বরিসকে চায়না ইউরোপীয় কমিশন

নতুন প্রধানমন্ত্রী এলেও ব্রেক্সিট চুক্তির রদবদল হবে না

  যুগান্তর ডেস্ক ১২ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ব্রেক্সিট নিয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও ব্রিটেনের বিদায়ী প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে যে চুক্তি হয়েছে নতুন প্রধানমন্ত্রী এলেও সেই চুক্তিতে কোনো রদবদল হবে না। মঙ্গলবার ইউরোপীয় কমিশনের এক মুখপাত্র এ কথা জানিয়েছেন। প্রায় দুই বছরের চেষ্টায় ইইউ’র সঙ্গে একটি চুক্তিতে পৌঁছতে সক্ষম হন সদ্যবিদায়ী প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে। চুক্তি অনুযায়ী, ব্রেক্সিট বাবদ ইইউকে ৩৯ বিলিয়ন ডলার দিতে হবে ব্রিটেনকে।

ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ দলের অন্যতম প্রভাবশালী নেতা ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসন হুশিয়ারি দিয়েছেন, ব্রেক্সিটের শর্ত নমনীয় না হলে কিংবা সময়মতো না হলে ইইউ’র বাজেটের জন্য প্রদেয় ওই অর্থ আটকে দেবেন তিনি। বরিসের এ কঠোর অবস্থানের কারণে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তাকে পছন্দ নয় ইইউ’র। এ ব্যাপারে এক প্রশ্নের জবাবে ইউরোপীয় কমিশনের মুখপাত্র বলেন, ‘সবাই জানেন, আলোচনায় কি সিদ্ধান্ত হয়েছে। যে সিদ্ধান্ত হয়েছে তা সব দেশের অনুমোদনেই হয়েছে। ব্রিটেনে নতুন প্রধানমন্ত্রী এলেও তাতে কোনো রদবদল হবে না।’

যুক্তরাজ্যের ক্ষমতাসীন দল কনজারভেটিভ পার্টির (টোরি) প্রধান হওয়ার দৌড়ে শামিল প্রার্থীদের চূড়ান্ত তালিকা ঘোষণা করেছে দলের নেতৃত্ব নির্বাচনের দায়িত্বে থাকা ব্যাকবেঞ্চারদের ‘১৯২২’ কমিটি। সাংসদ ও দলের দেড় লাখেরও বেশি সদস্যের ভোটে নির্বাচিত ব্যক্তিই যুক্তরাজ্যের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটের বাসিন্দা হবেন। টোরি দলের ১৯২২ কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান ডেইম শেরল গিলান সোমবার প্রতিদ্বন্দ্বী ১০ প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেন বলে জানিয়েছে বিবিসি।

জেরেমি হান্ট, ডমিনিক রাব, ম্যাট হ্যানকক ও মাইকেল গোভের মতো যারা মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার চূড়ান্ত সময়সীমার আগেই প্রচারণায় নেমে পড়েছেন তারাও এ তালিকায় আছেন। চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকায় আছেন- মে-র মন্ত্রিসভার পরিবেশমন্ত্রী মাইকেল গোভ, স্বাস্থ্যমন্ত্রী ম্যাট হ্যানকক, সাবেক চিফ হুইপ মার্ক হারপার, পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্ট, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ, আন্তর্জাতিক উন্নয়ন বিষয়কমন্ত্রী ররি স্টুয়ার্ট, সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসন, সাবেক লিডার অব দ্য হাউস আন্ড্রেয়া লিডসাম, সাবেক শ্রম ও পেনশন বিষয়কমন্ত্রী এস্টার ম্যাকভেই, সাবেক ব্রেক্সিট মন্ত্রী ডমিনিক রাব।

এদের মধ্য থেকে দলীয় প্রধান হিসেবে নির্বাচিত ব্যক্তি কনজারভেটিভ দলের শীর্ষ পদে আসীন হওয়ার পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী পদে তেরেসা মে’র স্থলাভিষিক্ত হবেন। ব্রেক্সিট কার্যকর করতে গিয়ে নাকাল হওয়া প্রধানমন্ত্রী মে গত শুক্রবার আনুষ্ঠানিকভাবে দলীয় প্রধানের পদ থেকে পদত্যাগ করেন। তবে নতুন দলীয় প্রধান নির্বাচিত হওয়ার আগ পর্যন্ত তিনিই ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করে যাবেন।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×