পাপনাশিনী নদীতে প্রার্থনা রাহুলের

  যুগান্তর ডেস্ক ১৮ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

পাপনাশিনী নদীতে প্রার্থনা রাহুলের
ছবি: এএফপি

নিজের আরেক নির্বাচনী আসন ওয়েনাড়ে প্রচারণায় গিয়েছিলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। তবে প্রচার নয়, অনেকটা সময় পুজো আর প্রার্থনায় কাটালেন তিনি। বুধবার সকাল সকালই তিনি হাজির হয়ে যান কেরালার বিখ্যাত পাপনাশিনী নদীর তীরে থিরুনেলি মন্দিরে। সেখানেই নিজের পরিবারের প্রয়াত সদস্যদের আত্মার শান্তি কামনায় পুজো দেন তিনি।

এ নদীর স্রোতেই ভাসানো হয়েছিল তার বাবা রাজীব গান্ধীর অস্থি-ভস্ম। রাজ্যের কংগ্রেস নেতা কেসি বেণুগোপাল জানিয়েছেন, ‘নিজের ঠাকুমা, বাবা, পূর্বপুরুষ এবং পুলওয়ামা নাশকতায় নিহত জওয়ানদের আত্মার শান্তি কামনায় পুজো দেন তিনি।’ পুজো শেষে ওয়েনাড় আসন ছাড়াও বিভিন্ন এলাকায় একের পর এক সভা করেছেন তিনি। প্রতিপক্ষকে দিয়েছেন শান্তি ও ভ্রাতৃত্বের বার্তা। খবর হিন্দুস্তান টাইমসের।

কংগ্রেসের প্রধান হিসেবে তার লড়াই বিজেপির বিরুদ্ধে। তাই সিপিএমের বিরুদ্ধে একটা কথাও তিনি বলবেন না। ১২ দিন আগে ওয়েনাড়ে সিপিএমের প্রতি এ বার্তা দিয়েছিলেন রাহুল গান্ধী। এদিন কেরলের মাটি থেকেই ফের একবার বার্তা দিলেন রাহুল। তাকে যেন নিজেদের ভাই হিসেবে দেখা হয়, সিপিএমের উদ্দেশে এ কথা বলেন রাহুল।

সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে রাহুল বলেন, ‘আমাদের নিজেদের ভাই ভাবুন, যে আপনাদের প্রতিনিধিত্ব করতে পারে। শুধু কংগ্রেস কর্মীরাই নন, কেরালার সব মানুষ এবং সিপিএমসহ সব রাজনৈতিক দলের কাছেই আমি এ বার্তা পৌঁছে দিতে চাই।’ কেরালা রাজ্যটা যে দেশের অন্য রাজ্যগুলোর থেকে একেবারেই আলাদা, সেই কথাই বারবার ফুটে ওঠে রাহুলের বক্তব্যে।

১৯৯১ সালে রাজীবের অস্থি একটি কলসে ভরে নিয়ে এসে ভাসানো হয়েছিল থিরুনেলির বিষ্ণু মন্দিরের পাশ দিয়েই বয়ে যাওয়া বিখ্যাত পাপনাশিনী নদীতে।

গত ২৮ বছরে অবশ্য একবারও এখানে আসতে পারেননি তিনি। কেসি বেণুগোপাল বলেছেন, ‘এর আগে রাহুল এখানে আসতে চেয়েছিলেন। কিন্তু নিরাপত্তার কারণেই শেষ পর্যন্ত তা সম্ভব হয়নি।’ মন্দিরে রাহুল গিয়েছিলেন আর পাঁচজন দর্শনার্থীর মতোই। মন্দিরের পাশের গেস্ট হাউসে কিছুক্ষণ সময় কাটিয়ে মন্দিরের দিকে যান তিনি। তার পরনে ছিল সাদা রঙের ধুতি, যাকে স্থানীয় ভাষায় বলা হয় মুন্ডু আর গায়ে ছিল অঙ্গবস্ত্র। পুরোহিতদের পরামর্শ মতো মন্দিরের প্রথা মেনে পুজো দেন তিনি।

ঘটনাপ্রবাহ : ভারতের জাতীয় নির্বাচন-২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×