মমতাকে শর্ত দিলেন ডাক্তাররা

আলোচনা হবে ক্যামেরার সামনে বদ্ধ ঘরে নয়

  যুগান্তর ডেস্ক ১৭ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

অবশেষে রাগ পড়ছে ডাক্তারদের। শেষ হতে চলেছে পশ্চিমবঙ্গের জুনিয়র চিকিৎসকদের আন্দোলন। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির সঙ্গে আলোচনায় রাজি হয়েছেন চিকিৎসক নেতারা। রোববার সংগঠনের জেনারেল বডির (জিবি) বৈঠকের পর নিজেদের এ সিদ্ধান্ত জানান ডাক্তাররা। তবে সেখানে একটা শর্তজুড়ে দিয়েছেন তারা- ‘আলোচনা হবে ক্যামেরার সামনে, বদ্ধ দরজার পেছনে নয়।’

প্রায় পাঁচ ঘণ্টার ওই বৈঠক শেষে দেয়া সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ডাক্তাররা জানান তা হতে হবে ক্যামেরার সামনে। জুনিয়র ডাক্তাররা বলেন, ‘কোথায় আলোচনা হবে জনগণের স্বার্থে জায়গা ঠিক করার ব্যাপারটা আমরা মুখ্যমন্ত্রীর ওপরই ছেড়ে দিলাম। তিনি বলুন কোথায় বসবেন। আমরা তৈরি।’

শনিবার সন্ধ্যায় সংবাদ সম্মেলন করেছিলেন মমতা। এদিন সেই সংবাদ সম্মেলন প্রসঙ্গে জুনিয়র ডাক্তারদের তরফে বলা হয়েছে, ‘ওই সংবাদ সম্মেলন বিভ্রান্তিমূলক। তবে যাই হোক জনগণের স্বার্থে আমরা ওর সঙ্গে আলোচনায় বসতে রাজি। আমরাও যত দ্রুত সম্ভব এই অচলাবস্থা কাটিয়ে নিজেদের ডিউটিতে ফিরতে চাই।’ কোন জায়গায় বসে আলোচনা হবে সেটা অবশ্য মমতা ব্যানার্জিকেই সিদ্ধান্ত নিতে বলেন জুনিয়র ডাক্তাররা। কিন্তু তাদের দাবি, সেই আলোচনায় রাজ্যের সবকটি সরকারি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের প্রতিনিধিকে রাখতে হবে। অবশ্যই আলোচনা হতে হবে প্রকাশ্যে, সংবাদমাধ্যমের ক্যামেরার সামনে। বদ্ধ দরজার পেছনের আলোচনা ভিত্তিহীন বলেও এদিন মন্তব্য করেছেন আন্দোলনরত জুনিয়র ডাক্তাররা। রোববার সকাল থেকেই এনআরএসের একাডেমিক বিল্ডিংয়ে চলছিল জিবি মিটিং। হাজির ছিলেন সব মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের প্রতিনিধিরা। সকাল থেকেই কড়া নিরাপত্তায় মুড়ে ফেলা হয়েছিল হাসপাতাল চত্বরে। পুলিশের একাংশ আশঙ্কা করেছিল বৈঠকের পর ঝামেলা হতে পারে। অশান্তি এড়াতেই তাই এদিন এনআরএস চত্বরে মজুদ ছিল বিশাল পুলিশ বাহিনী।

গরমে মানুষ মরছে ভারতে : অসহ্য গরমে প্রায় প্রতিদিনই কোথাও না কোথাও কেউ মারা যাচ্ছে ভারতে। চরম পর্যায়ে পৌঁছেছে বিহারের তাপমাত্রা। তাপ প্রবাহের দাপটে একদিনেই ৭০ জনের মৃত্যু হয়েছে রাজ্যে। সবচেয়ে খারাপ অবস্থা রাজ্যের ঔরঙ্গাবাদ, গয়া এবং নওদা জেলার। পাটনার অবস্থাও ভয়াবহ। তাপমাত্রা স্বাভাবিকের থেকে ৯ ডিগ্রি বেশি। লু-এর দাপটে শুধু গয়াতেই মৃত্যু হয়েছে ১৩ জনের। পরিস্থিতি মোকাবেলায় গয়ার বাসিন্দাদের গরমে রোদে না বেরোনোর পরামর্শ দিয়েছেন জেলা শাসক অভিষেক সিং। আবহাওয়া দফতরের কাছ থেকে পাওয়া খবর অনুযায়ী গয়ার তাপমাত্রা ৪৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস অতিক্রম করেছে। ভাগলপুরের তাপমাত্রা ৪১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, তুলনামূলকভাবে পূর্ণিয়ার তাপমাত্রা কম, ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তীব্র দহনে জ্বলছে উত্তর ভারত, তাপপ্রবাহে বিহারের নওদা জেলায় প্রায় ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন শতাধিক। ঔরঙ্গাবাদের অবস্থা সবচেয়ে সংকটজনক।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×