পাকিস্তানের ‘মিস্টার টেন পার্সেন্ট’ রিমান্ডে

বিক্ষোভের ডাক বিলাওয়াল ভুট্টোর * মুত্তাহিদা কওমি মুভমেন্ট দলের প্রতিষ্ঠাতা গ্রেফতার

  যুগান্তর ডেস্ক ১২ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

পাকিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট আসিফ আলী জারদারিকে ১১ দিনের শারীরিক রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন ইসলামাবাদের আদালত। মঙ্গলবার বিচারক আরশাদ মালিকের বিচারিক বেঞ্চ এ রায় দিয়েছেন। অর্থ পাচার মামলায় আটকের একদিন পরই এ রায় দিলেন আদালত। ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টিবিলিটি ব্যুরো (এনএবি) জারদারিকে ১৪ দিনের রিমান্ড আবেদন জানিয়েছিল। বাবাকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে দেশজুড়ে বিক্ষোভের ডাক দিয়েছেন পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) নেতা বিলাওয়াল ভুট্টো। এদিকে মরিয়ম নওয়াজের দাবি, প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের ইশারায় কাজ করছে এনএবি এবং তারা সীমা অতিক্রম করে ফেলেছে। চাচাতো ভাই হামজা শাহবাজকে গ্রেফতারের পরিপ্রেক্ষিতে এ কথা বলেন তিনি। খবর ডন ও নিউইয়র্ক টাইমসের। জারদারি পিপিপির কো-চেয়ারম্যান এবং পাকিস্তানের প্রয়াত সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টোর স্বামী। ১৯৯০-এর দশকে স্ত্রী বেনজির ভুট্টোর সরকারের মন্ত্রী ছিলেন জারদারি। অভিযোগ রয়েছে, সরকারের বড় বড় প্রকল্প পাইয়ে দিতে প্রতিষ্ঠান বা ঠিকাদারের কাছে ১০ শতাংশ শেয়ার দাবি করতেন তিনি। তখন থেকেই ‘মিস্টার টেন পারসেন্ট’ নামে পাকিস্তানে কুখ্যাত হয়ে ওঠেন জারদারি। সমালোচক ও আইনপ্রণেতাদের মতে, ভুয়া কোম্পানি ও ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলে বহু অর্থ-সম্পত্তির মালিক হন তিনি। ২০০৮ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত জারদারি প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তখনই তার সম্পদের বহর বেড়েছে বেশি।

সোমবার রাজধানী ইসলামাবাদে নিজ বাড়ি থেকে জারদারিকে গ্রেফতার করে এনএবি। তার বিরুদ্ধে ভুয়া ব্যাংক হিসাব এবং এসব ব্যাংক হিসাব থেকে শত শত কোটি রুপি বিদেশে পাচার করার অভিযোগ রয়েছে। তবে জারদারি এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। ওই মামলায় হাইকোর্টের কাছে আগাম জামিনের মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন করেছিলেন তিনি। ইসলামাবাদ হাইকোর্ট সে আবেদন নাকচ করেন। একই মামলায় জারদারির বোনের বিরুদ্ধেও তদন্ত চলছে।

জারদারিকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে দেশজুড়ে বিক্ষোভের ডাক দিয়েছেন বিলাওয়াল ভুট্টো। পিপিপি কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। বিলাওয়ালের ডাকে এদিন রাজধানীসহ বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভ হয়েছে। পিপিপির দুর্গ সিন্ধ প্রদেশ রীতিমতো উত্তপ্ত। সোমবার থেকে চলা বিক্ষোভে পিপিপির সমর্থকরা মঙ্গলবারও বিভিন্ন রাস্তার গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে অবস্থান নিয়েছেন। টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে রাস্তা অবরোধ করেন তারা। লাহোর প্রেস ক্লাবের বাইরে বিক্ষোভ করেন পিপিপি নেতাকর্মীরা। বাহাওয়ালপুর চাক মাদ্রাসায় প্রতিবাদ র‌্যালি করেছেন দলের নারী সমর্থকরা। তান্দো মোহাম্মদ খান শহরে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে প্রতিবাদ জানান পিপিপির সমর্থকরা। এ ছাড়া বাদিন, মিরপুর খাস, রাজনপুর, হায়দ্রাবাদ ও শেহওয়ান শহরে বিক্ষোভ হয়েছে।

এদিকে বিরোধী দল পাকিস্তান মুসলিম লীগ নওয়াজ (পিএমএলএন) পার্টির ভাইস প্রেসিডেন্ট মরিয়ম নওয়াজ অভিযোগ করেন, ইমরান খানের নির্দেশেই এনএবি এলোপাতাড়ি আটক করছে। তারা সীমা অতিক্রম করে ফেলেছে। তিনি বলেন, অতীত কখনও এসব নেতাকে ক্ষমা করেনি, ভবিষ্যতেও করবে না। এসব পুতুল নেতার দাপট খর্ব হলেই হামজাদেরই জয় হবে। নওয়াজকন্যা বলেন, ‘পিপিপি নেতাদের এবং হামজার জন্য কারাগার নতুন কিছু নয়। এ সরকার অবৈধ। পিটিআই সরকার হল বালির দেয়াল, যা সহজেই ভেঙে পড়ে।’ অন্যদিকে মুত্তাহিদা কওমি মুভমেন্ট (এমকিউএম) দলের প্রতিষ্ঠাতা আলতাফ হোসাইনকে মঙ্গলবার লন্ডন থেকে গ্রেফতার করেছে ব্রিটিশ মেট্রোপলিটন পুলিশ। এক বিবৃতিতে তারা জানায়, এমকিউএম দল সংক্রান্ত তদন্ত কাজে ৬০-এর কাছাকাছি বয়সী এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। স্বেচ্ছানির্বাসিত এ নেতা ১৯৯০-এর দশকে যুক্তরাজ্যে আশ্রয় প্রার্থনা করেন।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×