ফিলিস্তিনে দুই পক্ষেরই মন রাখছেন মোদি

  যুগান্তর ডেস্ক ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতি দেয়ার ৩০ বছর পর ভারতের প্রথম কোনো প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ফিলিস্তিন সফর করেছেন নরেন্দ্র মোদি। ঐতিহাসিক এ সফরে জর্ডানের রাজধানী আম্মান থেকে হেলিকপ্টারে করে শনিবার সকালে রামাল্লায় পৌঁছান তিনি। এ সময় মোদির বহনকারী হেলিকপ্টারটিকে কড়া পাহারায় ফিলিস্তিনে পৌঁছে দেয় ইসরাইলি বিমান বাহিনীর কয়েকটি বিমান। তাকে স্বাগত জানান ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস। মোদির এ সফরকে ইসরাইল ও ফিলিস্তিন দু’পক্ষের মধ্যে ভারসাম্য রক্ষার সফর বলছেন বিশ্লেষকরা।

মোদি রামাল্লায় ফিলিস্তিন মুক্তি আন্দোলনের (পিএলও) নেতা ইয়াসির আরাফাতের স্মারক শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ করেন। পরে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের সঙ্গে বৈঠকে বসেন তিনি। সেখানে দু’দেশের মধ্যে কয়েকটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। ফিলিস্তিনিদের অধিকার রক্ষায় ভারত একসময় উচ্চকণ্ঠ ছিল। তবে সম্প্রতি উচ্চ প্রযুক্তির সামরিক সরঞ্জাম ও সন্ত্রাসবাদবিরোধী সহযোগিতার কথা বলে ইসরাইলের দিকে ঝুঁকেছে দিল্লি। মোদির হিন্দুত্ববাদী রাজনৈতিক দল বিজেপি মুসলিমদের বিরুদ্ধে ইসরাইলকে স্বাভাবিক মিত্র হিসেবে মনে করে। এমন বাস্তবতায় ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ২০১৭ সালে ইসরাইল সফর করেন মোদি। ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে ভারত সফর করেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু।

ফিলিস্তিনিদের ন্যায়সঙ্গত অধিকারের প্রতি একসময় উচ্চকিত থাকা ভারত মোদি জামানায় ক্রমেই ইসরাইলের দিকে ঝুঁকে পড়ায় মধ্যপ্রাচ্যসহ মুসলিম দেশগুলোতে দেশটির ভাবমূর্তিতে সংকট তৈরি হয়েছে। এমন বাস্তবতায় ভারতীয় কর্মকর্তারা বলছেন, ফিলিস্তিনিদের পাশে থাকবে ভারত। আর এ কারণেই মোদির সফরে ফিলিস্তিনি জনগণের স্বাস্থ্য, তথ্য-প্রযুক্তি ও শিক্ষা খাতে সহায়তা বৃদ্ধির চেষ্টা চালানো হবে। ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব বি. বালা ভাস্কর সফর শুরুর আগে বলেন, ফিলিস্তিন ও ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক আমরা আলাদাভাবে বিবেচনা করে থাকি। আমরা তাদের দুটি আলাদা স্বাধীন ও স্বতন্ত্র দেশ হিসেবে দেখি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

E-mail: [email protected], [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter