্থায় জাহাজটিকে উপকূলে আনা সম্ভব হয়।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×